শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

‘রোড সেফটি পোস্টার ও স্লোগান কনটেস্ট -২০২৪’ এর পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত

আপডেট : ০৭ জুন ২০২৪, ০১:১১

ঢাকা রোড ট্রাফিক সেফটি প্রজেক্ট এর ‘রোড সেফটি পোস্টার ও স্লোগান কনটেস্ট -২০২৪’ এর পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমান বলেন, ট্রাফিক আইন মানার ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। তারা নিজেরা ট্রাফিক আইন মানবে ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সহপাঠীদের বলবে ট্রাফিক আইন মেনে চলতে।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন ২০২৪) রাজধানীর বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। রাজধানীর ১৬টি স্কুল ও ১১টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সড়কের নিরাপত্তা নিয়ে আয়োজিত এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ  করে। পোস্টার প্রতিযোগিতায় মোট ২৩৮ টি পোস্টার ও স্লোগান প্রতিযোগিতায় মোট ৮৪ টি স্লোগানের মধ্য হতে বিজয়ীদের নির্বাচন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন জাইকা-বাংলাদেশের মুখ্য প্রতিনিধি তোমোহিদে ইচিগুচি ও ডিআরএসপি প্রকল্পের প্রজেক্ট লিডার ইয়োশিহিসা আসাদা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) ও ডিআরএসপি প্রকল্প প্রধান মো. মুনিবুর রহমান বিপিএম-সেবা। 

জাইকার কারিগরি সহায়তায় ডিএমপি ঢাকা সড়ক নিরাপত্তা প্রকল্পটি (ডিআরএসপি) হাতে নেয়। অনুষ্ঠানে ডিআরএসপি'র প্রজেক্ট ম্যানেজার ও ডিএমপির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক-অ্যাডমিন এন্ড রিসার্চ) মো. জাহাঙ্গীর আলম প্রকল্পের সার্বিক বিষয় এবং সড়ক নিরাপত্তা পোস্টার ও স্লোগান প্রতিযোগিতার কর্মকান্ড উপস্থাপন করেন। 

ঢাকায় সড়ক নিরাপত্তা বাড়ানো এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য। এর অংশ হিসেবে ডিএমপি ও জাইকা জনসচেতনতা বৃদ্ধি ও নগরবাসীকে সম্পৃক্ত করতে পোস্টার ও স্লোগান প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। 

সড়ক নিরাপত্তা এবং দায়িত্বশীল আচরণের গুরুত্ব তুলে ধরে পোস্টার ও স্লোগান তৈরিতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয় যা সড়ক নিরাপত্তায় সচেতনতার তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

এই প্রতিযোগিতায় ছাত্র-ছাত্রীদের পোস্টার ও স্লোগান তৈরিতে সৃজনশীলতা এবং সড়ক নিরাপত্তার প্রতি তাদের অঙ্গীকার প্রকাশ পায়। তাদের প্রচেষ্টাকে স্বীকৃতি দিতে ১০টি স্লোগান ও ১০টি পোস্টারকে ডিএমপি কমিশনার অ্যাওয়ার্ড, ডিএমপি অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) অ্যাওয়ার্ড, জাইকা অ্যাওয়ার্ড, জেট্রো অ্যাওয়ার্ড, জেসিআইএডি-নিপ্পন সিগন্যাল অ্যাওয়ার্ড, জেসিআইএডি-টেককেন কর্পোরেশন অ্যাওয়ার্ড এবং ডিএসআরপি অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়।

 

পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমান বলেন, এই প্রকল্পটি সবার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ঢাকা শহরে প্রধান সমস্যা হলো ট্রাফিক। সড়কের নিরাপত্তা না থাকায় অনেক মানুষ পঙ্গুত্ব ও মৃত্যুবরণ করছে। তাই আমাদের সচেতন হতে হবে।

 শুধুমাত্র পোস্টার-স্লোগানের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে না শিক্ষার্থীরা। তারা নিজ নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সবাইকে ট্রাফিক আইন মানার বিষয়ে সচেতন করে তুলবে।

 

ডিআরএসপি প্রকল্প প্রধান ও ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মনিবুর রহমান বিপিএম-সেবা বলেন, জাইকার কারিগরি সহযোগিতায় আমাদের প্রকল্পটি পরিচালিত হচ্ছে। প্রতি বছর মে-জুন মাসে এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকার প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে শিক্ষার্থীদের সচেতন করা এ প্রকল্পের অন্যতম কাজ।

ইত্তেফাক/এনএন

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন