বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

মিরপুর থেকে শিক্ষার্থী-প্রযুক্তিবিদ ও যাত্রাবাড়ীতে অগ্রণী ব্যাংক কর্মকর্তা নিখোঁজ 

ওদের এখনো সন্ধান মেলেনি 

আপডেট : ১০ মে ২০২২, ০২:১৯

রাজধানীর মিরপুর-২ নম্বরের বসতি হাউজিং এলাকা থেকে চার দিনের ব্যবধানে একজন শিক্ষার্থী ও একজন আইটি ইঞ্জিনিয়ার নিখোঁজ হয়েছেন। তারা হলেন, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস অ্যান্ড টেকনোলজির (বিইউবিটি) সিইসি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ইফাজ আহমেদ চৌধুরী (২২) এবং বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের আইটি ইঞ্জিনিয়ার নাঈম খান (৫২)। এর আগে গত ৭ জানুয়ারি রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকা থেকে অগ্রণী ব্যাংকের মতিঝিলের বি-ওয়াপদা শাখার সিনিয়র অফিসার নজরুল ইসলাম নিখোঁজ হন।

মিরপুরের বসতি হাউজিং এলাকা থেকে ইফাজ নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় গত ১১ এপ্রিল মিরপুর থানায় সাধারণ ডায়ারি করেন তার মা জান্নাতুল ফেরদৌস। ঐ নিখোঁজের ঘটনার পর ১৫ এপ্রিল ইফাজদের পাশের বাসায় বসবাসকারী আইটি ইঞ্জিনিয়ার নাঈম খান নিখোঁজ হন। এ ঘটনায় তার স্ত্রী বাদী হয়ে মিরপুর থানায় একটি মামলা করেন।

মিরপুর থানার ওসি মোস্তাজিরুর রহমান গতকাল ইত্তেফাককে বলেন, ‘ইফাজের নিখোঁজের ঘটনায় দায়ের করা জিডি আমরা তদন্ত করছি। এর পাশাপাশি নাঈম খানের নিখোঁজের ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। সেটিও তদন্ত করা হচ্ছে। তবে নাঈম খানের বিরুদ্ধে ক্যান্টনমেন্ট থানায় একটি মামলা রয়েছে। মামলাটি কারা করেছেন, তা জানা নেই। তবে দুজনকেই আমরা খঁুজছি। পুলিশের পাশাপাশি র্যাব ও ডিবি এই তদন্েত সহায়তা করছে।’

পারিবারিক সূত্র জানায়, মিরপুর ২ নম্বর সেকশনের বড়বাগ এলাকার বসতি হাউজিংয়ের ৮ নম্বর রোডের ৭ নম্বর বাড়ির চার তলার ফ্ল্যাটের বাসিন্দা ইফাজ। তার বাবা আবুল বাশার চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী। এক ভাই ও এক বোনের মধ্যে ইফাজ বড়।

গতকাল ইফাজের মা জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, গত ১১ এপ্রিল ১২টা ৪৫ মিনিটে বাসা থেকে বের হয়ে মিরপুর চিড়িয়াখানা রোডের একটি পশু হাসপাতালে যায় ইফাজ। সেখানে কেন এবং কী কারণে গিয়েছিল আমরা তা জানি না। তবে ইফাজ যেখানে যেখানে গিয়েছিল সেখানকার সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করেছি। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, মিরপুর-১ নম্বর থেকে সনি সিনেমা হল পর্যন্ত তাকে একটি কালো মাইক্রোবাস অনুসরণ করেছে। এরপর সে আর ফিরে আসেনি। ইফাজের ধর্মীয় বিষয়ে কোনো পরিবর্তন এসেছে কি না—এমন প্রশ্নের জবাবে জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, ছোটবেলা থেকেই ইফাজ নামাজ পড়ে। এর বেশি কোনো পরিবর্তন নেই। ইফাজকে গত বছর বিয়ে দেওয়া হয়। তার স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা। ইফাজের সন্ধান চেয়ে তিনি র্যাব-৪, র্যাব সদর দপ্তর এবং ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে পদস্হ কর্মকর্তাদের কাছে অনুরোধ করেছেন তার মা। তিনি ধারণা করছেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের নাম পরিচয় ব্যবহার করে কেউ তার ছেলেকে তুলে নিয়ে যেতে পারে। তিনি বলেন, ‘আমার ছেলে নিখোঁজ হওয়ার পর পাশের বাসা থেকে নাঈম খান নিখোঁজ হন। সেখানে সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, ওই কালো মাইক্রোবাসটির মতো একাধিক গাড়ি ঘোরাঘুরি করেছে।’

এদিকে নিখোঁজ হওয়ার তিন মাস পরও অগ্রণী ব্যাংক রাজধানীর মতিঝিলের বি-ওয়াপদা শাখার সিনিয়র অফিসার নজরুল ইসলামের সন্ধান মেলেনি। পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্হা তন্নতন্ন করে খঁুজেও কোনো কুল-কিনারা করতে পারেনি। তাকে কেউ ধরে নিয়ে গেছে, নাকি তিনি নিজেই আত্মগোপন করেছেন, নাকি আত্মহত্যা করেছেন—এসব প্রশ্নের কোনো উত্তর মিলছে না পুলিশের কাছে। তার নিখোঁজে হওয়ার ঘটনায় উত্তরখান থানায় তার স্ত্রী রুবিনা নজরুল একটি জিডি করেছেন। পুলিশ জানিয়েছে, নিখোঁজ নজরুল ইসলাম একজন অতিরিক্ত আইজিপির ছোট ভগ্নীপতি।

গত ৭ জানুয়ারি শুক্রবার জুমার নামাজের পর উত্তরখানে নিজের বাড়ির ভাড়া তোলার কথা বলে নজরুল ইসলাম যাত্রাবাড়ী থানাধীন শনির আখড়ার বাসা থেকে বের হন। এরপর থেকে তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি।

ইত্তেফাক/এসআর

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

দুর্ঘটনায় পা হারানো শিশু জান্নাতের পাশে পুনাক সভাপতি

ঐক্য ডটকম ডটবিডি-চ্যানেল আই নজরুল মেলা

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সহজেই মিলছে স্যানিটারি ন্যাপকিন

হলি আর্টিজানের ঘটনার পর স্থগিত ফুলব্রাইট প্রোগ্রাম আবারও চালু

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঢাকা-বেনাপোল ট্রেনটি আবার চালুর দাবি

হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল থেকে প্রকৌশলীর লাশ উদ্ধার

সেনাবাহিনীতে প্রথমবারের মতো চাকরি মেলা

হাতিরঝিল নিয়ে আদালতের যত নির্দেশনা-পরামর্শ