ঢাকা রবিবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২০, ১৩ মাঘ ১৪২৭
১৪ °সে

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে অবৈধ স্থাপনা ধ্বংস প্রশ্নে রুল

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে অবৈধ স্থাপনা ধ্বংস প্রশ্নে রুল
কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত। ফাইল ছবি

পরিবেশগত ছাড়পত্র ও সুয়ারেজ প্লান্ট ছাড়া কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা ধ্বংস ও অপসারণে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

বাংলাদেশ পরিবেশবিদ আইনজীবী (বেলা) সমিতির আনা এক রিটের শুনানি নিয়ে বিচারপতি এম, ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমান সমন্বেেয় গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ আজ সোমবার এ আদেশ দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন মিনহাজুল হক চৌধুরী, তাকে সহযোগিতা করেন সাঈদ আহমেদ কবির। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি এটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার।

আইনজীবী সাঈদ আহমেদ কবির সাংবাদিকদের জানান, কক্সবাজার জেলা সদর, মহেশখালী, টেকনাফ, রামু, চকোরিয়া, উখিয়া ও পেকুয়া উপজেলায় উন্নয়ন বহির্ভূত ও সংরক্ষিত এলাকায় অবস্থিত পাহাড়, টিলা ও বনাঞ্চল দখল থেকে রক্ষায় বিবাদীদের ব্যর্থতা কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না- জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত।

তিনি জানান, একই সঙ্গে ১২০ কিলোমিটার সমুদ্র সৈকতের অবৈধ দখল, নির্মাণ, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান কর্তৃক দূষণ, পৌর বর্জ্য ও ওয়ান টাইম ইউজ প্লাষ্টিকের যত্র তত্র ফেলা বন্ধ করতে বিবাদীদের ব্যর্থতাকে কেন বৈআইনি ঘোষণা করা হবে না- তাও জানতে চেয়েছেন আদালত। আগামী তিন মাসের মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, পরিবেশ সচিব, বিমান ও পর্যটন সচিব, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত সচিব, জনপ্রশাসন সচিব, পানি সম্পদ সচিবসহ ২২ জনকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আরও পড়ুন: চলতি মাসেই পুরান ঢাকায় চক্রাকার বাস: সাঈদ খোকন

এর আগে কক্সবাজারের সাতটি উপজেলায় অবৈধ হোটেল-মোটেল নির্মাণ এবং পরিবেশ দূষণ নিয়ে জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশিত বিভিন্ন প্রতিবেদন সংযুক্ত করে জনস্বার্থে হাইকোর্টে রিটটি দায়ের করা হয়। বাসস

ইত্তেফাক/কেকে

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
icmab
facebook-recent-activity
prayer-time
২৬ জানুয়ারি, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন