বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

রুপার রূপময় ক্যালিগ্রাফি

আপডেট : ১৯ জানুয়ারি ২০২২, ১১:৩১

ছোটবেলা থেকেই আর্টের প্রতি প্রচণ্ড দূর্বলতা ছিল রুপার। বরাবরই আর্টের ক্লাসে সবচেয়ে বেশি নম্বর পেতেন। শিক্ষকদের প্রশংসাও পেতেন। একটা সময় ড্রয়িং সাবজেক্টটাকেই স্কুলের ক্লাস থেকে বাদ দেওয়া হয়। কিন্তু স্কুল থেকে বাদ দিলে কী হবে, আর্টের নেশা যার চোখেমুখে সে কী আর বসে থাকতে পারে! তাই অবসর পেলেই তিনি নিজে নিজে ল্যান্ডস্কেপ, সিস্কেপ, স্কেচ, পোট্রের্টসহ আরও নানান রকম আর্ট করা শুরু করেন তিনি। যদিও পরিবারের  চাপে একটা সময় তাও বাদ দিতে হয়।

উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা শেষ হবার পরে কিছুটা সময় পেয়ে আবারও মাথা চাড়া দিয়ে ওঠে আর্টের ভূত! ২০১৫ সালের শেষের দিকে ইন্টারনেটে দেশ-বিদেশের নামকরা শিল্পীদের ক্যালিগ্রাফি দেখে আবারও আর্টের দিকে ঝুঁকে পড়েন। বিশেষ করে বাংলাদেশের কিংবদন্তি ক্যালিগ্রাফার মাহবুব মুর্শিদের ক্যালিগ্রাফিগুলো তার নজর কাড়ে। তখন থেকেই ফের দৃষ্টিনন্দন সব ক্যালিগ্রাফি করা শুরু করেন তিনি। 

বলছিলাম সম্প্রতি নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত ইন্টারন্যাশনাল সিরাহ্ ক্যালিগ্রাফি পেইন্টিং কম্পিটিশন এন্ড এক্সিবিশনে তৃতীয় স্থান অর্জনকারী বাংলাদেশি তরুণী শারমিন রুপার কথা। শারমিন রুপা ইউনিভার্সিটি অফ ইনফরমেশন টেকনোলজি এন্ড সাইন্সেস থেকে ইংরেজি সাহিত্যে অনার্স ডিগ্রি সম্পন্ন করেছেন। তিনি গত সাত বছর ধরে প্রফেশনালি ক্যালিগ্রাফি করছেন।

আরবি ক্যালিগ্রাফি সব চেয়ে বেশি করা হলেও বিভিন্ন কম্পিটিশন, এক্সিবিশন এবং কাস্টোমারের চাহিদা অনুযায়ী বাংলা ও ইংরেজি ভাষায়ও ক্যালিগ্রাফি করে থাকেন এই শিল্পী। কাজের পাশাপাশি তিনি অংশ নিয়েছেন বেশ কিছু জাতীয় ও আন্তর্জাতিক উৎসবে। ২০২১ সালে অবসকিউর আর্টিস্ট পেইন্টিং কন্টেস্টে ক্যালিগ্রাফি সেগমেন্টে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন। তাছাড়া ৩৫তম ফোবানা কনভেনশনে ক্যালিগ্রাফি পেইন্টিং এক্সিবিশন-২০২১, নিউইয়র্ক ইন্টারন্যাশনাল সিরাহ্ ক্যালিগ্রাফি পেইন্টিং কম্পিটিশন এন্ড এক্সিবিশন, নিউইয়র্ক ক্যালিগ্রাফি পেইন্টিং এক্সিবিশন, ১ম ইন্টারন্যাশনাল কুরআন ক্যালিগ্রাফি ভিজুয়াল এক্সিবিশন, ইন্টারন্যাশনাল উইন্টার আর্ট ফেস্টিভাল, ১০ম জাতীয় ক্যালিগ্রাফি কম্পিটিশন এন্ড এক্সিবিশন, ওআইসি ইয়ুথ ক্যাপিটাল ইন্টারন্যাশনাল ক্যালিগ্রাফি এক্সিবিশন, ফাস্ট আর্ট এক্সিবিশন অফ অবসকিউর আর্টিস্ট অফ বাংলাদেশ, থার্ড ইয়ার সেলিব্রেশন অফ পেন্সিল ফাউন্ডেশন পেইন্টিং এক্সিবিশন, তুর্কি বাংলা ক্যালিগ্রাফি কম্পিটিশন এন্ড এক্সিবিশন, সেলিব্রেটিং অব ইসলামিক ডে অব আর্ট ক্যালিগ্রাফি এন্ড ফটোগ্রাফি এক্সিবিশন সহ বেশকিছু জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্যালিগ্রাফি উৎসব ও প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণ করেছেন।

বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননা লাভ করেছেন তিনি। ২০২০ সালে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করে জাতীয় পর্যায়ের সেরা শিল্পীদের তালিকায় তার নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয় এবং তার একটি পেইন্টিং বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে সংরক্ষণ করা হয়। ক্যালিগ্রাফির শুরুটা শখের বশে হলেও এখন পেশা হিসেবে নিয়েছেন এই শিল্পী। তিনি 'হারফ' নামের একটি ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে নিজের শিল্পকর্ম প্রকাশ করে থাকেন। পেইন্টিং করার পাশাপাশি প্রশিক্ষক হিসেবেও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করছেন তিনি।

ক্যালিগ্রাফি নিয়ে আপনার ভবিষ্যৎ স্বপ্ন কী— এমন প্রশ্নের জবাবে রুপা বলেন, আমার স্বপ্ন সারা বিশ্বের দরবারে ক্যালিগ্রাফি পৌঁছে দেওয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল করা এবং সবার মনে আমার কাজের মাধ্যমে অমর হয়ে থাকা। এ ক্ষেত্রে  অনেকটাই সফলতা পেয়েছেন রুপা। সৃজনশীল এ কাজের জন্য বিভিন্ন পদক ও সম্মাননার পাশাপাশি পাচ্ছেন মানুষের অকৃত্রিম শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা।

ইত্তেফাক/এসটিএম

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

ব্রিটেনের রানির পুরস্কার পেলেন বিদ্যানন্দের কিশোর

মেডিকেলে ৫০তম ইভা, ডেন্টালেও প্রথম

নাদিয়ার সাহসী উদ্যোগ

বাকৃবিতে ‘আলোকসরণির’ ভিন্নধর্মী কার্যক্রম

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

হাত রাঙানোই নুসরাতের স্বপ্নের পেশা

সেই সব বইপ্রেমীদের গল্প

ককপিটের গল্প শোনান ক্যাপ্টেন আব্দুল্লাহ

দ্রুততম বীজ-অঙ্কুরোদগম পদ্ধতি আবিষ্কার করলেন দুই কলেজছাত্র