বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

লোকসভায় রাহুল গান্ধীর উত্থান নিয়ে প্রিয়াঙ্কার আবেগঘন স্ট্যাটাস

আপডেট : ০৬ জুন ২০২৪, ১৩:২৩

নির্বাচনের আগে মোদি যেখানে ঘোষণা দিয়েছিলেন- এবার চারশ আসনে জিতবে তার দল; সেখানে ভোটের ফলাফলে দেখা যাচ্ছে এবার আর সংসদের নিম্নকক্ষে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাচ্ছে না বিজেপি। মোদি ম্যাজিকে ধস নামানোর কারিগর আর কেউ নন, রাহুল গান্ধী। আর তাই বুধবার ভাই রাহুলকে নিয়ে নিজের এক্স হ্যান্ডেলে আবেগঘন একটি পোস্ট দিলেন প্রিয়াঙ্কা। 

প্রিয়াঙ্কা লেখেন, ‘যে কেউ যা কিছু বলুক না কেন তুমি নিজের জায়গায় স্থির ছিলে। সকলে সন্দেহ প্রকাশ করলেও নিজের প্রতি আস্থা হারাওনি। মিথ্যার অপ্রতিরোধ্য প্রচার সত্ত্বেও সত্যের জন্য লড়াই থামাওনি। রাগ এবং ঘৃণাকে নিজের মধ্যে স্থান দাওনি। ভালোবাসা, সত্য এবং দয়ায় সকলের মন জয় করেছ। যারা তোমাকে দেখতে পারেনি, তারা এখন দেখছে। কেউ কেউ সবসময় লক্ষ্য রাখছে এবং জানে তুমি সাহসী। তোমার বোন হতে পেরে আমি গর্বিত।’

এবার কংগ্রেস সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়গে এবং রাহুল গান্ধীর যৌথ লড়াইয়ের ফলেই ৯৯টি আসনে জয়লাভ করেছে কংগ্রেস। ২০১৯ লোকসভা ভোটে যেখানে ৫২টি আসন পেয়েছিল সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়িয়েছে দলটি। এতে চাঙ্গা হয়েছে কর্মীদের মনোভাব। এক্সিট পোলকে কলা দেখিয়ে কংগ্রেসের জোট ইন্ডিয়া জিতে নিয়েছে ২৩২টি আসন, যা বিজেপির একক সংখ্যাগরিষ্ঠতার পথে বড় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ইন্ডিয়া জোটের নেতা প্রিয়াঙ্কা গান্ধী, রাহুল গান্ধী

লোকসভা নির্বাচনে অনেকেই আশা করেছিলেন যে প্রিয়াঙ্কা গান্ধী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। কিন্তু যখন তিনি তা করেননি তখন নানারকম প্রশ্ন উঠেছিল। তার প্রতিক্রিয়ায় প্রিয়াঙ্কা বেশ কয়েকটি সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, এটি তার একটি সচেতন সিদ্ধান্ত। যদি তিনি এবং রাহুল উভয়েই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন তবে তারা একটি নির্বাচনি এলাকায় প্রচারণার সাথে আবদ্ধ হবেন। কিন্তু তারা দুই ভাইবোনই একসঙ্গে প্রচারণায় আবদ্ধ হতে চাননি। তাই নিজেকে সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতেই তিনি নিজেকে মুক্ত রাখেন। 

এবারের নির্বাচনে একজন প্রতিবাদী বক্তা হিসেবে প্রিয়াঙ্কার আবির্ভাব ঘটে। কথা দিয়ে তিনি দর্শকদের মোহিত করেন এবং তাদের সাথে মনের ভাব আদান প্রদান করেন। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অভিযোগের পাল্টা উত্তরও দেন।

এবারের নির্বাচনে কংগ্রেস ৫৪৩টি আসনের মধ্যে ৩২৮টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে, যা ছিল সর্বকালের সর্বনিম্ন, বাকি ২১৫টি আসন মিত্রদের জন্য ছেড়ে দেয়। মল্লিকার্জুন খাড়গের নেতৃত্বাধীন কংগ্রেসের এমন বড় সিদ্ধান্তের পেছনেও বড় ভূমিকা রাখেন রাহুল-প্রিয়াঙ্কা। এই সিদ্ধান্তেও উপকার পেয়েছে কংগ্রেস।

ইত্তেফাক/এএইচপি