মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

রাজশাহীতে স্ত্রীকে ভাগিয়ে বিয়ে করায় ছুরিকাঘাতে দলিল লেখক নিহত

আপডেট : ২১ জুন ২০২২, ০৮:৩১

রাজশাহীতে স্ত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে বিয়ে করায় ক্ষুব্ধ প্রথম স্বামী টিটন আলীর (৪০) ছুরিকাঘাতে দ্বিতীয় স্বামী আব্দুর রহমান মুকুল (৪২) খুন হয়েছেন। গত রবিবার রাতে রাজশাহী মহানগরীর শাহ্ মখদুম থানার নওদাপাড়া এলাকার মাস্টারপাড়ায় এই খুনের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত টিটন আলীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ জানায়, নিহত আব্দুর রহমান মুকুল পবা উপজেলার বড়গাছি গ্রামের আবদুল গাফফারের ছেলে। তিনি রাজশাহী সদর দলিল লেখক সমিতির সদস্য ছিলেন। তিনি নগরীর নওদাপাড়ার মাস্টারপাড়ায় ভাড়া থাকতেন। অন্যদিকে ঘাতক টিটন আলী নগরীর রাণীনগর সাধুর মোড়ের আব্দুল লতিফের ছেলে।

নগরীর শাহ্ মখদুম থানার ওসি মেহেদী হাসান জানান, সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে মুকুল ভাড়া বাসা থেকে বের হওয়া মাত্র ওত পেতে থাকা টিটন তাকে দেখামাত্র ছুরিকাঘাত করে দৌড়ে একটি চলন্ত ট্রাকে উঠে পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় শাহ্ মখদুম থানার টহল টিম ধাওয়া করে টিটনকে ধরে ফেলে। তবে পালানোর সময় টিটন মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হওয়ায় তাকে পুলিশ হেফাজতে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অন্যদিকে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় মুকুলকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যায়। সেখানে কর্মরত চিকিত্সকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ওসি আরো বলেন, সম্প্রতি নিহত মুকুল টিটনের স্ত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে বিয়ে করেন। ঐ রাগে টিটন আলী মুকুলের ওপর হামলা চালায়। ঘটনাস্থল থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত রক্তমাখা একটি ছুরি ও বেশকিছু আলামত সংগ্রহ করা হয়। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা হয়েছে। আটক টিটনকে ঐ মামলায় আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ইত্তেফাক/এমআর

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

তালায় প্রতিপক্ষের হামলায় এক ব্যক্তি নিহত

রাজশাহীতে বাড়ছে চুরি ছিনতাই, মামলা নিতে চায় না থানা

জায়গার অভাবের অজুহাতে রাজশাহীতে স্থান পেল না কারা প্রশিক্ষণ একাডেমি!

রাজশাহীর বিদ্যুতের ১০ শতাংশই খরচ ব্যাটারিচালিত যানে

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

উচ্চস্বরে গান বাজাতে নিষেধ করায় খুন, গ্রেফতার ৫

গোদাগাড়ীতে হারিয়ে যাচ্ছে ধানের গোলা

রাজশাহী মহানগরীর পাঁচটি ফ্লাইওভারের নকশা চূড়ান্ত

মেয়ের কর্মকাণ্ডে অতিষ্ঠ হয়ে খুন করে পুঁতে রেখেছিলেন বাবা!