রোববার, ০৩ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

উদ্বোধনের অপেক্ষায় পাড়ঘাট ব্রিজ, দূর হবে মানুষের ভোগান্তি

আপডেট : ০৪ এপ্রিল ২০২২, ১৪:০৮

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার পাড়ঘাটে বহুল প্রত্যাশিত চাঁড়ালকাটা নদীর ওপর নির্মাণাধীন ব্রিজের কাজ শেষ পর্যায়ে। এখন শুধু উদ্বোধনের অপেক্ষায়। আগামী দুই-এক মাসের মধ্যে ব্রিজটি চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে উপজেলা প্রকৌশল দপ্তর, এলজিইডি। ব্রিজটির উদ্বোধন করা হলে দুই উপজেলার ৩ লাখ মানুষের দীর্ঘদিনের ভোগান্তি দূর হবে। 

উপজেলা প্রকৌশল দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, নীলফামারীর বাবরীঝাড় জিসি ৪৫০০ থেকে শুরু করে কিশোরগঞ্জ উপজেলার পাড়ঘাট পর্যন্ত চাঁড়ালকাটা নদীর পাড়ঘাটে ২৫২ দশমিক তিন মিটার দীর্ঘ ব্রিজ নির্মাণের উদ্যোগ নেয় সরকার। ব্রিজটি নির্মাণে ব্যয় ধরা হয় ১৫ কোটি ১১ লাখ ২৯ হাজার ৬২৬ টাকা।

জানা গেছে, খড়স্রোতা নদী চাঁড়ালকাটা। আর এ নদী পারাপারের একমাত্র মাধ্যম হচ্ছে নৌকা। সামান্য প্রাকৃতিক বৃষ্টিপাত বা প্রাকৃতিক দুর্যোগ হলেই বন্ধ হয়ে যেত পারাপার। ফলে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী, কৃষক, ব্যবসায়ী কিংবা অসুস্থ রোগীসহ সাধারণ মানুষ পারাপারে চরম ভোগান্তির শিকার হতো। জরুরি প্রয়োজনে জেলা কিংবা উপজেলায় যেতে ১০ কিলোমিটার অতিরিক্ত পথ ঘুরে যেতে হয়। একটি মাত্র ব্রিজের অভাবে নীলফামারী জেলা সদরের দারোয়ানী টেক্সটাইল, চাপড়া সরঞ্জামী, যাদুরহাট, চড়াইখোলা, বাবড়ীঝাড়, বেড়াডাঙ্গা, কিশোরগঞ্জ উপজেলার নিতাই কাচারীর হাট, বাড়িমধুপুর, মৌলভীর হাট, মুশরুত বেলতলীর বাজার, বাহাগিলি, পুটিমারী, কিশোরগঞ্জ সদরসহ দুই উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নের ১৫-২০ গ্রামের প্রায় লক্ষাধিক মানুষের যাতায়াতে ভোগান্িতর শেষ ছিল না।

চাপড়া সরঞ্জামী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান লালন ফকির শাহ বলেন, ব্রিজের অভাবে চাপড়া সরঞ্জামী, দারোয়ানী টেক্সটাইল, বাবড়ীঝাড়, যাদুর হাট, বেড়াডাঙ্গা গ্রামের মানুষজনকে সৈয়দপুর দিয়ে ঘুরে তারাগঞ্জ উপজেলা হয়ে কিংবা নীলফামারী সদরের কঢ়ুকাঁটা হয়ে টেংগনমারী বাজার দিয়ে ঘুরে কিশোরগঞ্জ উপজেলায় যেতে হতো। এতে করে কমপক্ষে ১৫ কিলোমিটার পথ ঘুরে যেতে হতো। বর্তমানে সহজেই যাতায়াত সম্ভব হবে।

কিশোরগঞ্জ উপজেলার নিতাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুত্তাকিনুর রহমান আবু মিয়া বলেন, চাঁড়াল নদীর পাড়ঘাটে ব্রিজ নির্মাণের ফলে বাইকে মাত্র ১৫-২০ মিনিটের মধ্যেই কিশোরগঞ্জের মানুষ নীলফামারী জেলা সদরসহ পার্শ্ববর্তী দিনাজপুর জেলার খানসামা উপজেলায় যেতে পারবে। এলজিইডির উপজেলা প্রকৌশলী মাহমুদুল হাসান বলেন, আগামী দুই-এক মাসের মধ্যে ব্রিজটি জনগণের চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে। ব্রিজটি চালু হলে দুই উপজেলায় যাতায়াতে ৮-১০ কিলোমিটার দূরত্ব কমে যাবে। এছাড়া কিশোরগঞ্জ উপজেলা থেকে দিনাজপুর জেলার খানসামা উপজেলা হয়ে ঠাকুরগাঁও জেলার বীরগঞ্জে যেতে কমপক্ষে ২৫ কিলোমিটার দূরুত্ব কমবে। 

 

ইত্তেফাক/ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

জলঢাকায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই জনের মৃত্যু

সৈয়দপুরে ভুট্টার ফলন ও দামে কৃষকের স্বস্তি

উদ্বোধনের সময় জন্ম, নাম পদ্মা-সেতু

সৈয়দপুরে আলো ছড়াচ্ছে ছয় কিশোর-কিশোরী ক্লাব

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

সৈয়দপুরে ভুট্টার ভালো ফলন

সৈয়দপুর রেলওয়ে স্টেশনের ২ নম্বর প্ল্যাটফরম ঝুঁকিপূর্ণ

কিশোরগঞ্জে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় পথচারীর মুত্যু

সৈয়দপুরে নিষিদ্ধ জালে নির্বিচারে মাছ শিকার