বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

পাঁচবিবিতে প্রস্তুত ৬৩ হাজার কোরবানির পশু

আপডেট : ২৫ জুন ২০২২, ১২:২৪

ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে ৬৩ হাজার ৫৮১টি গবাদিপশু কোরবানির জন্য প্রস্তুত করেছে স্থানীয় খামারিরা। উপজেলায় বাণিজ্যিকভাবে কোন খামার না থাকলেও  ৮টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার ১ হাজার ৪৫০টি পারিবারিক খামারে এসব পশু কোরবানির জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। এবার উপজেলায় কোরবানির পশুর চাহিদার ১০ হাজার বেশি পশু রয়েছে।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর জানায়, কোরবানিযোগ্য গবাদিপশুর মধ্যে ষাঁড় ৫ হাজার ৮২৪টি, বলদ ৩ হাজার ৪৩৪টি, গাভি ৪ হাজার ৩৫টি, মহিষ ১০৫টি, ছাগল ৪০ হাজার ২৬৩টি, ভেড়া ৯ হাজার ৯২০টি সহ মোট ৬৩ হাজার ৫৮১ টি গবাদিপশু কোরবানির জন্য প্রস্তুত রয়েছে। উপজেলায় পশুর চাহিদা ৩৩ হাজার  হলেও, ৪০হাজার ৫৮১টি পশু বেশি রয়েছে। যা উপজেলার চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন জায়গায় কোরবানির পশুর চাহিদা পূরণে ভূমিকা রাখবে।

অপরদিকে এসব পশু বিক্রয়ের জন্য ২৭টি অনলাইন মাধ্যম ও পশুরহাট পাঁচবিবি জয়পুরহাট নামে একটি সরকারী ওয়েবসাইট রয়েছে। যেখানে মূল্যসহ প্রতিদিন এসব পশুর ছবিসহ বিবরণ ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে আপলোড করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে উত্তরবঙ্গের ঐতিহ্যবাহী পশুর হাট পাঁচবিবি গো-হাটায় কোরবানির পশু কেনা-বেচা শুরু হয়েছে।

এদিকে গো-খাদ্যের দাম অস্বাভাবিক ভাবে কেজি প্রতি ২০/৩০ টাকা বেড়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন উপজেলার খামারি ও কৃষকরা। বেশি দামে খাদ্য খাওয়ায়ে বাজারে পশুর ভালো দাম পাওয়া নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন।

পাঁচবিবি উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা নিয়ায কাযমির রহমান বলেন, উপজেলায় চাহিদার তুলনায় ৪০ হাজারের বেশি পশু প্রস্তুত আছে। মাঠ পর্যায়ের কর্মীদের মাধ্যমে পশু গুলোর নিয়মিত মনিটরিং করা হচ্ছে এবং খামারীদের পশু বিক্রয়ের সুবিধার্থে অনলাইনে প্রচার চালানো হচ্ছে।

ইত্তেফাক/এমআর

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন