ঢাবি সাংবাদিক সমিতির সম্পাদকের উপর হামলা, সুষ্ঠু বিচারের দাবি

ঢাবি সাংবাদিক সমিতির সম্পাদকের উপর হামলা, সুষ্ঠু বিচারের দাবি
আহত ঢাবি সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ইমরান হোসেন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির (ডুজা) সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ইমরান হোসেনর উপর হামলার প্রতিবাদে নিন্দা জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসসি ভিত্তিক সংগঠনগুলো। এ ছাড়াও ছাত্রলীগের পক্ষ থেকেও এ হামলার বিচার চেয়ে নিন্দা জানানো হয়৷ একই সাথে বিচার চেয়ে বিজ্ঞপ্তি দেয় ছাত্র ইউনিয়ন ও ছাত্রদল। গতকাল রবিবার (৫ আগস্ট) ও আজ সোমবার (৬ আগস্ট) আলাদা আলাদা সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে এ নিন্দা জানায় সংগঠনগুলো।

টিএসসি ভিত্তিক সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ইমরান একজন মেধাবী, সংস্কৃতমনা ও সাহসী সাংবাদিক হিসেবে সকলের নিকট পরিচিত। যিনি গত ১ আগস্ট পবিত্র ঈদুল আযহার দিনে নিজ এলাকায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধির দ্বারা অন্যায়ভাবে হামলার স্বীকার হয়েছেন। তাঁর নিজ এলাকা ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর থানার অন্তর্গত বাঁশবাড়ি ইউনিয়নের গাড়াপাতো গ্রামে কুরবানির মাংসের অংশ সমাজের অসহায়-দুঃস্থদের মাঝে বণ্টনের সময় অনিয়মের আশ্রয় নেয়ার অভিযোগ ওঠে বন্টনকার্যে দায়িত্বরত ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য (মেম্বার) আজিজুর রহমানের বিরুদ্ধে। শনিবার সন্ধ্যায় কুরবানির মাংস বণ্টন শেষে অসহায়-দুঃস্থদের প্রাপ্য অংশ থেকে প্রায় ২০ কেজি মাংস এই আজিজুর রহমান একজন সচ্ছল-স্বাবলম্বী জনপ্রতিনিধি হওয়া স্বত্বেও রেখে দেন পারিশ্রমিক হিসাবে। অসহায়-অসচ্ছল মানুষের হক কুরবানির মাংস আত্মসাৎ করায় সেখানে উপস্থিত ইমরান প্রতিবাদ করলে আজিজুর (মেম্বার) তার দলবল নিয়ে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হামলা চালায়। এতে ইমরান সহ তাঁর ছোট ভাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী আকরাম হোসাইন এবং তাঁর বাবা আহত হয়েছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, আমরা ইতোমধ্যে অবহিত হয়েছি যে, করোনা মহামারির সাধারণ ছুটির মধ্যেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক অসহায় শিক্ষার্থী ও তাঁদের পরিবার স্থানীয় দুষ্কৃতিকারীদের দ্বারা বার বার হামলার স্বীকার হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি ভিত্তিক সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনসমূহের পক্ষ থেকে এ সকল হামলার ঘটনা সহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ইমরানের উপর ন্যক্কারজনক হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। একইসাথে হামলাকারীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক নাজির আহমেদ স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়, এইচ এম ইমরান হোসেনের উপর ঘৃণ্য এই হামলার ঘটনায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পরিবার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জ্ঞাপন করছে এবং সেই সাথে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে উক্ত ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে হামলার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে শাস্তির দাবি জানাচ্ছে।

ছাত্রদলের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম রাকিব ও সদস্য সচিব আমান উল্লাহ আমান স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ইমরান হোসাইন একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে একটি হীন কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ করায় তার উপর হামলা করলে তিনি গুরুতর আহত হন। ছাত্রদলের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে এবং সেই সাথে উক্ত ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে।

এক যৌথ বিবৃতিতে ছাত্র ইউনিয়নের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের সভাপতি সাখাওয়াত ফাহাদ ও সাধারণ সম্পাদক রাগীব নাঈম বলেন, নিজ বাড়ি ঝিনাইদহের মহেশপুর থানার অন্তর্গত বাঁশবাড়ি ইউনিয়নের গাড়াপোতা গ্রামের স্থানীয় মেম্বার কর্তৃক নৃশংসতার শিকার ইমরান ও তার ছোট ভাই আকরাম। তাদের দোষ ছিল তারা অন্যায়ের প্রতিবাদ করেছেন। পবিত্র ঈদের দিন কোরবানির গোশত নিয়েও অনিয়ম হচ্ছে। গ্রামের দুঃখী-দুস্থদের কোরবানির গোশত নিয়ে অনিয়ম করা বৈধতা পায়, যখন হামলাকারী নির্বিঘ্নে চলাচল করে আর সাংবাদিক ইমরান প্রতিবাদ করায় হাসপাতালের বেডে শুয়ে কাতরায়। আমরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই এবং দ্রুততম সময়ে হামলার সঙ্গে যুক্ত মেম্বারকে গ্রেফতার ও শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানাই।

ইত্তেফাক/এএস/আরএ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত