মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

দল বিশ্লেষণ

ইংল্যান্ডের শিরোপা ধরে রাখার অভিযান

আপডেট : ২৩ মে ২০২৪, ১৬:৪৪

দরজায় কড়া নাড়ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। বাংলাদেশ সময় ২ জুন যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে শুরু হচ্ছে কুড়ি ওভারের বিশ্ব আসর। ২২ গজের লড়াইয়ের উত্তাপে গা মাখছে ক্রিকেটবিশ্ব। কোন দলের কতদূর যাওয়ার সম্ভাবনা, সেই আলোচনাও চলছে। এবারের আসরে অংশ নিচ্ছে ২০ দল। তাদের শক্তি-দুর্বলতা ও সম্ভাবনা নিয়েই এই আয়োজন। আজ থাকছে ইংল্যান্ডকে নিয়ে-

২০২২ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরুর আগেই অনেকে সিদ্ধান্তে পৌঁছে গিয়েছিলেন- এবার শিরোপা জিতবে ইংল্যান্ড। তাদের ভবিষ্যদ্বাণী ভুল হয়নি। ফাইনালে পাকিস্তানকে হারিয়ে প্রতিযোগিতাটির দ্বিতীয় শিরোপা ঘরে তোলে ইংলিশরা।

তাতে একটা রেকর্ডও গড়ে ফেলে ইংল্যান্ড। বিশ্বের প্রথম দল হিসেবে ওয়ানডে বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন থাকা অবস্থায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা জেতে জস বাটলাররা। এবারও এই উইকেটকিপারের নেতৃত্বে যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের আসরে নামতে যাচ্ছে ইংল্যান্ড। বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়া ওই দলটির বেশ কয়েকজন সদস্য এবার নেই। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন বেন স্টোকস। 

গত এপ্রিলে নিজে থেকেই বিশ্বকাপ থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের (ইসিবি) কর্তাব্যক্তিদের জানিয়ে দিয়েছিলেন, তাকে যেন শিরোপা ধরে রাখার মিশনে বিবেচনা না করা হয়।

স্টোকসের অভিজ্ঞতা নিশ্চিতভাবেই মিস করবে ইংল্যান্ড। তবে গত কয়েক বছরে কুড়ি ওভারের ক্রিকেটে পরিণত হয়েছেন বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার। তাদের মধ্যে অন্যতম ফিল সল্ট ও উইল জ্যাকস। দুজনই আইপিএলে আলো ছড়িয়েছেন। কলকাতা নাইট রাইডার্সের জার্সিতে তো ক্যারিয়ারের সেরা সময় কাটিয়েছেন এই টপ অর্ডার ব্যাটার।

ইংল্যান্ডের জন্য আরেকটি বড় স্বস্তির খবর হলো, জোফরা আর্চারের ফেরা। চোটের কারণে গত কয়েক বছর খুব একটা খেলতে পারেননি এই পেসার। তবে সাম্প্রতিক সময় চোট কাটিয়ে ফিরে বল হাতে সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়েছেন তিনি। তার মতো বিধ্বংসী বোলারের দলের সঙ্গে যোগ দেওয়াটা ইংল্যান্ডের জন্য দারুণ ব্যাপার। অধিনায়ক বাটলার তো আর এমনি বলেননি, “চ্যাম্পিয়ন বোলারের ফেরা। শিরোপা ধরে রাখার পথে এটা অনুপ্রেরণার।”

বাটলার নিজেও তো আছেন সেরা ফর্মে। রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে আইপিএল মাতিয়েছেন। কুড়ি ওভারের বিশ্বকাপে নামার আগে বিশ্বের জমজমাট প্রতিযোগিতায় নিজেকে ঝালিয়ে নিয়েছেন তিনি। ফর্মে আছেন অলরাউন্ডার স্যাম কারেনও। তবে মঈন আলীর ফর্মহীনতা ও আর্চারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দীর্ঘ সময়ের অনুপস্থিতি দুশ্চিন্তায় রাখছে ইংলিশদের।

তবে ইংল্যান্ডের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স, বিশেষ করে আইপিএলে দলটির সেরা ক্রিকেটাররা যেভাবে নিজেদের মেলে ধরেছেন, তাতে শিরোপা ধরে রাখার মিশনে সঠিক পথেই আছে তারা।

একনজরে

অধিনায়ক: জস বাটলার।

কোচ: ম্যাথু মট।

ডাকনাম: থ্রি লায়ন্স।

র‌্যাংকিং: ৩।

বিশ্বকাপে অংশ নিয়েছে: ৮ বার (২০০৭, ২০০৯, ২০১০, ২০১২, ২০১৪, ২০১৬, ২০২১, ২০২২)।

বিশ্বকাপে সেরা সাফল্য: চ্যাম্পিয়ন- ২০১০ ও ২০২২। রানার্স-আপ-২০১৬।

আগের বিশ্বকাপের পারফরম্যান্স

ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম দল হিসেবে একই সঙ্গে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কীর্তি গড়ে ইংল্যান্ড। ২০১৯ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপের শিরোপা জেতা ইংলিশরা ২০২২ সালে জেতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ট্রফি। সংযুক্ত আরব আমিরাতের ফাইনালে পাকিস্তানকে হতাশ করে শিরোপা আনন্দ করে জস বাটলাররা।

ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ সূচি

৪ জুন: স্কটল্যান্ড (বার্বাডোস), রাত ৮-৩০ মিনিট

৮ জুন: অস্ট্রেলিয়া (বার্বাডোস), রাত ১১টা

১৩ জুন: ওমান (অ্যান্টিগা), রাত ১টা

১৫ জুন: নামিবিয়া (অ্যান্টিগা), রাত ১১টা

নজরে থাকবেন

জস বাটলার

তার নেতৃত্বেই ২০২২ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা জিতেছিল ইংল্যান্ড। যদিও ২০২৩ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপে চরম হতাশ করেছেন জস বাটলার। এরপরও ইংল্যান্ডের নেতৃত্বে আছেন এই উইকেটকিপার ব্যাটার। 

তার নেতৃত্বেই শিরোপা ধরে রাখার মিশনে নামতে যাচ্ছে ইংল্যান্ড। ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সে চেনা ছন্দেই আছেন বাটলার। আইপিএলে রাজস্থান রয়্যালসের জার্সিতে তাণ্ডব চালিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে নামতে যাচ্ছেন ইংলিশ অধিনায়ক।

স্যাম কারেন

পাঞ্জাব কিংসের নিয়মিত অধিনায়ক শিখর ধাওয়ান। কিন্তু তিনি কাঁধে চোট পাওয়ার পর দলটির নেতৃত্ব সামলেছেন স্যাম কারেন। পাঞ্জাবকে প্লে-অফে তুলতে পারেননি, তবে ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সে আলো ছড়িয়েছেন। 

ব্যাট-বলে সমান তালে পারফর্ম করেছেন ইংলিশ অলরাউন্ডার। দারুণ ছন্দ নিয়েই তিনি নামতে যাচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে।

শক্তি

* ব্যাটিং লাইন-আপে আছেন সেরা সব খেলোয়াড়

* জস বাটলার, স্যাম কারেন ও ফিল সল্ট আছেন দুর্দান্ত ফর্মে।

* চোট কাটিয়ে বিশ্বকাপ দলে জোফরা আর্চারের যুক্ত হওয়া তাদের জন্য সুখবর।

* দলে আছেন দারুণ কিছু অলরাউন্ডার।

দুর্বলতা

* জোফরা আর্চার ফিরলেও পর্যাপ্ত ম্যাচ খেলার সুযোগ পাননি।

* নড়বড়ে মিডল অর্ডারে। টপ অর্ডারের ধস ঠেকানোর মতো খেলোয়াড় নেই।

* বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়ে মাঠে নামবে। প্রত্যাশার চাপ পারফরম্যান্সে প্রভাব ফেলতে পারে।

* বেন স্টোকসের অভিজ্ঞতা নিশ্চিতভাবেই মিস করবে।

ভবিষ্যদ্বাণী: চ্যাম্পিয়ন।

ইংল্যান্ড স্কোয়াড: জস বাটলার (অধিনায়ক), মঈন আলী, জোফরা আর্চার, জনি বেয়ারস্টো, হ্যারি ব্রুক, স্যাম কারেন, বেন ডাকেট, টম হার্টলি, উইল জ্যাকস, ক্রিস জর্ডান, লিয়ান লিভিংস্টোন, আদিল রশিদ, ফিল সল্ট, রিস টপলি, মার্ক উড।

ইত্তেফাক/জেডএইচ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন