মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

ইউক্রেনের ড্রোন হামলায় রাশিয়ার জ্বালানি স্থাপনায় আগুন

খারকিভে আবাসিক ভবনে রুশ হামলায় ছয় জন আহত

আপডেট : ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:০৮

ইউক্রেনের ড্রোন হামলায় রাশিয়ার জ্বালানি স্থাপনায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। বুধবার (২৪ এপ্রিল) দেশটির স্মোলেনস্ক অঞ্চলের জ্বালানি সুবিধাগুলোতে আগুন ছড়িয়ে? পড়ে। এদিকে ইউক্রেনের খারকিভে আবাসিক ভবনে রুশ হামলায় ছয় জন আহত হয়েছে। এক প্রতিবেদনে এমনটি জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

পশ্চিমাঞ্চলের গভর্নর ভ্যাসিলি আনোখিন এক টেলিগ্রাম মেসেজিং অ্যাপে বলেন, ‘আমাদের অঞ্চলটিতে আবারও ইউক্রেন ড্রোন হামলা চালিয়েছে। সামরিক জ্বালানি এবং বিদ্যুত্সুবিধাগুলোতে শত্রুদের হামলায় স্মোলেনস্ক এবং ইয়ার্তসেভো জেলায় আগুন ছড়িয়ে পড়ে। তবে সেসব জেলার কোন কোন কারখানায় আগুন লেগেছে, তাত্ক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি। 

টেলিগ্রামে পৃথকভাবে রাশিয়ার দক্ষিণ-পশ্চিমের লিপেটস্ক অঞ্চলের গভর্নর ইগর আর্টামনভ জানান, একটি ড্রোন সেখানকার একটি শিল্প অঞ্চলে আঘাত হেনেছে। এতে কোনো প্রকার হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। তবে এই হামলায় কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কি না কিংবা হামলার লক্ষ্যবস্তু কী ছিল, এ নিয়ে বিস্তারিত কিছু জানাননি তিনি। এই তথ্যগুলো স্বাধীনভাবে যাচাই করা যায়নি। এ বিষয়ে ইউক্রেনের পক্ষ থেকেও তাত্ক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

এদিকে ইউক্রেনের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভে আবাসিক ভবনে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে রাশিয়া। বুধবার ভোরে চালানো এই হামলায় ভবনগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে আহত হয়েছেন ছয় জন। টেলিগ্রামে এই তথ্য জানিয়েছেন শহরটির গভর্নর ওলেহ সিনহুবভ।

গভর্নরের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, রাশিয়ার করা এই হামলায় শহরের কেন্দ্রীয় জেলায় তিনটি আবাসিক ভবন, দুটি অফিস, তিনটি অনাবাসিক ভবন এবং একটি গ্যাস পাইপলাইন ক্ষতির মুখে পড়েছে। এই ঘটনায় প্রায় ৫৬৮টি জানালা এবং ৩৩টি গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার কথা জানিয়েছেন সিনেহুবভ। শহরের মেয়র ইহোর তেরেখভ ইউক্রেনীয় টিভিকে জানান, দুটি এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করে এই হামলা চালানো হয়। তবে শহরের আবাসিক এলাকায় উল্লেখযোগ্য কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি রুশ সূত্রের বরাত দিয়ে বুধবার রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আরআইএ জানিয়েছে, তাদের করা এই হামলাটি খারকিভের সেনা কোয়ার্টারে আঘাত হানে। সেখানে ইউক্রেনের সামরিক কর্মীরা অবস্থান করছিলেন। তবে স্বাধীনভাবে এই তথ্য যাচাই করা যায়নি।

ইত্তেফাক/এএইচপি