অবশেষে হিলি স্থলবন্দরে আটকে থাকা চালের খালাস শুরু

অবশেষে হিলি স্থলবন্দরে আটকে থাকা চালের খালাস শুরু
হিলি বন্দরের পানামা পোর্টের ওয়্যারহাউজে ছাড়ের অপেক্ষায় চাল বোঝাই ভারতীয় ট্রাকের সারি। ছবিঃ ইত্তেফাক

দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার হিলি স্থলবন্দরে আমদানি মূল্য জটিলতায় গত ৩ দিন ধরে আটকে থাকা আমদানিকৃত চাল অবশেষে খালাস কার্যক্রম করা হয়েছে।

বন্দরের কাস্টমস কর্তৃপক্ষ সর্বনিম্ন আমদানি মূল্য নির্ধারণ করে দেওয়ায় সোমবার রাত (১১ জানুয়ারি) থেকে এই কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

এরফলে আমদানিকারকেরা তাদের আমদানি করা ভারতীয় চাল বন্দরের পানামা পোর্টের ওয়্যারহাউজ থেকে খালাস করে নিচ্ছেন।

বন্দরের আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান মেসার্স জগদীশ চন্দ্র রায়ের প্রতিনিধি সেরেগুল ইসলাম জানান, তারা ভারত থেকে প্রতি মেট্রিকটন ৩৫৬ ডলারে চাল কিনে আমদানি করছেন। কিন্তু কাস্টমস কর্তৃপক্ষ আমদানি মূল্য ৪২০ ডলার ছাড়া সেই আমদানি করা চালের খালাসের অনুমতি দিচ্ছিল না। এই জটিলতায় বন্দরে গত শনিবার থেকে সোমবার রাত ৯টা পর্যন্ত খালাসের অপেক্ষায় পড়ে ছিল। পরে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ সর্বনিম্ন আমদানি মূল্য ৩৭৫ ডলার নির্ধারণ করে। এই অবস্থায় গতকাল সোমবার রাত ১০টার পর থেকে আটকে থাকা চালের খালাস শুরু হয়েছে। চালের উপর ২৫.৭৫ শতাংশ রাজস্ব পরিশোধ করে খালাস করে নেওয়া হচ্ছে।

জানা যায়, গত কয়েক মাস থেকে দেশের বাজারে চালের দাম বেড়ে যাচ্ছিল। দামের ঊর্ধ্বগতি ঠেকাতে সরকার আবারও ভারত থেকে বেসরকারি খাতে চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নেয়। এর ফলে হিলিসহ দেশের বিভিন্ন এলাকার ২৯ জন আমদানিকারককে ভারত থেকে চাল আমদানির জন্য অনুমতি দেওয়া হয়। গত শনিবার থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে চাল আমদানি শুরু হয়েছে।

ইত্তেফাক/এমএএম

Nogod
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত