মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

ফুলবাড়ীতে দৃষ্টিনন্দন রিসোর্ট সেন্টারের উদ্ভোধন, বিনোদন প্রেমীদের উচ্ছ্বাস

আপডেট : ২১ এপ্রিল ২০২৪, ২২:৪২

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে এই প্রথম দৃষ্টিনন্দন ফয়নুর গ্রীন পল্লী রিসোর্ট সেন্টারের শুভ উদ্বোধন হওয়ার পর থেকে বিনোদন প্রেমীদের মধ্যে আনন্দ উচ্ছ্বাস বইছে। শনিবার (২০ এপ্রিল) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রিসোর্টের শুভ উদ্ধোধন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা. মো. হামিদুল হক খন্দকার। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্যের সহধর্মিণী প্রফেসর ড. মকসুদা খাতুন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেহেনুমা তারান্নুম, ফুলবাড়ী থানার ওসি প্রাণকৃষ্ণ দেবনাথ, শিমুলবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম সোহেল, নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাছেন আলী ও সাবেক চেয়ারম্যান এজাহার আলীসসহ অনেকে।

উদ্বোধন শেষে প্রধান ও বিশেষ অতিথি এবং আমন্ত্রিত অতিথিরা পুরো রিসোর্টটি ঘুরে দেখেন। এ সময় একমাত্র বিনোদন কেন্দ্রে দূর-দূরান্তর থেকে বিনোদন প্রেমিদের ঢলে মুখরিত হয়ে উঠে।

মিয়াপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান জানান, পরিবেশবান্ধব, মনোমুগ্ধকর প্রাকৃতিক পরিবেশে ফুলে ফুলে সুশোভিত এ উপজেলার এই প্রথম দৃষ্টিনন্দন রিসোর্ট ভ্রমণ পিপাস মানুষের মাঝে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। 

উপজেলার সীমান্তঘেষা শিমুলবাড়ী ইউনিয়নের মিঞাপাড়া গ্রামের নিভৃত পল্লীতে ১.৫৫ একর জমির উপর নির্মিত হয়েছে। এলাকার ফরিদ হোসেন নামের একজন উদ্যোক্তা পরিচালক হিসেবে এই রিসোর্ট কেন্দ্রটি গড়ে তোলেন। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে সন্ধা ৭ পর্যন্ত রিসোর্ট সেন্টারটি উম্মুক্ত থাকবে।

রংপুর থেকে আসা দর্শনার্থী সঞ্চয়িতা রায় মেঘলা ও সঙ্গীতা আক্তার হ্যাপী বলেন, শহর থেকে গ্রাম পর্যায়ে দৃষ্টিনন্দন বিনোদন কেন্দ্রটি দেখে সত্যি আমরা মুগ্ধ হয়েছি। 

ফয়নুর গ্রীন পল্লী রিসোর্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদ হোসেন জানান, অনেকদিনের স্বপ্ন ছিল গ্রামে বাড়ীর পাশেই একটা দৃষ্টিনদন বিনোদন গড়ে তুলব। সেই স্বপ্ন থেকে জীবনের সব উপার্জন, সঞ্চয় ও ব্যাংক ঋণ দিয়ে আস্তে আস্তে এই রিসোর্টটি গড়ে তুলেছি। বিনোদনের পাশাপাশি এখানে বেশ কিছু মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। 

রিসোর্টের উপদেষ্টা শিমুলবাড়ী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শরিফুল আলম মিয়া সোহেল জানান, প্রকৃতি প্রেমী ও ভ্রমণ পিপাসু মানুষের জন্য এটি আকর্ষণের কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। দুপুর থেকে দূর-দূরান্তর থেকে দলে দলে লোকজন এসে ঘুরে দেখছেন। এটা খুবই আনন্দের বিষয়।

রংপুর বেগম রোকেয়া কলেজের শিক্ষক আজহাজুল ইসলাম ও সিনিয়র সাংবাদিক আব্দুল আজিজ মজনু জানান, গ্রামের ভিতরে এক মনোমুগ্ধকর রিসোর্ট দেখে মনে হচ্ছে আমরা বড় কোনো শহরে এসেছি, সত্যি আমরা অপরূপ সৌন্দর্যময় এই রিসোর্টটি অভিভূত হয়েছি। 

ফুলবাড়ী থানার ওসি প্রাণকৃষ্ণ দেবনাথ জানান, ফুলবাড়ীতে এই প্রথম দৃষ্টিনন্দন রিসোর্ট সেন্টারে এসে খুবেই ভালো লাগছে। প্রতিটি মানুষ জীবন-জীবিকা পাশাপাশি একটু আনন্দ-উৎসবের প্রয়োজন হয়। 

কুড়িগ্রাম-২ আসনের সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা. হামিদুল হক খন্দকার জানান, ফুলবাড়ীর মাটিতে দৃষ্টিনন্দন রিসোর্টটি উদ্ধোধন করে ভালো লাগলো। প্রধানমন্ত্রী ও জননেত্রী শেখ হাসিনা অঙ্গীকার করেছে প্রতিটি গ্রাম হবে শহর। এই রিসোর্টে তার বাস্তবচিত্র। এটি একটি নান্দনিক বিনোদন স্পট। মানুষের মনের খোরাক জোগাবে।

ইত্তেফাক/পিও