মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

খেলার সময় ঝগড়া, এক শিশু আরেক শিশুকে হত্যার অভিযোগ 

আপডেট : ২২ মে ২০২৪, ১১:০৮

খেলার সময় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই শিশুর মধ্যে ঝগড়া হয়। ঘটনার জেরে ৬ বছর বয়সী তরী নামে এক শিশুকে পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে ১২ বছর বয়সী আরেক শিশুর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত শিশুটিসহ তার মাকে আটক করেছে পুলিশ। 

মঙ্গলবার (২১ মে) দুপুরের দিকে ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলার শোল্লা ইউনিয়নের চন্দ্রপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। ওইদিন বিকেলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে নিহত শিশুর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। 

নিহত তরি বাড়ৈই (৬) ওই এলাকার সুমন বাড়ৈই’র একমাত্র মেয়ে। স্থানীয় দুর্গা মন্দিরে শিশু শ্রেণিতে পড়ত সে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত প্রতিবেশী আবু সাদ (১২) কে ও তার মা শিমুকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।

নিহতের মা বকুল জানান, তরি মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হয় স্থানীয়দের সহায়তায় অনেক খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে প্রতিবেশি সাদদের বাড়ির পাশের কলাগাছের ঝোঁপের নিচু জায়গায় মাটিতে অর্ধ পুঁতে রাখা অচেতন অবস্থায় মেয়েকে দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা সাদ ও তার মাকে আটক করে তরিকে দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

প্রাথমিক তদন্তের বরাত দিয়ে নবাবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ শাহ্ জালাল ইত্তেফাককে জানান, খেলা করতে গিয়ে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে ওই শিশু দুইটির মধ্যে ঝগড়া হয়। ঝগড়ার এক পর্যায়ে সাদ প্রথমে তরিকে একাধিক চড় থাপ্পড় মারে। পরে লাঠি দিয়ে ওর গালে ও মাথায় এলোপাতাড়ি আঘাত করলে তরির মৃত্যু হয়।

এ কর্মকর্তা জানান, এ ঘটনায় সাদকে আটক করা হয়েছে। সে তরিকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে লাশ গুম করার জন্য মাটিতে পুঁতে রাখতে চেয়েছিল বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে। লাশ গুম ও ঘটনার সঙ্গে সাদের মা জড়িত আছে সন্দেহে তাকেও আটক করে পুলিশে সোর্পদ করেছে এলাকাবাসী। তাকে থানায় আটক রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। বুধবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকার স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ (মিটফোর্ড) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। এ ঘটনায় থানায় একটি  হত্যামামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

 

 

ইত্তেফাক/এসজেড