বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৩ মাঘ ১৪২৮
দৈনিক ইত্তেফাক

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পণ্য রপ্তানি বন্ধ করলো ভারত

আপডেট : ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭:১৫

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছে ভারতের ট্রাক ওনার্স এসোসিয়েশন। বাংলাদেশে রপ্তানি পণ্য পাঠানোর ক্ষেত্রে ওজনের গড়মিল করার অভিযোগ এনে রবিবার (৫ ডিসেম্বর) সকাল ১১টা থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে সব ধরণের রপ্তানি পণ্য বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ কারণে বাংলাদেশ থেকেও এই বন্দর দিয়ে ভারতে পণ্য আমদানি বন্ধ রয়েছে। পরে ভারতীয় ট্রাকচালকরা একত্র হয়ে হিলি চেকপোস্টের গেটে ভারত অংশে বিক্ষোভ করে। 

ভারতের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা ট্রাক ওনার্স গ্রুপ এসোসিয়েশনের সভাপতি সুজন ঘোষ জানান, বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানির আগে ওজন স্কেলে পণ্যের ওজন করে রপ্তানি করা হয়। অথচ বাংলাদেশের হিলি স্থলবন্দরের বেসরকারি অপারেটর পানামা হিলি পোর্টের ওয়্যারহাউজে স্থাপিত ওজন স্কেলে ওজন কম হচ্ছে। এর ফলে ভারতের ব্যবসায়ীরা আমাদের ট্রাক চালকদের দোষারোপ করছে এবং ট্রাকের ভাড়া কেটে নিচ্ছে। বিষয়টি ভারতের ব্যবসায়ীদের একাধিকবার জানানোর পরও কোনো সমাধান না হওয়ায় সকাল থেকে হিলি দিয়ে বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানি বন্ধ রাখা হয়েছে।

সুজন ঘোষ আরও জানান, বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানিতে ভারতের ওজন স্কেলের ওজন দিয়েই বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের পণ্য নিতে হবে। আমরা বাংলাদেশের ওজন স্কেলের ওজন মানবো না। সমাধান না হওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ থাকবে।

হিলি স্থলবন্দরের বেসরকারি অপারেটর পানামা হিলি পোর্টের সহ-ব্যবস্থাপক অসিত স্যানাল জানান, হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা ভারত থেকে বিভিন্ন পণ্য আমদানি করেন। এরপর আমদানিকৃত পণ্য পানামা পোর্টের ওজন স্কেলে ওজন করলে প্রতি ট্রাকে ২’শ থেকে ৫০০’শ কেজি পণ্য কম পাওয়া যায়। এর ফলে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হলে তারা ভারতের ব্যবসায়ীদের পণ্য কম পাওয়ার কথা জানান। কিন্তু সেখানকার ব্যবসায়ী ও ট্রাক মালিকেরা একথা মানতে চান না।

বন্দরের আমদানিকারক-রপ্তানিকারক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজার রহমান জানান, ভারতের ব্যবসায়ীরা আমাদের কাছে পণ্য পাঠায়। সেই যখন আমরা পানামার পোর্টের ওজন স্কেলে পরিমাপ করা হয় তখন ওজনে অনেক গড়মিল পাওয়া যায়। আমরা তখন ভারতের ব্যবসায়ীদের কাছে অভিযোগ করি। সে কারণে ভারতের ব্যবসায়ীরা ট্রাক মালিকদের কাছ থেকে পণ্য কম পাওয়ার জন্য ভাড়া কেটে নেন। তারই প্রতিবাদে রবিবার হঠাৎ করে বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানি বন্ধ করে দেয় সে দেশের ট্রাক ওনার্স এসোসিয়েশন। বিষয়টি নিয়ে ভারতের ব্যবসায়ীদের সাথে আলোচনা করে সমাধান করা হবে।

এদিকে হিলি স্থলবন্দরের কাস্টমসের রাজস্ব কর্মকর্তা এ এস এম মাহমুদুল হাসান জানান, সকাল থেকে তিনটি ট্রাক প্রবেশ করার পর হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ রয়েছে। শুনেছি ভারতীয় ট্রাক মালিক ও চালকরা বাংলাদেশে নিদিষ্ট পরিমাপের চেয়ে পণ্য কম আনে। আমাদের ব্যবসায়ীরা এর প্রতিবাদ করায় তারা রপ্তানি পণ্য পরিবহন বন্ধ রেখেছে।

 

ইত্তেফাক/এসআই

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

হিলি বন্দরে আজ আমদানি-রপ্তানি বন্ধ

ভারত থেকে করোনার নেগেটিভ সনদ নিয়ে দেশে ফিরে পজিটিভ

দর্শনা চেকপোস্টে সর্বোচ্চ সতর্কতা, কমেছে যাত্রীর সংখ্যা

রাজস্ব ঘাটতিতে হিলি স্থলবন্দর 

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

ভারতের দেওয়া অত্যাধুনিক অ্যাম্বুলেন্স পেলো চসিক

বড়দিন উপলক্ষে হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ

অভিনব কায়দায় সিগারেটের জাল স্ট্যাম্প আমদানি

হিলি স্থলবন্দরে রাজস্ব ঘাটতি ৩৫ কোটি টাকার বেশি!