শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

ইবি ছাত্রকে র‍্যাগিং, কর্তৃপক্ষের গৃহীত পদক্ষেপ জানতে চায় মানবাধিকার কমিশন

আপডেট : ০৬ জুন ২০২৪, ১৫:২৬

গত ফেব্রুয়ারি মাসে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) লালন শাহ হলের গণরুমে আল-ফিকহ অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগের ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের নবীন শিক্ষার্থী অপু মিয়াকে ডেকে নিয়ে নগ্ন করে র‍্যাগিংয়ের ঘটনায় এবার নড়েচড়ে বসেছে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। এ ঘটনায় গঠিত কমিটির তদন্ত প্রতিবেদনের সুপারিশের প্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের উপ-পরিচালক (অভিযোগ ও তদন্ত) ফারজানা নাজনীন দৈনিক ইত্তেফাককে এসকল তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কর্তৃক গৃহীত ব্যবস্থা আগামী ২৯ জুলাইয়ে মধ্যে ইবি রেজিস্ট্রারকে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনে অবহিত করতে বলা হয়েছে। এছাড়া ইবি উপাচার্যের অবগতি ও কার্যার্থে উপাচার্যের একান্ত সচিবকেও এ সংক্রান্ত একটি অফিস আদেশের অনুলিপি ডাক ও ইমেইল যোগে পাঠানো হয়েছে। 

তিনি আরও বলেন, বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পরপরই জাতীয় মানবাধিকার কমিশন স্ব প্রনোদিত হয়ে বিষয়টি আমলে নেয়। আমাদের সর্বশেষ বেঞ্চে এটা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আলোচনায় বেঞ্চের সিদ্ধান্ত হচ্ছে, যে সুপারিশ হল তদন্ত কমিটি করেছে যদিও অপরাধের তুলনায় শাস্তির সুপারিশ পর্যাপ্ত না, এটা ফৌজদারি অপরাধ। তারপরও সুপারিশের আলোকে এ শাস্তি কার্যকর করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ যে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে সেটা আগামী ২৯ জুলাইয়ের মধ্যে মানবাধিকার কমিশনে জানানোর জন্য বলা হয়েছে।মানবাধিকার কমিশন প্রত্যাশা করে তদন্ত কমিটির সুপারিশ দ্রুত কার্যকর করা হবে। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পরবর্তী বেঞ্চে আলোচনা করা হবে। 

এবিষয়ে উপাচার্যের একান্ত সচিব মনিরুজ্জামান মোল্লা বলেন, এখনো মেইল চেক করিনি। এ মুহূর্তে কিছু বলতে পারছি না। বিশ্ববিদ্যালয়ে ঈদের ছুটি শুরু হয়েছে, ক্যাম্পাসও বন্ধ। যদি এ ধরনের মেইল এসে থাকে তাহলে বিষয়টি আমি উপাচার্য স্যারের নজরে আনার চেষ্টা করবো।

এবিষয়ে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এইচ এম আলী হাসানকে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি কল রিসিভ করেননি। পরে তিনি ফোন বন্ধ করে রাখেন।

এর আগে গত ২ জুন হল ও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন ও সুপারিশের আলোকে র‍্যাগিংয়ের ঘটনায় জড়িত, কাফি, সাগর ও উজ্জ্বলসহ তিনজনকে এক বছরের (দুই সেমিস্টার) জন্য সাময়িক বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তবে হল কর্তৃপক্ষ কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটি অভিযুক্ত কাফিকে ২ বছর এবং সাগর ও উজ্জ্বলসহ দুজনকে এক বছরের (দুই সেমিস্টার) জন্য বহিষ্কারের সুপারিশ করে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছিল সেসময়। 

ইত্তেফাক/এআই