মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

জনসন অ্যান্ড জনসনের কাশির সিরাপ: সতর্কতা জারি করতে পারে ডব্লিউএইচও

আপডেট : ২১ এপ্রিল ২০২৪, ১১:১৫

নাইজেরিয়ায় গত সপ্তাহে জনসন অ্যান্ড জনসনের তৈরি শিশুদের কাশির সিরাপে বিষাক্ত উপাদান পাওয়া যাওয়ায় এই সিরাপ নিয়ে বিস্তৃত পরিসরে সতর্কতা জারি করা হতে পারে। এক ইমেইলে একথা জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। 

নাইজেরিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা গত বুধবার বেনিলিন সিরাপের একটি ব্যাচ বাজার থেকে প্রত্যাহার করে নিয়েছে। নিয়মিত পরীক্ষায় এই সিরাপে উচ্চমাত্রার ডাইয়িথিলিন গ্লাইকোল পাওয়া যাওয়ার পর এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়। নাইজেরিয়ার পর আফ্রিকার আরও ৫ টি দেশ- রুয়ান্ডা, তাঞ্জানিয়া, কেনিয়া, জিম্বাবুয়ে এবং দক্ষিণ আফ্রিকাও এই সিরাপ প্রত্যাহার করেছে। সিরাপটি এই দেশগুলোতে তৈরি হয়েছিল। 

বেনিলিন সিরাপের প্রত্যাহার করা একটি ব্যাচ ২০২১ সালের মে মাসে দক্ষিণ আফ্রিকাতে তৈরি করেছিল জনসন অ্যান্ড জনসন। যদিও কেনভু নামের এক সংস্থা গত বছর জনসন অ্যান্ড জনসনের কাছ থেকে বেনিলিন কিনে নেওয়ার পর এ ব্র্যান্ডটি এখন মূলত তাদেরই। কেনভু এ সপ্তাহে এক বিবৃতিতে বলেছে, তারা নিজেদের মতো করে ওষুধের ব্যাচগুলোর মূল্যায়ন শুরু করেছে। কর্তৃপক্ষ এবং স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে মিলে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করা হবে। ডাইয়িথিলিন গ্লাইকোল মানবদেহের জন্য বিষাক্ত। এই বিষাক্ত উপাদান সেবনে কিডনি বিকল হতে পারে। ২০২২ সাল থেকে মুখে সেবনের ওষুধের বিষক্রিয়ায় বিশ্বে ভয়াবহ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। গাম্বিয়া, উজবেকিস্তান, ইন্দোনেশিয়া এবং ক্যামেরনে ডাইয়িথিলিন গ্লাইকোল ও অন্য আরেকটি একইধরনের বিষক্রিয়ায় ৩শ’রও বেশি শিশুর মৃত্যু হয়েছে। যদিও সাম্প্রতিক বেনিলিন সিরাপ প্রত্যাহারের সঙ্গে ওইসব মৃত্যুর ঘটনার যোগসূত্র থাকার কোনও প্রমাণ এখনও পাওয়া যায়নি। শিশুদের কাশি, হে ফিভার বা অনবরত হাঁচি ও শ্বাসনালি সংক্রান্ত অন্যান্য অ্যালার্জির চিকিত্সার জন্য বেনিলিন সিরাপ ব্যবহার করা হয়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বলেছে, তারা বিশ্বব্যাপী চিকিত্সা সামগ্রীর ওপর সতর্কতা জারি রেখেছে, যাতে বিভিন্ন দেশের কর্তৃপক্ষ সাবধান থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে তত্পর হয়। বেনিলিন সিরাপের ক্ষেত্রেও তারা একই পদক্ষেপ নিতে পারে। কয়েকটি পক্ষ থেকে সুনির্দিষ্টভাবে বিস্তারিত কিছু তথ্য নিশ্চিত হওয়া সাপেক্ষে সংস্থাটি এ পদক্ষেপ নেবে। ২০২২ সালের একটি ঘটনায় ভারত এবং ইন্দোনেশিয়ায় উত্পাদকদের ব্যবহার করা কাঁচামাল থেকে সিরাপে বিষাক্ত উপাদান দূষণ ঘটেছিল।

ডব্লিউএইচও বলছে, বেনিলিন পেডিয়াট্রিক সিরাপের ক্ষেত্রেও তারা এমন দূষণের বিষয়টি খতিয়ে দেখতে সিরাপ উত্পাদক এবং স্বাস্থ্য নিয়ন্¿ক কর্তৃপক্ষ-উভয়ের সঙ্গে মিলে কাজ করছে। সিরাপ তৈরিতে ব্যবহৃত কাঁচামালের উত্স সম্পর্কেও তারা তথ্য পেয়েছে। তবে এই উত্স কি তা জানায়নি ডব্লিউএইচও। সংস্থাটি বলছে, কেনভু সিরাপ তৈরির আগে এর কাঁচামাল পরীক্ষা করেছিল। কিন্তু তখন এসব উপাদানে ‘উদ্বেগজনক কিছু পাওয়া যায়নি। সিরাপগুলো জাল হতে পারে এমন সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যায় না জানিয়ে সংস্থাটি বলেছে, তদন্তের আওতায় এ বিষয়টিও বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে।

ইত্তেফাক/এএইচপি