যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়াতে ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড

এশিয়াতে সংক্রমণ কোটি ছাড়াল
যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়াতে ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের রেকর্ড
প্রতীকী ছবি।

করোনা মহামারির দ্বিতীয় ঢেউ বেশ জোরেসোরেই শুরু হয়েছে আমেরিকা ও ইউরোপে। বেশ কয়েকটি দেশে করোনা সংক্রমণ কমতে কমতে প্রায় শূন্যের কোটায় চলে এসেছিল। কিন্তু দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হবার পর আবার নতুন করে ব্যাপক হারে লোকজন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়াতেও সংক্রমণ কমছিল বেশ জোর গতিতে। কিন্তু গতকাল এই দেশ দুইটিতে শনাক্তের নতুন রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে শনাক্ত হয়েছে ৮১ হাজার ২১০ জন এবং রাশিয়াতে ১৭ হাজার ৩৪০ জনের দেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে মোট শনাক্ত হয়েছে ৮৭ লাখ এবং মৃত্যু হয়েছে এ পর্যন্ত ২ লাখ ২৯ হাজার জনের। আর রাশিয়াতে মোট শনাক্ত হয়েছে প্রায় ১৫ লাখ রোগী এবং মারা গেছে ২৫ হাজারের বেশি। সারা বিশ্বে এ পর্যন্ত মোট করোনা শনাক্ত ৪ কোটি ২৬ লাখ এবং মোট মৃতের সংখ্যা প্রায় সাড়ে ১১ লাখ।

এদিকে, এশিয়াতে করোনা রোগীর সংখ্যা ১ কোটি পার হয়ে গেছে। এশিয়ার বেশিরভাগ দেশে দ্বিতীয় ঢেউ এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে। ভারতে সবচে বেশি রোগী শনাক্ত হচ্ছে প্রতিদিন। দেশটিতে এরই মধ্যে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৭৮ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। আর মারা গেছে ১ লাখের বেশি মানুষ।

এদিকে, রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকায় সামনের দিনগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রে হাসপাতালে ভর্তির পরিমাণ বাড়বে বলে সতর্ক করেছেন মার্কিন সার্জন জেনারেল জেরোম অ্যাডামস। তার ধারণা, হাসপাতালে রোগীর চাপ বাড়লেও এবার মৃত্যুর সংখ্যা আগের তুলনায় অনেক কম হবে। সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি নিয়ে উত্তর গোলার্ধের দেশগুলোকে সাবধান করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও (ডব্লিউএইচও)। সংস্থাটির প্রধান তেদ্রোস গ্যাব্রিয়েসুস বলেছেন, সামনের কয়েকটি মাস খুবই কঠিন হতে যাচ্ছে। কিছু কিছু দেশ বিপজ্জনক পথে রয়েছে।

আরও পড়ুন: ৩-১ গোলে বার্সার বিপক্ষে রিয়ালের জয়

যুক্তরাষ্ট্রের মধ্য পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে এখন সংক্রমণের ব্যাপক ঊর্ধ্বগতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ওহাইও, নর্থ ডাকোটা, মন্টানা ও উইসকনসিনে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা হুহু করে বাড়ছে। দৈনিক শনাক্তে নতুন রেকর্ড কিংবা রেকর্ডের কাছাকাছি রোগী মিলছে ইলিনয়, ইন্ডিয়ানার মতো কয়েকটি রাজ্যেও। দক্ষিণ-পশ্চিমের রাজ্যগুলোর মধ্যে উটাহ এক দিনে সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত করেছে। রাজ্যটির ২১টি এলাকায় মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। সংক্রমণের এ ঊর্ধ্বগতির মধ্যেও যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে ৩ নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জোর প্রচার অব্যাহত আছে। —বিবিসি

ইত্তেফাক/আরআই

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত