ঢাকা শুক্রবার, ০৫ জুন ২০২০, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
৩১ °সে

সওজের যাত্রী ছাউনিতে ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট, বিক্রি হচ্ছে পার্টস

সওজের যাত্রী ছাউনিতে ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট, বিক্রি হচ্ছে পার্টস
রাউজানে দখলের পর যাত্রী ছাউনিটি এখন ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট ও পার্টসের দোকান। ছবি: ইত্তেফাক

রাউজানে চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়ক সংলগ্ন পাহাড়তলী চৌহমুনিতে সড়ক ও জনপদের (সওজ) জায়গার ওপর নির্মিত যাত্রী ছাউনিটি অবৈধ দখলদারের কবলে পড়ে এখন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। তবে এটি উদ্ধারে নেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তৎপরতা। যাত্রী ছাউনিটি উদ্ধারের দাবি জানিয়েছেন যাত্রী, পথচারী, শিক্ষার্থীসহ অনেকেই।

সরেজমিনে, গত ২০ ফেব্রুয়ারি বিকেলে পাহাড়তলী চৌহমুনি বাজারে যাত্রী ছাউনির কোনো অস্তিত্বই পাওয়া যায়নি। বর্তমানে সেখানে দেখা গেলো ‘মেসার্স শাহা জালাল অটো পার্টস ও স্বপ্নের হাসি ওয়েডিং এন্ড ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট’ নামের দুটি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান।

স্থানীয়রা জানালেন, প্রায় ১৮ বছর আগে এখানে যাত্রী ছাউনি নির্মাণ করা হয়েছিল। প্রায় ১০ বছর আগে যাত্রী ছাউনিটি অবৈধভাবে দখলে নিয়ে দোকান নির্মাণ করেন স্থানীয় আব্দুল গফুর নামে এক ব্যক্তি। পরে সেটি তিনি ভাড়া দেন।

অবৈধ দখলদার আবদুল গফুরের জামাতা জামশেদ জানান, যাত্রী ছাউনিটি তার শ্বশুর আব্দুল গফুর ইজারা নিয়েছেন। তিনি মারা গেছেন। ছেলেরাও বিদেশে থাকে। তিনি দোকানের ভাড়া দেখভাল করেন।

এই বিষয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও পাহাড়তলী চৌহমুনি ব্যবসায় কল্যাণ সমিতির সভাপতি রোকন উদ্দিন দৈনিক ইত্তেফাককে জানান, যাত্রী ছাউনিটি গফুর মিয়া দখলে নিলে স্থানীয় ব্যবসায়ীসহ যাত্রীদের অনেকেই উচ্ছেদের দাবি জানিয়েছিল। আমি এই বিষয়ে সওজের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। তারা জায়গাটি উদ্ধার করে দিলে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে যাত্রী ছাউনি তৈরি করে দেবো।

আরও পড়ুন: আসামিদের রায় কার্যকর দেখতে চান রুপার মা

এই বিষয়ে চট্টগ্রাম সওজের নির্বাহী প্রকৌশলী জুলফিকার আহমেদ দৈনিক ইত্তেফাককে বলেন, আমরা ইজারা দেইনি। কেউ যদি সওজের জায়গা দখল করে থাকেন, আমরা উচ্ছেদের ব্যবস্থা নেবো।

নতুন যাত্রী ছাউনি নির্মাণের দাবি করে অনেকেই জানালেন, উপজেলার এই জনগুরুত্বপূর্ণ এলাকা পাহাড়তলি চৌহমুনির পূর্বদিকে রয়েছে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট), চট্টগ্রাম তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র, ইমাম গাজ্জালী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, দক্ষিণে ঐতিহাসিক মহামুনি বিহার, উত্তরে আশরাফিয়া দরগাহসহ নানা গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা। এই পথে প্রতিদিন নানা পেশার লক্ষাধিক যাত্রী নিয়মিত যাতায়াত করেন। তাই এই জনগুরুত্বপূর্ণ এলাকায় নির্মিত যাত্রী ছাউনিটি দখলমুক্ত করে একইস্থানে নতুনভাবে যাত্রী ছাউনি করা হোক।

ইত্তেফাক/এসি

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
০৫ জুন, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন