মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১১ মাঘ ১৪২৮
দৈনিক ইত্তেফাক

পীরগাছায় মা-মেয়েকে গাছে বেঁধে নির্যাতন 

আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ২২:৪১

রংপুরের পীরগাছায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মা-মেয়েকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় পীরগাছা থানায় ১৭ জনকে আসামি করে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। 

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) দুপুরে মা-মেয়েকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপলোড করা হলে সঙ্গে সঙ্গে ভাইরাল হয়ে যায়।

এর আগে বুধবার (১২ জানুয়ারি) উপজেলার পারুল ইউনিয়নের অনন্দি ধনিরাম গ্রামে মা-মেয়েকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনা ঘটে।নির্যাতনের শিকার মা গোলাপী বেগম ও মেয়ে রাবেয়া বেগম ওই গ্রামের সাজাহান মিয়ার স্ত্রী ও কন্যা।

মামলার এজাহার ও ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, অনন্দি ধনিরাম গ্রামের সুজা মিয়ার ছেলে সাজাহান মিয়ার সঙ্গে প্রতিবেশী গোফ্ফার মিয়ার ছেলে জিয়ারু মিয়ার জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল।

গত বুধবার সকালে আবারও জিয়ারু ও তার লোকজন সাজাহানের জমি দখল করে গাছ ও রাস্তা কাটতে থাকেন। এ সময় সাজাহান ও তার পরিবারের লোকজন বাঁধা দেয়। এতে জিয়ারু ও তার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে সাজাহানের স্ত্রী গোলাপী বেগম ও মেয়ে রাবেয়া বেগমকে গাছে বেঁধে নির্যাতন চালায়। পরে স্থানীয়রা ৯৯৯ লাইনে ফোন দিলে পীরগাছা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আহত অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। তারা এখনও সেখানে চিকিৎসাধীন আছেন।

শুক্রবার দুপুরে মা-মেয়েকে নির্যাতনের ভিডিওটি সামাজিক মাধ্যমে দেওয়া হলে তা ভাইরাল হয়ে যায়।

এ ঘটনার গতকাল বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) সাজাহান বাদী হয়ে পীরগাছা থানায় ১৭ জনকে আসামি করে একটি এজাহার দায়ের করলেও পুলিশ এখন পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি।

সাজাহান মিয়া জানান, প্রতিবেশী জিয়ারু ও তার লোকজন জমি দখলে ব্যর্থ হয়ে আমার স্ত্রী ও মেয়েকে গাছে বেঁধে নির্যাতন চালায়। থানায় অভিযোগ দেওয়া হলেও আসামিরা প্রভাবশালী হওয়ায় এখন পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল খালেক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মা-মেয়েকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের বিষয়টি আমি শুনেছি। ভুক্তভোগীদের বিরুদ্ধে আইগত ব্যবস্থা নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

পীরগাছা থানার ওসি (তদন্ত) শুকুর মিয়ার সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

রংপুরের এএসপি (সি সার্কেল) আশরাফুল আলম বলেন, এ ঘটনায় উভয় পক্ষ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

ইত্তেফাক/এএএম

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

ভিকটিম সার্পোট সেন্টারে তরুণীর মৃত্যু: দুই পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

বাজারের অনিয়ম বন্ধে চলবে অভিযান: রসিক মেয়র

চাঁদাবাজি মামলায় যুবমহিলালীগ নেত্রী গ্রেফতার

‘৫৭ ধারা’য় শিবির নেতার ১০ বছরের কারাদণ্ড

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

মাদারীপুরে হত্যা মামলার রায়ে ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড

রংপুরে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে মিলল তরুণীর লাশ

নানামুখী ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করেছি: আইভী

বিনামূল্যের পাঠ্য বই উঠেছে নিলামে, দাম নিয়েও লুকোচুরি!