রোববার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

ফিনল্যান্ডে নাচে গানে বর্ষবরণ

আপডেট : ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১৭:৫৪

হাজার মাইল দূরের দেশ ফিনল্যান্ডের হেলসেঙ্কির স্কুল মিলনায়তনটি রোববার (১৪ এপ্রিল) একখণ্ড রমনা বটমূল বা চট্টগ্রামের ডিসি হিল চত্বরে রূপ নিয়েছিল।

বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য পয়লা বৈশাখের প্রাণের উৎসবে মেতেছিলেন শত শত বাংলাদেশি। বৈশাখী মেলা, মঙ্গল শোভাযাত্রা আর নাচ-গান-আবৃত্তিতে তারা দেশের সংস্কৃতিকে তুলে ধরেছিলেন প্রবাসের বুকে। লোকসংস্কৃতির গানের সুরে ও নাচে বরণ করে নেওয়া হয় বাংলা নতুন বছরকে। অনুষ্ঠানের নাম দেওয়া হয়েছিল ‘ইতিকথা’। হারিয়ে যাওয়া পটচিত্র আর ঐতিহ্যবাহী রিক্সাপ্রিন্ট দিয়ে তৈরি করা হয় অনুষ্ঠান মঞ্চ। 

‘উৎসবে বাঙালি’ আয়োজিত পয়লা বৈশাখের এই অনুষ্ঠানের পর্দা ওঠে মঙ্গল শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে। ‘এসো হে বৈশাখ’ গান দিয়ে শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এরপর কখনো কবিতা কখনো গান এবং নাচে মিলনায়তন মেতে ওঠে। ছিল হারিয়ে যেতে থাকা বাংলার ঐতিহ্যবাহী বায়স্কোপ ও পুঁথিগান।

আউল-বাউল লালনের দেশে, গাড়ি চলে না চলে না, আমার বন্ধু চিকন কালিয়া, তোমারে দেখিবারে মন চাই, বাওকুমটা বাতাস, অমৃত মেঘের বারী, সর্বত মঙ্গল রাঁধে গানে মেতেছে দর্শকরা। 

কমলা নৃত্য করে নাচে অংশ বাঙালি কিশোরের সঙ্গে ফিনিশ কিশোরী কিংবা পিন্দারে পলাশের বন, কেউ পরিবেশন করেন বসন্ত বহিলো সখি নাচ। এছাড়া বেহুরে লগন, রঙ্গিলা মন, উতম ফেগে মেঘে গানের সঙ্গে নাচে অংশ নেন শিল্পীরা । সবশেষে গ্রামের নওজোয়ান দলীয় গানের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্ত হয়। অংশগ্রহণকারী শিল্পীদের নাচ ও গানের সঙ্গে কম নাচেনি মিলনায়তনে আগত দর্শকরা। 

সংবাদ২১ডটকম ও আইজেএনই এর সহযোগিতায় এ বর্ষবরণ অনুষ্ঠান উপলক্ষে মিলনায়তনের এক পাশে রকমারি খাবার ও পোশাকের দোকান বসেছিল। 

ইত্তেফাক/এবি