রোববার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

১৩ ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে বরিশালে স্কুলশিক্ষক বরখাস্ত

আপডেট : ১১ মে ২০২৪, ২১:২৯

বরিশাল নগরীতে ১৩ ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় হালিমা খাতুন বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মাইদুল ইসলামকে বহিষ্কার করা হয়েছে। শনিবার (১১ মে) বহিষ্কারের বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে। ৯ মে তাকে বহিষ্কার করে স্কুল কর্তৃপক্ষ। 

এর আগে ৫ মে ষষ্ঠ শ্রেণির ১৩ ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠে। এ ঘটনায় ৬ মে প্রধান শিক্ষকের কাছে লিখিত অভিযোগ দেয় ভুক্তভোগী শিক্ষাথীরা। এরপর তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে করা তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় তাকে বরখাস্ত করা হয়। ব্যবসায় শিক্ষা শাখার চুক্তি ভিত্তিক এই শিক্ষকের বিরুদ্ধে এর আগেও ছাত্রীদের হয়রানির অভিযোগে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছিল বলে জানা গেছে।

ভুক্তভোগী ছাত্রীদের অভিযোগ, ঘটনার দিন গত ৫ মে ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের আইসিটি ক্লাস ছিল। তখন ঐ শিক্ষক ক্লাসে গিয়ে ছাত্রীদের গায়ে পিঠে হাত দেয়। এ ঘটনা শিক্ষার্থীরা বাড়িতে গিয়ে অভিভাবকদের জানায়। 

অভিভাবকরা বলেন, শিক্ষকের এমন আচারণ দীর্ঘ দিনের। এমন হলে তাদের সন্তানদের স্কুলে পাঠানো দায় হয়ে উঠবে। এজন্য ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান তারা।

অভিযুক্ত শিক্ষক মাইদুল ইসলাম মুঠোফোনে প্রথমে পুরো বিষয়টি অস্বীকার করলে পরবর্তীতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন। তিনি বলেন, মূলত স্কুলের কিছু ভেতরগত রাজনৈতিক বিষয়ের কারণে আমাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। 

স্কুলের প্রধান শিক্ষক এসএম ফখরুজ্জামান বলেন, ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় স্কুলের পরিচালনা কমিটির সভা ডেকে তাকে পুরোপুরি বরখাস্ত করা হয়েছে। 

স্কুলের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান ফয়সাল জানান, তারা এতেই ক্ষ্যান্ত থাকবেন না। দায়ী শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেবেন।

ইত্তেফাক/পিও