সোমবার, ১৫ আগস্ট ২০২২, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

সিরাজগঞ্জে বন্যায় সাড়ে ৩৩ হাজার পরিবারের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

আপডেট : ২৭ জুন ২০২২, ০৩:০৪

সিরাজগঞ্জে বন্যায় অন্যান্য বিভাগে তেমন ক্ষতি না হলেও কৃষি বিভাগে ব্যাপক ক্ষতির হয়েছে বলে কৃষক সূত্রে জানা গেছে। তবে এখন পর্যন্ত ক্ষয়ক্ষতির পুরোপুরি হিসাব সম্পন্ন হয়নি। 

জেলা ত্রাণ অফিস সূত্রে জানা গেছে, জেলার কাজীপুর, সিরাজগঞ্জ সদর, বেলকুচি, চৌহালী ও শাহজাদপুর এই পাঁচটি উপজেলায় মোট ২২৮টি গ্রাম বন্যাকবলিত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৩৩ হাজার ৬২০টি পরিবারের ১ লাখ ৬৬ হাজার ৭২ জন মানুষ । জেলায় বন্যায় প্লাবিত হয়েছে ৫৬৯ বর্গকিলোমিটার। বন্যার্তদের চিকিৎসার জন্য ২৩টি মেডিক্যাল টিম কাজ করে যাচ্ছে। জেলার ১২ হাজার ৫৯৯ হেক্টর জমির পাট, তিল, কাউন, গ্রীষ্মকালীন মরিচ, বিভিন্ন ধরনের সবজি, রোপা আমন বীজতলা বন্যার পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে। এতে কৃষকরা ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা করছেন। 

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার পাইকপাড়া গ্রামের কৃষক আব্দুল কাদের জানান, বন্যায় তার তিন বিঘা জমির পাট তলিয়ে গেছে। এতে ক্ষতির মুখে পরলাম। তিনি জানান, তিন বিঘা জমি চাষ করতে সব মিলিয়ে প্রায় ১০ হাজার টাকা খরচ হয়েছিল, কিন্তু পানিতে ডুবে আমার সর্বনাশ হয়ে গেল। 

বড়পিয়ার চরের কৃষক আব্দুর রাজ্জাক জানান, দুই বিঘা জমিতে পাট ও পাঁচ বিঘা জমিতে তিল ছিল। বানের পানিতে সব ডুবে গেছে। আর কিছু দিন গেলেই তিল ও পাট কাটা যেত। বন্যা এসে আমার সব শেষ হয়ে গেছে। কাজীপুরের নাটুয়াপাড়া চরের কৃষক জেল হক জানান, এবছর পাঁচ বিঘা পাট, দুই বিঘা জমিতে বিভিন্ন ধরনের সবজি চাষ করেছিলাম। বন্যায় সব ডুবে গেছে।

ইত্তেফাক/ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

বিদ্যালয়ের উন্নয়নের টাকায় সভাপতির ভুড়িভোজের আয়োজন!

সিরাজগঞ্জে প্রাথমিকের ১৭৯ শিক্ষকের পদ শূন্য, পাঠদান ব্যাহত 

রায়গঞ্জে পানির অভাবে পাট জাগ ব্যাহত

সিরাজগঞ্জে আমন চাষে ব্যস্ত কৃষক

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

সিরাজগঞ্জে পৃথক স্থান থেকে ২ জনের লাশ উদ্ধার

বেলকুচিতে স্কুলছাত্রী হত্যা মামলায় যুবকের মৃত্যুদণ্ড

সাত মাসে ১৫০০ কেজি ফল বিক্রি করেছেন শহিদুল

পছন্দের মেয়ের সঙ্গে বিয়ে না দেওয়ায় যুবকের ‘আত্মহত্যা’