মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

উপজেলা নির্বাচন

দলের কঠোর নির্দেশনার পরও সরছেন না আইনমন্ত্রীর ফুফাতো ভাই

আপডেট : ২১ এপ্রিল ২০২৪, ২০:১৬

প্রধানমন্ত্রীর কঠোর নির্দেশনার পরও উপজেলা নির্বাচনের মাঠ থেকে সরছেন না অনেক মন্ত্রী-এমপির স্বজনরা। তাদের মধ্যে এমনই একজন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী ও আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হকের ফুফাতো ভাই ছাইদুর রহমান স্বপন। আওয়ামী লীগ নেতা ছাইদুর রহমান স্বপন ও তার একাধিক ঘনিষ্ট সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মন্ত্রী-এমপির স্বজনদেরকে ভোট থেকে সরে দাঁড়ানোর বিষয়ে আওয়ামী লীগের নির্দেশনা থাকলেও ছাইদুর রহমান বলেন, এমন তো নয় যে আমি মন্ত্রীর আত্মীয় হিসেবে ভোটে দাঁড়িয়েছি। কিংবা দল আমাকে মনোনয়ন দিয়েছে। আমি ৩০ বছর ধরে কুটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি। কুটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলাম। আমি আমার অবস্থান থেকেই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে দাঁড়িয়েছি।

তিনি বলেন, দল থেকে বলা হয়েছে মন্ত্রী-এমপিরা যেন ভোটে কোনো ধরনের প্রভাব বিস্তার না করেন। এক্ষেত্রে আমাদের মন্ত্রী তো কাউকে কিছু বলছেন না। উনি আমাকে বলে দিয়েছেন সুষ্ঠু ভোট হবে। সে কারণে আমি প্রার্থী হয়েছি। আমি ভোটে লড়বো এটা নিশ্চিত। আর সবচয়ে বড় কথা এটা তো আর দলীয় কোনো নির্বাচন নয়।

তবে ছাইদুর রহমানের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রাশেদুল কাওছার ভূঁইয়া জীবন বলেন, ছাইদুর রহমান সব জায়গায় বলছেন মন্ত্রী উনার আত্মীয়। এ বিষয়ে তিনি মন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

তবে মন্ত্রীর দেওয়া আশ্বাস অনুযায়ী সুষ্ঠু ভোটে জয়ের ব্যাপারেও তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

উল্লেখ্য, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ৯ উপজেলার মধ্যে ৬টি উপজেলার নির্বাচনের তফসিল হয়েছে। এগুলো হচ্ছে সরাইল, নাসিরনগর, কসবা ও আখাউড়া এবং আশুগঞ্জ ও বাঞ্ছারামপুর। এরমধ্যে প্রথম ধাপে সরাইল ও নাসিরনগরের নির্বাচন হচ্ছে ৮ মে। দ্বিতীয় ধাপে ২১ মে কসবা ও আখাউড়া উপজেলা পরিষদের নির্বাচন আর তৃতীয় ধাপে ২৯ মে আশুগঞ্জ ও বাঞ্ছারামপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। 

ইত্তেফাক/এবি