মোবাইল সেবায় ক্ষুব্ধ বিটিআরসি, নজরদারিতে নেমেছে মাঠে

চলবে ছয় মাসব্যাপী ড্রাইভ টেস্ট
মোবাইল সেবায় ক্ষুব্ধ বিটিআরসি, নজরদারিতে নেমেছে মাঠে
ছবি: সংগৃহীত

মোবাইল ফোনের গ্রাহকসেবায় ক্ষুব্ধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসিও। ভয়েস কল, ইন্টারনেটসহ কোনো কিছুই সন্তোষজনক নয়। এখন আর অপারেটরদের কথায় নয়, বিটিআরসি নিজেরাই মাঠে নেমে পরীক্ষা করে দেখবে সেবার মান। দেশের বিভিন্ন এলাকায় ‘ড্রাইভ টেস্ট’ চালাতে গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে মাঠে নেমেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা। ২০ হাজার কিলোমিটারের বেশি এলাকায় এ ‘ড্রাইভ টেস্ট’ পরিচালনা করা হবে। প্রায় ৩০০টি উপজেলায় শুরু হওয়া এই টেস্ট চলবে আগামী জুন পর্যন্ত।

নিয়ন্ত্রক সংস্থার কর্মকর্তারা বলছেন, বিটিআরসিতে লোকবল কম থাকায় এ কার্যক্রমে প্রথমবারের মতো একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে লোকবল ও পরিবহন সরবরাহের জন্যও নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। বিটিআরসির উপ-পরিচালক (গণমাধ্যম) জাকির হোসেন খান ইত্তেফাককে বলেন, যন্ত্রপাতি ব্যবহার করে কলড্রপ, রিসিভ লেভেল, কল সেটআপ টাইম, কল সাকসেস রেটসহ মোবাইল ফোন সেবার গুণগত মানগুলো নজরদারি করে একটি প্রতিবেদন তৈরি করা হবে। বিটিআরসির সেবার মান সূচকের সঙ্গে অপারেটরদের সেবার মান সন্তোষজনক না হলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

বিটিআরসির একাধিক কর্মকর্তা জানান, নিমো ওয়াকার এয়ার, ইনভেক্স টু এবং ইউন্ডক্যাচার নামে তিন ধরনের যন্ত্রপাতি দিয়ে অপারেটরদের সেবার মানগুলো দেখা হচ্ছে।

বিটিআরসি সূত্র জানায়, ঢাকা বিভাগে ৩ হাজার ৩০০ কিলোমিটার, চট্টগ্রাম বিভাগে ১ হাজার ৭০০ কিলোমিটার, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগে ২ হাজার ৫০ কিলোমিটার, সিলেট ও ময়মনসিংহ বিভাগে ২ হাজার ৫০ কিলোমিটার এবং খুলনা বিভাগে ২ হাজার ৫০ কিলোমিটার এলাকায় এই ড্রাইভ টেস্ট হবে।

আরও পড়ুন: ‘মানুষ সেবার পেছনে ছুটবে না, সেবা পৌঁছে যাবে হাতের মুঠোয়’

দেশে ইন্টারনেট গ্রাহকসংখ্যা বাড়লেও গ্রাহকরা প্রায়ই উচ্চমূল্যের পাশাপাশি ইন্টারনেট ধীরগতি, নেটওয়ার্ক সমস্যা, সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া ও ব্যবহারের চেয়ে বেশি টাকা কেটে নেওয়াসহ নানা বিষয়ে অভিযোগ করে আসছে। বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার ইত্তেফাককে বলেছেন, কাঙ্ক্ষিত সেবা না পাওয়ায় মোবাইল অপারেটরদের বিষয়ে গত ১১ মাসে সাড়ে ৫ লাখ অভিযোগ জমা পড়েছে গ্রাহকদের।

মোবাইল ফোন অপারেটরদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব মোবাইল টেলিকম অপারেটরস অব বাংলাদেশের (অ্যামটব) মহাসচিব এস এম ফরহাদ বিটিআরসির উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। তিনি ইত্তেফাককে বলেন, ‘মোবাইল সেবার মান পরীক্ষার জন্য ড্রাইভ টেস্ট নিয়ন্ত্রক সংস্থার একটি রুটিন কাজ। আমরা এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই। তবে তিনি একই সঙ্গে বলেন, আমরা বিটিআরসির কাছে ড্রাইভ টেস্টের মেথড সংক্রান্ত কিছু সুপারিশ করেছিলাম, যেমন গাড়ির গতি, লোকেশন, কলের সময়, উন্নতমানের মোবাইল ফোন ব্যবহার করা ইত্যাদি।’

আশা করি, নিয়ন্ত্রক সংস্থা এবার আমাদের সুপারিশগুলো বিবেচনায় রাখবে। বিটিআরসির হিসাবে গত এক বছরে মোবাইল ফোনের গ্রাহকই বেড়েছে ৪৫ লাখ ৬৫ হাজারের বেশি। গত ডিসেম্বর শেষে দেশে মোবাইল ফোন সংযোগ ছিল ১৭ কোটি ১ লাখ ৩৭ হাজার। এর মধ্যে গ্রামীণফোনের ৭ কোটি ৯০ লাখ ৩৭ হাজার, রবির ৫ কোটি ৯ লাখ ১ হাজার, বাংলালিংকের ৩ কোটি ৫২৩ লাখ ৭২ হাজার ও টেলিটকের ৪৯ লাখ ২৭ হাজার।

ইত্তেফাক/এসআই

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x