বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

জবি ছাত্রী অবন্তিকার মামলা: বিচার পাওয়া নিয়ে মায়ের শঙ্কা

আপডেট : ০৩ জুন ২০২৪, ২০:২৭

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) আইন বিভাগের মাস্টার্সের মেধাবী ছাত্রী ফাইরুজ সাদাফ অবন্তিকার আত্মহত্যার প্ররোচণার অভিযোগে দায়ের করা মামলার দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি নেই বলে অভিযোগ করেন তার মা তাহ্মিনা শবনম। 

এদিকে মামলার আসামি জবির সহকারী প্রক্টর কাজী দ্বীন ইসলাম কারাগার থেকে জামিনে বের হয়ে মামলাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে প্রভাব বিস্তার করছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি। সোমবার কুমিল্লা নগরীর বাগিচাগাঁও এলাকায় সংবাদ সম্মেলন করে অবন্তিকার মা তাহ্মিনা শবনম সাংবাদিকদের কাছে এমন অভিযোগ করেন। এ সময় তিনি প্রধানমন্ত্রীর কাছে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার দাবি করেন।


 
তাহ্মিনা শবনম সাংবাদিকদের আরও বলেন, এ ঘটনায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের গঠিত তদন্ত কমিটি ৭ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেওয়ার কথা থাকলেও গত আড়াই মাসেও তা দেয়নি। এতে এ মামলার সুষ্ঠু বিচার পাওয়া নিয়ে তিনি শঙ্কা প্রকাশ করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তাসহ ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন অবন্তিকার আত্মহত্যা মামলার বিষয়ে উদাসীন, তারা দৃশ্যত কোনো কাজ করছে না। বক্তব্য রাখার সময় তার চোখ বেয়ে পানি পড়ছিল। 

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত অবন্তিকার আত্মহত্যা মামলার আইনজীবী মাসুদ সালাহউদ্দিন বলেন, আইনের যথাযথ ধারায় মামলাটি রেকর্ড হয়নি। মামলাটি এখন ডিপ ফ্রিজে আছে। আমরা চাই মামলাটি গুরুত্ব সহকারে তদন্ত হোক।

উল্লেখ্য, গত ১৫ মার্চ রাতে প্রক্টর দীন ইসলাম ও সহপাঠী আম্মানকে দায়ী করে চিরকুট লিখে নিজ বাসায় ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন ফাইরুজ সাদাফ অবন্তিকা। পরে আত্মহত্যার প্ররোচণার অভিযোগে তার মা তাহ্মিনা শবনম বাদী হয়ে কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। এতে অবন্তিকার সহপাঠী আম্মান সিদ্দিকী ও সহকারী প্রক্টর দ্বীন ইসলামকে আসামি করা হয়েছে।

ইত্তেফাক/পিও