বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

সেন্ট লুসিয়া টেস্ট

দিনের শুরুতে ক্যারিবিয়ান শিবিরে মিরাজের আঘাত

আপডেট : ২৬ জুন ২০২২, ২০:৪৯

সেন্ট লুসিয়া টেস্টের তৃতীয় দিনের শুরুতেই ক্যারিবিয়ানদের ৯৬ রানের জুটি ভেঙে দিয়েছেন মেহেদি হাসান মিরাজ। দ্বিতীয় দিনের শেষ সেশনে জসুয়া ডি সিলভাকে নিয়ে এগুতে শুরু করেন কাইল মায়ার্স। তৃতীয় দিনের শুরুতে সেই জুটিই ভাঙলেন মিরাজ।

এর আগে গতকাল ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৩২ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলার পর পঞ্চম উইকেটে জার্মেই ব্ল্যাকউডকে নিয়ে ১১৬ রানের জুটি গড়েছিলেন মায়ার্স। ওই জুটি ভাঙার পর ষষ্ঠ উইকেটে দলকে এগিয়ে নিতে শুরু করেন জসুয়া ডি সিলভা আর মায়ার্স। তবে সেই জুটি আর শতক পেরোতে পারেনি। ১১৫ বল খেলে ২৯ রান করা জসুয়াকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেছেন টাইগার অফস্পিনার মিরাজ। তার ডেলেভারি সুইপ করতে গিয়ে মিস করেন জসুয়া। আর সেই সুযোগে টাইগারদের জোরালো আবেদনের প্রেক্ষিতে আউট দেন আম্পায়ার। এরপর মাঠে আসা আলজারি জোসেফও ফেরেন খালেদ আহমেদের শিকারে পরিণত হয়ে। তার ব্যাট থেকে আসে মাত্র ৬ রান।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১১২ ওভার শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৭ উইকেটে ৩৭০ রান। মায়ার্স ১৩৭ আর কেমার রোচ রানে অপরাজিত আছেন। এখন পর্যন্ত লিড ১৩৭ রানের।

ব্যাটিংয়ে সংগ্রাম, বোলিংয়ে উইকেট পেতে প্রাণান্ত চেষ্টার মধ্য দিয়েই ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে দিন কাটছে বাংলাদেশ দলের। টানা দুই টেস্টেই ম্যাচের বিভিন্ন সময়ে দাপট দেখাচ্ছে সফরকারী দল। কিন্তু সেটির ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারছে না। তাই ক্ষণিকের ব্যবধানে আবারও নিয়ন্ত্রণ হারাচ্ছে সাকিব আল হাসানের দল।

ক্যারিবিয়ানদের দাপটে বারবারই চাপে পড়ছে বাংলাদেশ। সেন্ট লুসিয়ায় সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টেও একই দৃশ্য মঞ্চায়িত হচ্ছে। ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে উন্ডিজের বিপক্ষে পিছিয়ে সফরকারীরা। প্রথম ইনিংসে টাইগারদের ২৩৪ রানে গুটিয়ে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৪০ রানের সংগ্রহ পেয়েছে উইন্ডিজ। এতে ১০৬ রানের লিড নিয়েছে তারা। হাতে ৫ উইকেট রেখে এ লিড আরও বাড়িয়ে নিতে রবিবার (২৬ জুন) তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করবেন দুই ব্যাটসম্যান কাইল মায়ার্স আর জসুয়া ডি সিলভা। অনবদ্য ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরি তুলে মায়ার্স ১৮০ বলে ১২৬ রানে অপরাজিত আছেন, তার সঙ্গী হিসেবে জসুয়া আছেন ১০৬ বলে ২৬ রানে।

দ্বিতীয় দিনেও দারুণ শুরুর আভাস দিয়েছিলেন দুই ওপেনার ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট ও জন ক্যাম্পবেল। কিন্তু বেশিক্ষণ টিকে থাকতে পারেনি জুটি, শরিফুল ইসলামের শর্ট বলে উইকেট-রক্ষক নুরুল হাসান সোহানের হাতে ক্যাচ দেন ৪৫ রান করা ক্যাম্পবেল। এরপর রেইমন রেইফারকে নিয়ে কিছুদূর এগুতেই মেহেদী হাসান মিরাজের বলে বোল্ড হয়ে ফিরতে হয় অর্ধশতক হাঁকানো ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটকে। ৫১ রান করা ব্র্যাথওয়েটকে বোল্ড করে ফেরান মিরাজ। দুই ওপেনারের বিদায়ের পর খালেদ আহমেদ এক ওভারেই ফেরান ২২ রান করা রেইফার ও ০ রানে এনক্রুমাহ বোনারকে। প্রথম সেশনে পর পর চার উইকেট তুলে ম্যাচে ফিরলেও দ্বিতীয় সেশনের হতাশ হতে হয় মায়ার্স ও জার্মেইন ব্ল্যাকউডের ব্যাটে। দুজনের জুটি ভাঙে ১১৬ রান যোগ করে। ব্ল্যাকউডকে ৪০ রানের মাথায় এলবিডব্লুর ফাঁদে ফেলে ফেরান মিরাজ। এরপর দিনের বাকি সময়টা কাটিয়ে দিয়েছেন কাইল মায়ার্স ও জশুয়া দ্য সিলভা।

দিনের শেষ সেশনে কোনও সুযোগই দেননি দুই ব্যাটার। দলের বিপদে দারুণ সব শট খেলে মায়ার্স তুলে নেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় শতক। জশুয়া দ্য সিলভাকে নিয়ে দলের রান তিনশ পার করে দেখাচ্ছেন বড় লিডের স্বপ্ন। মায়ার্স ১২৬ ও জশুয়া ২৬ রানে অপরাজিত থেকে শেষ করেছেন দ্বিতীয় দিন। ক্যারিবীয়দের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৩৪০, লিড নিয়েছে ১০৬ রান।

এর আগে নিজেদের প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের পক্ষে লিটন দাস ৫৩, তামিম ইকবাল ৪৬, এনামুল হক বিজয় ২৩, নাজমুল হোসেন শান্ত ২৬ ও মাহমুদুল হাসান জয় ১০ রান করেন। শেষ দিকে এবাদত হোসেন ও শরিফুল ইসলামের ক্যারিয়ার সেরা ব্যাটিংয়ে ২৩৪ রানের পুঁজি পায় সফরকারীরা। এবাদত করেন ২১ ও শরিফুল ২৬ রান।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন