শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

অর্জন আর আক্ষেপে শেষ ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিন

আপডেট : ২৪ মে ২০২২, ১৯:৫৩

ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিনটা শেষ হলো অর্জন আর আক্ষেপের মধ্য দিয়ে। এদিন একদিকে যেমন বাংলাদেশ দেখেছে লিটন দাসের ১৪১ রান আর মুশফিকুর রহিমের অপ্রতিরোধ্য ১৭৫ রানের ইনিংস, অন্যদিকে ক্যাচ মিস আর ডিআরএস ভাগ্য অনুকূলে না থাকাও দেখেছে টাইগাররা। সব মিলিয়ে বাংলাদেশের ৩৬৫ রানের প্রথম ইনিংসের জবাবে লঙ্কানদের এদিনে সংগ্রহ ২ উইকেটের বিনিময়ে ১৪৩ রান।

মঙ্গলবার (২৪ মে) দ্বিতীয় দিনের শুরুটা ভালো হয়নি স্বাগতিকদের। মুশফিক ছাড়া বাকি সবাই ছিলেন আসা-যাওয়ার মধ্যে। লিটনও এদিন বেশি একটা সুবিধা করতে পারেননি।ফলে বাংলাদেশের ইনিংস শেষ হয় ৩৬৫ রানে। জবাবে ব্যাট হাতে আগ্রাসীভাবেই শুরু করে শ্রীলঙ্কা। ২ উইকেটের বিনিময়ে স্কোর বোর্ডে জমা করে ১৪৩ রান। এতে বাংলাদেশের চেয়ে প্রথম ইনিংসে এখনো ২২২ রানে পিছিয়ে আছে লঙ্কানরা। কাল ম্যাচের তৃতীয় দিন দিমুথ করুনারত্নে ৭০ এবং নাইট ওয়াচম্যান হিসেবে নামা কাসুন রাজিথা ০ রান নিয়ে আবার ব্যাটিং শুরু করবেন।

ইনিংসের প্রথম ওভারেই ওপেনার ওসাধা ফার্নান্দোর বিপক্ষে কট বিহাইন্ডের আবেদন। আম্পায়ার সাড়া দিলেও রিভিউয়ে বেঁচে যান ওশাধা। ১৫তম ওভারে আবারও স্পিনার তাইজুল ইসলামের এলবিডব্লিউর জোরালো আবেদন। তবে তা নাকচ করেন আম্পায়ার। চ্যালেঞ্জ জানালেও বাংলাদেশ দলকে পুড়তে হয় আম্পায়ার্স কলের আক্ষেপে। পরে ১৮তম ওভারে সেই ওশাদার ফিরতি ক্যাচ হাত ফসকে গেছে সাকিব আল হাসানের। 

জীবন পেয়ে ২০তম ওভারে সাকিবকে ছক্কা মেরেই ক্যারিয়ারের পঞ্চম ফিফটির দেখা পান ওশাধা। চা বিরতির আগে ২২ ওভার ব্যাট করে বিনা উইকেটে ৮৪ রান তুলে সফররতরা। বিরতির পর ইনিংসের ২৬তম ওভারে ওশাদাকে সাজঘরে ফেরান পেসার এবাদত হোসেন। তবে করুনারত্নেকে।

তাইজুলের করা পরের ওভারেই শর্ট লেগে করুনারত্নের ক্যাচ ছাড়েন জয়। তখন ৩৭ রানে ব্যাট করছিলেন লঙ্কান দলপতি। করুনারত্নে সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে নিজের টেস্ট ক্যারিয়ারের ২৯তম অর্ধশতক তুলে নেন। তাকে আরেকবারে ফেরানোর চেষ্টায় রিভিউ নিয়েছিল বাংলাদেশ দল, সেটিও বিপক্ষে গেছে স্বাগতিকদের। তবে শেষ বিকেলে বাংলাদেশ দলে স্বস্তি এনে দেন সাকিব। লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলে ফেরান কুশলকে। ৪৯ বল খেলে ১১ রান করেন তিনি।

এর আগে দ্বিতীয় দিনের শুরুতে একাই লড়াই করছিলেন মুশফিকুর রহিম। ধীরে ধীরে এগিয়ে যাচ্ছিলেন ডাবল সেঞ্চুরির দিকে। কিন্তু এগার নম্বর ব্যাটার এবাদত হোসেনকে স্ট্রাইক দেবেন না বলে ডাবলস নিতে গিয়েই বাধলো বিপত্তি।

ননস্ট্রাইকে রানআউট হলেন এবাদত। মুশফিকের ডাবলের স্বপ্ন অপূর্ণই থেকে গেলো। ১৭৫ রানে অপরাজিতই থাকলেন। ঢাকা টেস্টের প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ অলআউট হয়েছে ৩৬৫ রানে।

প্রথম দিন প্রথম সেশনে টপ অর্ডার ব্যাটারদের বিপর্যয় সামলে নিয়েছিলেন মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস। দিনের বাকি সময় তারা খেলেছেন দাপটের সঙ্গে। তাই সবাই ধারণা করেছিলো, সেঞ্চুরি করা দুই ব্যাটার দ্বিতীয় দিনেও ব্যাট করে যাবেন। কিন্তু সে আশা পূরণ হয়নি।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

ভয় কাটিয়ে ভালো আছেন টাইগাররা

বিশ্বকাপে খেলবেন কি তামিম?

টেস্ট দলের ক্রিকেটাররা ফিরছেন ২ জুলাই

টি-টোয়েন্টিতে যেভাবে জয়ের ছক কষছেন সিডন্স

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

‘বাংলাদেশে টেস্ট সংস্কৃতি নেই’ সাকিবের মন্তব্যে একমত পাপন

ছুটি চেয়েছেন সাকিব, বিসিবির আপত্তি নেই

টেস্টের ব্যর্থতা ভুলে ডমিনিকা যাচ্ছেন টাইগাররা

তাসকিনের কাছে ডোনাল্ডের চাওয়া