বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

জাতীয় দলে ফেরার প্রস্তাবে নারিনের ‘না’

আপডেট : ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ১৭:৪৬

বর্তমান ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে অন্যতম তারকা ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডার সুনিল নারিন। তবে যেভাবে তিনি সারা বিশ্বব্যাপী উড়ে উড়ে টুর্নামেন্টগুলো মাতিয়ে রাখেন সেভাবে জাতীয় দলে দেখা যায়নি। এর মধ্যে ২০২৩ সালের নভেম্বরে জাতীয় দল থেকে বিদায় নিয়ে নেয়। তবে আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে তাকে ফের জাতীয় দলে ফেরাতে উঠে পরে লেগেছেন তার জাতীয় দলের সতীর্থরা। তবে নিজ সিদ্ধান্তে অনড় নারিন।

গেল মঙ্গলবার রাতে আইপিএলে রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে ৫৬ বলে ১৩ চার ও ৬ ছক্কায় ১০৯ রানের ইনিংস খেলেন কলকাতার তারকা অলরাউন্ডার সুনিল নারিন। যা এই ইন্ডিজ অলরাউন্ডারের টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের এক ইনিংসে সর্বোচ্চ রান। এছাড়াও এই ম্যাচের মধ্যে দিয়ে স্বীকৃত টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে চার হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন এই উইন্ডিজ তারকা। এমন দুর্দান্ত ইনিংস খেলার পর ঘরের মাটিতে আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এই তারকা অলরাউন্ডারকে অনুরোধ করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের অধিনায়ক রোভম্যান পাওয়েল। তবে অধিনায়কের এমন প্রস্তাবে সাড়া দেননি এই তারকা অলরাউন্ডার।

মঙ্গলবার ম্যাচ শেষে রাজস্থানের হয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসেন ইন্ডিজ অধিনায়ক রোভম্যান পাওয়েল। স্বদেশী সুনিল নারিনের এমন পারফরম্যান্সের পর তার কাছে জানতে চাওয়া হয় আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে নারিনকে আবারও জাতীয় দলে ফেরানের কোনো পরিকল্পনা করছে কি না ওয়েস্ট ইন্ডিজের। এমন প্রশ্নে পাওয়েল বলেন, ‘বেশ কিছু দিন ধরে আমি নারিনকে বলেই যাচ্ছি জাতীয় দলে ফিরতে। কিন্তু সে কারো কথাই শুনছে না। আমি তার ঘনিষ্ঠ বন্ধু পোলার্ড, ব্রাভো এবং পুরানকে দিয়ে নারিনের সঙ্গে কথা বলেছি। কিন্তু সে জাতীয় দলে ফেরার বিষয়ে কোনোভাবেই আগ্রহ প্রকাশ করেনি। আশা করি, দল নির্বাচনের আগে কেউ একজন তাকে রাজি করাতে পারবে।’ যদিও কিছু দিন আগে সুনিল নারিন আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিয়ে তার পরিকল্পনা নিয়ে বলেন, ‘ঘরের মাটিতে অনুষ্ঠিত হওয়া বিশ্বকাপ তিনি বাড়িতে বসে দেখবেন।’

এছাড়াও রাজস্থানের বিপক্ষে এই ম্যাচে নারিনের পারফরম্যান্স নিয়ে পাওয়েল বলেন, ‘আমি সুনিলের বিপক্ষে কোনো পরিকল্পনা করিনি, আমি জানি যে, সে কলকাতার সেরা বোলার। কিন্তু যখন আপনার ৩০ বলে ৮০ রান প্রয়োজন তখন সুযোগ নিতে হবে। আমিও সেটা করার চেষ্টা করেছি।’

ইত্তেফাক/জেডএইচ