বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

খেতেই নষ্ট হচ্ছে সবজি

গ্রেফতার আতঙ্কে পুরুষশূন্য সৈয়দপুরের বালাপাড়া গ্রাম

আপডেট : ২৩ জানুয়ারি ২০২২, ১০:৫২

সৈয়দপুর উপজেলার এক গ্রামে গণপিটুনিতে আব্দুর রহমান (৪০) নামের এক ব্যক্তি নিহতের ঘটনায় পার্শ্ববর্তী চিরিরবন্দর থানায় হত্যা মামলার পর পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে গোটা গ্রাম। এই মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটেছে সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউপির পশ্চিম বালাপাড়া গ্রামে। এতে ১৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ১০/১৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। ফলে গ্রেফতার আতঙ্কে পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে পুরো গ্রাম। এদিকে গ্রামে পুরুষ মানুষ না থাকায় খেতের মধ্যে সবজি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। সময় মতো তুলে বাজারে বিক্রি করা যাচ্ছে না।

জানা যায়, গত ১৪ জানুয়ারি গভীর রাতে ঐ এলাকার পশ্চিম বালাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ভ্যানচালক হোসেন আলীর বাড়িতে তিন চোর প্রবেশ করে। এ সময় গ্রামবাসীর গণপিটুনিতে চোর সন্দেহে আটক এক জনের ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয়। পরদিন সকালে হত্যাকাণ্ডের খবর পেয়ে সৈয়দপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এ সময় পুলিশ লাশের সন্ধানে গ্রাম জুড়ে তদন্তে নামে। এক পর্যায়ে চিরিরবন্দর উপজেলার ঠাকুরেরহাট জোতরঘু এলাকায় ডালিয়া ক্যানেলে লাশের সন্ধান পায়। পরে চিরিরবন্দর পুলিশ ক্যানেল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। খবর পেয়ে নিহতের পরিবারের সদস্যরা থানায় গিয়ে মরদেহের পরিচয় শনাক্ত করে। নিহত আব্দুর রহমান পঞ্চগড় জেলা শহরের চানপাড়া এলাকার মফিজ উদ্দিনের ছেলে। এ ঘটনায় চিরিরবন্দর উপজেলার ফতেজংপুর ইউপির গ্রাম পুলিশ আব্দুর রহিম বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলায় নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত মোট ৩০ জনকে আসামি করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ তিন জনকে গ্রেফতার করে দিনাজপুর জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। এদিকে সরেজমিনে ঘটনাস্থল পশ্চিম বালাপাড়া গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, গ্রাম জুড়ে বিরাজ করছে সুনসান নীরবতা। খোঁজাখুঁজির পর এলাকায় দেখা মিলল কয়েকজন বয়স্ক নারী, শিশু ও স্কুল পড়ুয়া তরুণের। তাদের সবার চোখে মুখে রয়েছে আতঙ্কের ছাপ। 

গ্রামের বয়স্ক বাসিন্দা রশিদা বেগম ও পারুল বেগম নামের দুই গৃহবধূ জানান, এই গ্রামের মানুষ সবজি চাষ, অটোরিকশা ও ভ্যান চালানোর পেশায় জড়িত। ঘটনার পর থেকে তাদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা বিঘ্নিত হচ্ছে। তাদের স্বামীরাও গ্রেফতার এড়াতে গা ঢাকা দিয়েছেন। আমাদের এখন কঠিন সমস্যা, খেতে ফলানো ফুল কপি, বেগুন, আলু, শিম, শাক বিক্রি করতে পারছি না। শীতের শাক সবজি ক্ষেতে নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে। বাড়িতে পুরুষ মানুষ না থাকায় বিক্রি করা যাচ্ছে না সবজি। আয়-রোজগার বন্ধ হয়ে গেছে। এ ব্যাপারে বোতলাগাড়ীর ইউপির ঐ এলাকার নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য মহির উদ্দিন বলেন, মামলার আসামি হিসেবে অজ্ঞাতনামা উল্লেখ থাকায় নির্দোষী মানুষ বেকায়দায় পড়েছেন। ফলে গ্রেফতার আতঙ্কে নারী-পুরুষ শূন্য হয়ে পড়েছে গোটা গ্রাম।

জানতে চাইলে, সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসনাত খান জানান, হত্যাকাণ্ডের ঘটনা যদিও সৈয়দপুর, কিন্তু মরদেহ উদ্ধার হয়েছে পার্শ্ববর্তী চিরিরবন্দর থানা এলাকায়। তাই মামলাটি ঐ থানা তদন্ত করছে। তবে তারা সহায়তা চাইলে আমরা সহযোগিতা করব। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও চিরিরবন্দর থানার এসআই তাজুল ইসলাম জানান, গ্রেফতার তিন জন আসামিকে আদালতের মাধ্যমে দিনাজপুর কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতার আসামিরা আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। মামলার বাকি আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। তিনি পুলিশি আতঙ্কে গ্রাম পুরুষ শূন্য হওয়ার প্রশ্নে বলেন, কেউ গ্রাম ছাড়া হলে ধরে নিতে হবে সে অপরাধে জড়িত থাকতে পারে। তবে নির্দোষ-নিরীহ মানুষের ভয়ের কিছু নেই। তারা নির্ভয়ে বাড়ি ঘরে থাকতে পারেন বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

ইত্তেফাক/ ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

সৈয়দপুরে ঝড়বৃষ্টির শঙ্কায় বোরো ধান কাটা শুরু

সৈয়দপুরে সুন্দরী আম মন কাড়ছে সবার

কিশোরগঞ্জে কালবৈশাখীতে ৩০ গ্রামে কৃষকের মাথায় হাত 

সৈয়দপুর হাসপাতালে এক্সরে বন্ধ, রোগীদের ভোগান্তি 

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

কিশোরগঞ্জে আরো ১৭৭ টি পরিবার পাচ্ছে নান্দনিক ঘর

কিশোরগঞ্জে আরো ১৭৭ টি পরিবার পাচ্ছে নান্দনিক ঘর

ডোমারে আবারও বেড়েছে সয়াবিন তেলের দাম

ডোমারে শিশু ধর্ষণ মামলায় কিশোর গ্রেফতার