মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

বদলগাছীতে বন্ধ হচ্ছে না বাল্যবিবাহ

আপডেট : ২২ জুন ২০২২, ০১:৩০

বদলগাছীতে বন্ধ হচ্ছে না বাল্যবিবাহ। প্রায়ই ঘটছে বিবাহবিচ্ছেদের ঘটনা। জন্মসনদে কম্পিউটার দ্বারা বয়স বাড়িয়ে কিছু অসৎ কাজি দিয়ে কাবিননামা করা হচ্ছে এসব বিবাহতে। বদলগাছী উপজেলায় সরকারি-বেসরকারিভাবে তৎপরতা থাকলেও অভিভাবকদের কারণে এসব বিবাহ হচ্ছে বলে সচেতন মহলের অভিমতে জানা যায়। 

সচেতন মহল দায়ী করছেন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কারণে তারা জন্মসনদে বয়স বাড়িয়ে দিয়ে সহায়তা করছেন। আর এই সনদকে অভিভাবকরা বড় প্রমাণ হিসেবে কাজে লাগিয়ে অল্প বয়সের মেয়েদের বিবাহর পিঁড়িতে বসাচ্ছেন। বদলগাছী উপজেলা ব্র্যাক সামাজিক ক্ষমতায়ন অফিস জরিপ সূত্রে জানা যায়, একদিকে অভিভাবকদের অসচেতনতা, অন্যদিকে জনপ্রতিনিধিদের দেওয়া ভুয়া সনদে বিবাহবন্ধনে জড়িয়ে পড়ছে। বিবাহর কিছুদিন পর বিছেদের ঘটনা ঘটছে। 

এ বিষয়ে ব্র্যাক মানবাধিকার কর্মসূচির বদলগাছী উপজেলা কর্মকর্তা সিমাজুল মুনিরা বলেন, কয়েক মাসে ৩০টি দাখিল হওয়া মামলা তদন্ত করে পাঁচটি মামলা কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে। আর বেশির ভাগ কাজি অফিসে বিবাহর কোন কাবিননামা পাওয়া যায় না। যার কারণে মামলা নিষ্পত্তি করতে গিয়ে জটিলতায় পড়তে হয়। এছাড়া আমরা গ্রামে বিভিন্ন সচেতনতামূলক কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছি। হিসাব মতে একটি অষ্টম বা নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া ছাত্রীর ১২ থেকে ১৪ বছর বয়স হয়। সেখানে অনেক সময় চেয়ারম্যান কর্তৃক জন্মসনদে দেখা যায় ১৬ থেকে ১৮ বছর বয়স করে দেওয়া হয়। ফলে একদিকে বাল্যবিবাহ বৃদ্ধি পাচ্ছে অন্যদিকে স্বামী পরিত্যক্তার হার বাড়ছে।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. কানিস ফারহানা বলেন, বাল্যবিবাহের কারণে মেয়েদের জরায়ুসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। তাছাড়া অল্প বয়সে মা হতে গেলে মা ও বাচ্চা—দুই জনেরই মৃত্যুর ঝুঁকি থাকে বেশি। 

বদলগাছী সদর ইউনিয়নের কাজি মনজের আলী বলেন, আমরা জন্মসনদে বয়স দেখে বিবাহর কাজ সম্পন্ন করি। বদলগাছী সদর ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বলেন, বাল্যবিবাহ দিন দিন বেড়েই চলেছে। তবে আমার ইউনিয়ন পরিষদ থেকে বয়স অনুপাতে জন্মসনদ দেওয়া হয়। গ্রামের কিছু মৌলভি রেজিস্ট্রি ছাড়াই গোপনে বিবাহ পড়িয়ে দিচ্ছে। 

উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানরাই যদি ইচ্ছা করেন তাহলে কিছু বাল্যবিবাহ রোধ করা সম্ভব। 

বদলগাছী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলপনা ইয়াসমিন বলেন, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে একটি কমিটি রয়েছে। তাদের মাধ্যমে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে কয়েকটি বিবাহর অনুষ্ঠানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বিবাহবিচ্ছেদ ও জরিমানা করা হয়েছে। তাছাড়া আটটি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও কাজিদের নিয়ে আলোচনা করে নিষেধ করা হয়েছে যেন কোনভাবেই বাল্যবিবাহ না হয়।

ইত্তেফাক/এমএএম

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

ঘোড়া দিয়ে হালচাষে ভাগ্য বদল শরিফুলের

মহাদেবপুরে চালের দাম বেড়েছে

নিয়ামতপুরে ৮৫ শতাংশ জমিতে আমনের চারা রোপণ শেষ

নিয়ামতপুরে পৃথক ঘটনায় ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

অবশেষে পাকা হচ্ছে রাণীনগরের ২২ কিলোমিটার সড়ক  

বদলগাছীতে বাবার করা প্রতারণা মামলায় ছেলে কারাগারে

বাবার মামলায় কারাগারে ছেলে 

শতভাগ গৃহহীন-ভূমিহীন মুক্ত রাণীনগর উপজেলা