শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

হাজারো যানবাহন চলাচলের সেতুটি এখন মৃত্যুফাঁদ

আপডেট : ১১ মে ২০২২, ১৫:৪৮

শত মিটার দীর্ঘ সেতুর মাঝখানে দাঁড়িয়ে একহাতে লাল গামছা উড়িয়ে যানবাহন থামার সংকেত দিচ্ছেন স্থানীয় বাসিন্দা আছির উদ্দিন। অন্য হাতে সবুজ গামছা নেড়ে দিচ্ছেন সেতুতে ওঠার সংকেত। তার নির্দেশনা বেশিরভাগ যানবাহন মানলেও মানতে চাচ্ছে না ইটবাহী ট্রাক্টর।

কিশোরগঞ্জের হাওর উপজেলা নিকলীতে নরসুন্দা নদীর ওপর জরাজীর্ণ এই সেতু দিয়ে চলছে হাজারো যানবাহন। সেতুর পাটাতন, দুই পাশের রেলিং ভেঙে পড়েছে, আস্তর খসে বেরিয়ে পড়েছে পিলারের রড। নিষেধাজ্ঞা থাকার পরও এ সেতুর ওপর দিয়ে চলছে মালবাহী ট্রাক। এতে যেকোনো সময় ঘটতে পারে মারাত্মক দুর্ঘটনা

সেতুটির ওপর দিয়ে প্রতিদিন পারাপার হচ্ছেন নিকলী, দামপাড়া, কারপাশা, সিংপুরসহ চারটি ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষ। খাড়া সেতুতে উঠতে গিয়ে রিকশা ও অটোরিকশা উলটে মাঝেমধ্যেই ঘটছে দুর্ঘটনা। পঙ্গু হচ্ছেন অনেকে। ঘটছে প্রাণহানিও।

এলাকাবাসী জানান, ভারী যানবাহনের চলাচল নিষেধ করা হলেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার করছে মালবাহী ট্রাকসহ ছোট ছোট যানবাহন। নিচ দিয়ে চলছে হাজার হাজার নৌযান। সেতুটি ভেঙে এখানে একটি নতুন সেতু নির্মাণের দাবি জানান তারা।

উপজেলা এলজিইডির প্রকৌশলি আ. গণি ইত্তেফাককে জানান, ১৯৯৮ সালে ৯৫ মিটার দীর্ঘ ও মাত্র দেড় মিটার প্রস্থের এই ব্রিজটি নির্মাণ করে এলজিইডি। শুধু মানুষ পায়ে হেঁটে চলাচলের জন্য মূলত নির্মাণ করা হয়েছিল। পরে মানুষের প্রয়োজনে এর ওপর দিয়ে যানবাহন চলাচল শুরু হয়।

দুর্ভোগের কথা স্বীকার করে নতুন সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানালেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবু হাসান। তিনি বলেন, ‘মানুষকে সচেতন করতে ব্রিজের পাশে সতর্কতামূলক সাইনবোর্ড লাগানো হয়েছে।’

উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কারার সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘আমি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান থাকা কালীন নিকলী–বাজিতপুরের এমপি আফজাল হোসেনের সঙ্গে সেতুটি নিয়ে কথা বলেছি। এরপর এমপি এখানে একটি নতুন সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেন। বর্তমানে জীর্ণ এ সেতুটি ভেঙে প্রায় একশ মিটার সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছেন। প্রাথমিক কাজ শেষ হয়েছে। মাটি পরীক্ষা করা হচ্ছে। আশা করি শিগগিরই সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হবে।’

নিকলী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আহসান মো. রুহুল কুদ্দুস ভূইয়া বলেন, ‘সেতুটি এখন উপজেলাবাসীর জন্য মরণ ফাঁদ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা মানুষকে এ সেতুর ওপর দিয়ে সাবধানে চলাচল করতে উদ্বুদ্ধ করছি। সেতুর দুই পাশে সতর্কীকরণ সাইনবোর্ড লাগানো হয়েছে। এ ছাড়াও, ব্যক্তিগত উদ্যোগে একজন লোক সেতুর মাঝখানে রাখা হয়েছে। তিনি দুই পাশের যানবাহন নিয়ন্ত্রণ করেন।’

ইত্তেফাক/এএইচ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

বিশেষ সংবাদ

রাজশাহীতে ভুঁইফোঁড় হাসপাতাল-ক্লিনিকের ছড়াছড়ি!

ন্যায্য দাম নেই, গাছেই পচছে কাঁঠাল

বিশেষ সংবাদ

হারিয়ে যাচ্ছে বাঁশ শিল্প, ভালো নেই কারিগররা

বিশেষ সংবাদ

কুমিল্লা সিটি নির্বাচনে নয়া সমীকরণের আভাস

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

বিশেষ সংবাদ

সিলেটে বন্যায় হাজার কোটি টাকার ক্ষতির আশঙ্কা

কিশোরগঞ্জে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস খাদে

বিশেষ সংবাদ

দুই মাসে গো-খাদ্যের দাম দ্বিগুণ বাড়ায় বিপাকে খামারি

বিশেষ সংবাদ

সিলেটে বন্যা: কৃষিতে ক্ষতি ছাড়িয়েছে শত কোটি টাকা