মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

অধিনায়কত্ব ছাড়তে চাননি কোহলি

আপডেট : ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৪৪

টি-টোয়েন্টির পর এক দিনের ক্রিকেটের অধিনায়কত্বও হারিয়েছেন বিরাট কোহলি। তাকে সরিয়ে রোহিতকে ওয়ানডে ক্রিকেটে ভারতের নতুন অধিনায়ক হিসেবে ঘোষণা করেছে বিসিসিআই। তবে জানা গেছে অনেকটা জোড় করেই অধিনায়কত্ব ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে কোহলিকে। কারণ তিনি অধিনায়কত্ব ছাড়তে রাজি ছিলেন না। 

ভারতীয় সংবাদ সংস্থা পিটিআই তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, অধিনায়কত্ব ছাড়তে রাজি ছিলেন না কোহলি। তাকে নেতৃত্ব ছাড়ার জন্য ৪৮ ঘণ্টা সময় দিয়েছিল দেশটির ক্রিকেট বোর্ড। এরপরেই বোর্ডের পক্ষ থেকে ঘোষণা করে দেওয়া হয় নতুন অধিনায়কের নাম। যদিও এর আগে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে কোহলিকে নেতৃত্ব থেকে সরানো নিয়ে কোনও কিছুই বলা হয়নি। প্রায় হঠাৎ করেই বোর্ডের পক্ষ থেকে ঘোষণা করে দেওয়া হয়, টি-টোয়েন্টি এবং এক দিনের ক্রিকেটে ভারতকে নেতৃত্ব দেবেন রোহিত।

গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে বিরাট কোহলি জানিয়েছিলেন, বিশ্বকাপের পর আর টি-টোয়েন্টি দলের নেতৃত্বে থাকবেন না তিনি। সেই মোতাবেক বিশ্বকাপ মিশন শেষ হওয়ার পরপরই রোহিতকে নতুন টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক ঘোষণা করে বোর্ড। এর ঠিক এক মাসের মাথায় রোহিতের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে ওয়ানডে দলের নেতৃত্বও। আসন্ন দক্ষিণ আফ্রিকা সফর থেকে ভারতের ওয়ানডে অধিনায়কের দায়িত্বও পালন করবেন রোহিত। এতে প্রায় হঠাৎ করেই সাদা বলের ক্রিকেটের নেতৃত্ব হারালেন কোহলি।

২০২৩ সালে ভারতে অনুষ্ঠিত হবে বিশ্বকাপ। তার আগে নতুন অধিনায়ক যথেষ্ট সময় দিতে চাইছে বোর্ড। সেই জন্যই এখন থেকেই দলের নেতৃত্ব তুলে দেওয়া হল রোহিতের হাতে। কোহলির নেতৃত্বে আইসিসি-র কোনও ট্রফি জিততে পারেনি ভারত। তাঁর নেতৃত্ব নিয়ে দলের ভিতরেই বার বার প্রশ্ন উঠছিল। বোর্ডের কাছে সিনিয়র খেলোয়াড়দের থেকে অভিযোগ এসেছিল বলেও শোনা যায়। এ বারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিতে হয় ভারতকে। বিশ্বকাপের মঞ্চে প্রথম বার হারতে হয় পাকিস্তানের বিরুদ্ধে। কোচ রবি শাস্ত্রীর মেয়াদ শেষ হতেই শেষ হল সাদা বলের ক্রিকেটে কোহলির নেতৃত্বের মেয়াদ।

এ পর্যন্ত এক দিনের ক্রিকেটে ভারতকে ৯৫টি ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছেন কোহলি। জিতেছেন ৬৫টি ম্যাচে। হেরেছেন ২৭টি। দু’টি ম্যাচের কোনও ফল হয়নি, একটি ম্যাচ টাই হয়। মহেন্দ্র সিংহ ধোনির ছায়ায় তৈরি হয়েছিলেন নেতা কোহলি। বিশ্বকাপের দু’বছর আগে সাদা বলের ক্রিকেটে নেতৃত্ব তুলে দেওয়া হয়েছিল তার হাতে। সেই দু’বছরে নিজেকে ঘষে মেজে তৈরি করে নিয়েছিলেন কোহলি। দেশের অন্যতম সফল অধিনায়ক হিসেবে তার নাম যে থাকবে তা নিঃসঙ্কোচে বলা যায়। কিন্তু ট্রফির বাক্স খালিই থেকে গিয়েছে। দ্বিপাক্ষিক সিরিজেই আটকেছিল তার সমস্ত আগ্রাসন।

কোনও দলেই শুধু টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জন্য আলাদা অধিনায়ক দেখা যায়নি। সাদা বলের ক্রিকেটে আলাদা অধিনায়ক রয়েছে অনেক দেশেই। অস্ট্রেলিয়ায় যেমন অ্যারন ফিঞ্চ, ইংল্যান্ডে ইয়ন মর্গ্যান, এক সময় ভারতীয় দলে টেস্ট অধিনায়ক ছিলেন কোহলি, সাদা বলের ক্রিকেটে নেতা ছিলেন ধোনি। বোর্ড যে সাদা বলের ক্রিকেটে আলাদা অধিনায়কের পথে হাঁটবে সেই ইঙ্গিত ছিলই। কিন্তু কোহলি এক দিনের ক্রিকেট থেকে নেতৃত্ব ছাড়তে চাননি বলেই জানা যাচ্ছে। তাই এক প্রকার তাকে সরিয়ে দিতে বাধ্য হল বোর্ড।

ইত্তেফাক/ ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

এশিয়া কাপের ফাইনাল খেলবে বাংলাদেশ!

সাকিব আমাদের সেরা বিকল্প :সুজন

এশিয়া কাপে স্ট্যান্ডবাই সৌম্য-মৃত্যুঞ্জয়

শুধুমাত্র পাকিস্তানের বিপক্ষে নয়, এশিয়া কাপও জিতবে ভারত: পন্টিং

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

ধারাভাষ্য থেকে বিদায় নিলেন চ্যাপেল

শুধুমাত্র পাকিস্তানের বিপক্ষে নয়, এশিয়া কাপও জিতবে ভারত: পন্টিং

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে বাংলাদেশ ‘এ’ দলের ম্যাচ ড্র

‘শূন্যর’ কারণে আইপিএল দলের মালিক চড় মারেন টেইলরকে