সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

রেললাইনে বসে ফোনে কথা বলাই কাল হলো তার

আপডেট : ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১৫:১২

রেললাইনে বসে মুঠোফোনে কথা বলছিলেন তিনি। আর এটাই কাল হলো তার জন্য। কখন কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনটি এসে পড়ল টেরই পেলেন না তিনি। চেখের নিমিষেই শরীরের উপর দিয়ে চলে গেল ট্রেন। আর মুহূর্তেই ঘটনাস্থলে প্রাণ হারালেন তিনি। এটি অভয়নগর উপজেলার নওয়াপাড়া গ্রামের মহাশ্মশানের পাশে গত শুক্রবার রাতের দুর্ঘটনা।

নিহত ওই ব্যক্তির নাম শহিদ মোল্যা (৪৮)। তিনি নড়াইল জেলার কালিয়া উপজেলার খড়রিয়া গ্রামের ইসারত মোল্যার ছেলে। শহিদ এমভি নয়ন শোভন-১ জাহাজে বাবুর্চির কাজ করতেন। 

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে রেলওয়ে জিআরপি পুলিশ জানায়, গত শুক্রবার রাত ৮টার দিকে শহিদ মোল্যা নওয়াপাড়া গ্রামের মহাশ্মশানের পাশে রেললাইনের পরে বসে মোবাইলে কথা বলছিলেন। এ সময় রাজশাহী থেকে ছেড়ে আসা খুলনাগামী কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়।

শহীদ মোল্যার চাচাত ভাই সোহেল মোল্যা জানান, শহীদ মোল্যা দীর্ঘদিন এমভি নয়ন শোভন-১ জাহাজে বাবুর্চির কাজ করতেন। জাহাজটি বর্তমানে নওয়াপাড়ায় ভৈরব নদে অবস্থান করছে। খবর পেয়ে তিনি এসে দেখেন তার ভাই ট্রেনে কেটে মারা গেছেন।

যশোর রেলওয়ে ফাড়ির উপপরিদর্শক মনিতোষ বিশ্বাস বলেন, ‘রেললাইনের পরে বসে মোবাইলে কথা বলার সময় শুক্রবার রাতে কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনে কেটে শহিদ মোল্যা নামে একজন মারা গেছে। খুলনা রেলওয়ে থানায় এ ঘটনায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।’

 

ইত্তেফাক/এসজেড