ঢাকা সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬
৩০ °সে


সেই নবজাতককে দত্তক নিতে হাসপাতালে ভিড়, পুলিশ মোতায়েন

সেই নবজাতককে দত্তক নিতে হাসপাতালে ভিড়, পুলিশ মোতায়েন
সেই নবজাতক। ছবি: ফেসবুক

ফুটফুটে নবজাতক। বুধবার পর্যন্ত বয়স আনুমানিক তিন দিন। হাত-পা ছুড়ে অবাক দৃষ্টিতে চারদিকে দেখছিল। ঢাকা শিশু হাসপাতালের ৩০১ নম্বর কেবিনে চিকিৎসাধীন এই নবজাতককে ঘিরে ছিল উৎসুক মানুষের ভীড়। মঙ্গলবার সকালে হাসপাতালের একটি টয়লেট থেকে ১ দিন বয়সের এই নবজাতককে উদ্ধার করে কেবিনে ভর্তি করা হয়। নিরাপত্তা ও অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সেখানো মোতায়েন করা হয় পুলিশ। তবে হাসপাতালের চিকিৎসকদের মমতাময়ী চিকিৎসা সেবা চালিয়ে যাচ্ছেন ওই কন্যা নবজাতককে ঘিরে।

ঢাকা শিশু হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাঃ আবু তৈয়ব বলেন, কন্যা নবজাতকটিকে আমরা কেবিনে রেখে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছি। নবজাতক এখন পর্যন্ত সুস্থ আছে। শেরেবাংলা নগর থানার ওসি জানে আলম মুন্সী বলেন, নবজাতকটি এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। নিয়ম অনুযায়ী চিকিৎসা শেষে আমাদের কাছে হস্তান্তর করা হবে। কিন্তু আমাদের কাছে হস্তান্তর করার আগেই আমরা চেষ্টা করছি তার অভিভাবককে খুঁজে বের করতে। হাসপাতাল ও আশপাশের সিসি ক্যামেরা ভিডিও ফুটেজ দেখে শিশুটিকে কে বা কারা ফেলে গেছেন সেই রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা করছে পুলিশ। যদি অভিভাবককে পাই তাহলে তাদের হাতে নবজাতককে তুলে দেবো। তারপরও না পেলে সংবাদ সম্মেলন করে বিষয়টি জানানো হবে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: নিম্নমানের খাদ্যপণ্য: সাতটির লাইসেন্স বাতিল, ১৮টি স্থগিত

তিনি আরও বলেন, সেদিনের রাত থেকেই শিশুটিকে দেখতে ও দত্তক নিতে হাসপাতালে অনেকেই ভিড় করছেন। এতে শিশুর স্বাস্থ্যের অবনতি হওয়ার আশঙ্কায় শিশু হাসপাতালে তার কেবিনের বাইরে পুলিশ মোতায়েন করেছি। চিকিৎসক ও তদন্ত সংশ্লিষ্ট ছাড়া কাউকে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না।

শেরেবাংলা থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, এ ঘটনায় ওই হাসপাতলের নার্স ও কর্মচারীদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এছাড়াও হাসপাতালে থাকা সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করে তা পর্যালোচনা চলছে।

পুলিশ জানায়, নবাজাতকটির বাবা-মাকে খুঁজতে মঙ্গলবার রাতেই ডিসি-তেজগাঁও-ডিএমপি ফেসবুক পেজে ছবিসহ একটি পোস্ট দেওয়া হয়। এরপর থেকে অনেক ফোন আসছে পুলিশের কাছে। ফোন করা ব্যক্তিরা শিশুটিকে দত্তক নেওয়ার জন্য জানিয়েছেন। অনেকে ফেসবুক পোস্টের নিচেই তাদের দত্তক নেয়ার জন্য নাম-ঠিকানা ও সিরিয়াল দিয়ে রাখছেন। পরবর্তীতে শিশু আইনে আদালত যা সিদ্ধান্ত দেবে পুলিশ সেটা মেনে কাজ করবে পুলিশ। ফেসবুক পেজে লেখা হয়েছে, যদি কোন সহৃদয়বান ব্যক্তি শিশুটির মা-বাবা/পরিচিত জনকে চিনে থাকেন বা তাদের সম্পর্কে কোন তথ্য জেনে থাকেন, নিচে উল্লেখিত মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে-ওসি (শেরেবাংলানগর থানা): ০১৭১৩৩৯৮৩৩৫, এসি (তেজগাঁও জোন): ০১৭১৩৩৭৩১৭৮।

ইত্তেফাক/বিএএফ

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২২ জুলাই, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন