বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

থানার জব্দ গাড়িতে দখল গোলারটেক খেলার মাঠ

ক্লাব ও সমবায় সমিতির অফিসও আছে

আপডেট : ২২ মে ২০২২, ০০:২৭

মাঠের এক অংশে বাস, ট্রাক, মাইক্রোবাসের সারি। অন্যপাশে জিবি এইচ বি ক্লাব আর সূচনা সমবায় সমিতির অফিস। আবার কিছু অংশ ব্যাডমিন্টন খেলার জন্য নেট দিয়ে ঘেরাও করে রেখেছে প্রভাবশালীরা। আর একাংশে খেলছে শিশুরা। এটি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের গোলারটেক মাঠের চিত্র।

ডিএনসিসির ৯ নম্বর ওয়ার্ড মিরপুরের দারুস সালাম থানার জব্দকৃত গাড়ি দিয়ে মাঠের একাংশ দখল হয়ে আছে। আবার অন্যপাশে মাঠের ভেতরেই সূচনা সমিতি গড়ে উঠেছে। এছাড়া এইচ বি ক্লাব অফিসও রয়েছে অন্যপাশে। 

স্থানীয়রা জানান, মাঠের এসব জায়গা বহু বছর ধরে দখল রয়েছে। এতে মাঠে খেলার পরিবেশ বিঘ্নিত হচ্ছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মাঠের দক্ষিণ-পশ্চিম অংশে রাখা হয়েছে জব্দকৃত যানবাহন। ১০টি ট্রাক, হাফ ডজনের মতো বাস। এ ছাড়া সিএনজিচালিত অটোরিকশা, মিনিবাস, প্রাইভেট কার, পিকআপ ভ্যান, লেগুনা, মোটরসাইকেলসহ প্রায় ৫০টির বেশি যানবাহন পড়ে আছে। চার একর জায়গা নিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের সবচেয়ে বড় খেলার মাঠ এটি। স্থানীয়ভাবে এটি গোলারটেক মাঠ নামে পরিচিত। ২০০৮ সালের ২৩ আগস্ট মিরপুর থানার কিছু এলাকা নিয়ে গঠিত হয় দারুস সালাম থানা। থানার কার্যক্রম শুরু হওয়ার পর থেকেই এখানে জব্দকৃত গাড়ি রাখা হচ্ছে বলে জানায় স্থানীয়রা। যার কারণে খেলতে আসা শিশু-কিশোরদের খেলার পরিবেশ বিঘ্নিত হচ্ছে বলে জানান তারা।

দারুস সালাম থানা। ছবি: সংগৃহীত

গোলারটেক মাঠে খেলতে আসা মিরপুরের এক শিক্ষার্থী জানায়, আমাদের ক্রিকেট বল প্রায়ই গাড়ির স্তূপে চলে যায়। এছাড়া মাঠের একটি অংশ দখল থাকায় আমরা পুরো মাঠ ব্যবহার করতে পারছি না। পুলিশ জায়গা দখল করে রাখলে জনগণ কোথায় যাবে? আমরা মাঠে খেলার জায়গা চাই। 

সামিউল হোসেন নামে আরেক শিক্ষার্থী বলেন, মাঠে যেভাবে গাড়ি রাখা হচ্ছে মনে হয় এটি থানার ডাম্পিং স্টেশন। এভাবে গাড়ি দিনের পর দিন পরে আছে কিন্তু গাড়ি সরানোর কোনো উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে না। এটি অনত্র সরিয়ে নেওয়ার জন্য দাবি জানাচ্ছি।

শুধু গাড়ি দিয়ে দখল নয়, জিবি এইচ বি ক্লাব আর সূচনা সমবায় সমিতির দুটি বিশাল অফিসও রয়েছে মাঠের ভেতর। স্হানীয়দের অভিযোগ, এ দুটি স্থানীয় ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মুজিব সারোয়ার মাসুমের ছত্রছায়ায় গড়ে উঠেছে। মাঠের ভেতর এ দুটি স্থাপনার কারণেও মাঠের অনেকাংশ দখল হয়ে গেছে। এছাড়া প্রভাবশালীরা ব্যাডমিন্টন কোর্ট বানিয়ে তা নেট (জাল) দিয়ে ঘেরাও করে তালাবদ্ধ করে রেখেছে।

এ বিষয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের স্থানীয় কাউন্সিলর মুজিব সারোয়ার মাসুম ইত্তেফাককে বলেন, গাড়িগুলো সরানোর জন্য আমরা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানিয়েছি। মেয়র মহোদয়ও তাদের এখান থেকে গাড়ি সরানোর কথা বলেছেন। তারা জায়গা পেলে গাড়ি সরানোর কথা বলছেন।

গুগুলে ম্যাপে গোলারটেক খেলার মাঠ।

এছাড়া তিনি মাঠের ভেতর স্থাপনার বিষয়ে বলেন, একসময় এখানে বস্তি ছিল। আর এ ক্লাব ও সমিতি এখান থেকে বস্তি উচ্ছেদে সহযোগিতা করেছে। তারা থাকায় মাঠ কেউ দখল করতে পারছে না। যদি কখনো সরকারের দরকার পড়ে তাহলে তারা জায়গা ছেড়ে দিবে। 

এ বিষয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা (যুগ্মসচিব) মোজাম্মেল হক বলেন, এসব সরানোর বিষয়ে আমরা থানাকে অবহিত করেছি। তারা এসব মামলার আলামত হিসেবে রেখেছেন বলে জানিয়েছেন। এছাড়া তারা ডাম্পিংয়ের জন্য সরকারের কাছে জায়গা চেয়েছেন। সে জায়গা পেলে তারা সেখানে এসব গাড়ি সরিয়ে নিবেন। এছাড়া মাঠের ভেতর স্থাপনার বিষয়ে তিনি বলেন, এসব সিটি করপোরেশনের না। এসব অবৈধভাবে গড়ে উঠেছে। এ বিষয়ে জানার জন্য দারুস সালাম থানার ওসি তোফায়েল আহমেদের ফোনে একাধিকবার ফোন করেও তাকে পাওয়া যায়নি। 

ইত্তেফাক/এএএম