বৃহস্পতিবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ২ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

গঙ্গাচড়ায় সড়ক পাকা করার দাবীতে এলাকাবাসীর অভিনব প্রতিবাদ

আপডেট : ০১ আগস্ট ২০২২, ২৩:৩৭

সড়ক পাকা করার দাবীতে কাচা সড়কে ধানের চারা রোপন করে অভিনব প্রতিবাদ করেছেন এলাকাবাসী। রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার গজঘণ্টা ইউনিয়নের কিশামত হাবুর ৯ নম্বর ওয়ার্ডের উমর জামে মসজিদ সংলগ্ন মোজাহরুলের বাড়ির সামনে সোমবার (০১ আগস্ট) সকালে কাঁচা রাস্তায় ধানের চারা লাগিয়ে এই  প্রতিবাদ করেন এলাকাবাসী।

এলাকাবাসী জানান, গঙ্গাচড়া উপজেলার গজঘণ্টা ইউনিয়নের কিশামত হাবু থেকে উমর বালাটারী পর্যন্ত প্রায় ৩ কিলোমিটার পুরোপুরি কাঁচা সড়ক। বর্ষামৌসুমে এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করা দুষ্কর। বিশেষ করে বর্ষাকালে রাস্তায় যানচলাচল তো দূরের কথা হাঁটা-চলাও তাদের জন্য কষ্টকর হয়। অথচ এই ৩ কিলোমিটার রাস্তার দুইধারে প্রায় ১ হাজার পরিবারের বসবাস করেন।দীর্ঘদিন কাঁচা রাস্তাটি সংস্কার করে পাকাকরণের জন্য দাবি জানিয়ে আসছেন এলাকার লোকজন। কিন্তু এখন পর্যন্ত দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ নেননি জন প্রতিনিধিরা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সড়ক পাকা করনের দাবীতে চলাচলের রাস্তারার ওপরের কাদায় ধানের চারা রোপণ করেছেন এলাকার কিছু মানুষ। এ সময় কথা হয় প্রতিবাদ জানাতে আসা স্থানীয় রাসেল মিয়া (৩৪) এর সঙ্গে। দীর্ঘদিনের ক্ষোভ আর আক্ষেপ থেকে তিনি বলেন ‘কতদিন ধরি একটা পাকা সড়কের জন্যে হামরা কষ্ট করোছি বাহে। হামার কষ্ট কি সরকারের চোকোত (চোখে) পড়ে না? বর্ষা নামলে রাস্তা দিয়্যা হাঁটা-ই যায় না। আর ভোট আসলে নেতারা আইসে আর কয় এবার রাস্তা ঠিক করা হইবে। কিন্তু ভোট শ্যাষে আর কাম হয় না।তিন কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা পাকা করার জনতে কতদিন ধরি মেম্বার, চেয়ারম্যান থাকি শুরু করি এমপি সাইবোক কওছি। কায়ো হামার রাস্তা কোনো পাকা করি দেওছে না। এ জন্যেই হামরা এবার রাস্তাত রোয়া ধান নাগাওছি বাহে। 

সড়ক পাকা করার দাবীতে কাচা সড়কে ধানের চারা রোপন করে প্রতিবাদ করছেন এলাকাবাসী।

এলাকার সোহরাব মিয়া(৪২) বলেন, হামার এই রাস্তা দিয়্যা(দিয়ে) গজঘণ্টা ইউনিয়নের কয়েকটি ওয়ার্ডের মানুষ প্রত্যেকদিন যাতায়াত করে।গ্রামের মানুষ ঠিক মতো মসজিদও যেতে পারেন না। বাড়ি থাকি বাহিরে মসজিদ যাবার সময় অনেকেই পা পিছলে পড়ে যায়। এই কষ্ট-দুর্ভোগ থেকে হামরা মুক্তি চাই।
গ্রামবাসী মোজাহারুল ইসলাম (৫৫)বলেন, বর্ষাকালে নামাজ পড়তেও যাওয়া যায় না। এমন দুর্ভোগ জেনেও মেম্বার-চেয়ারম্যান কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না। যার কারণে এলাকার সবাই আজকে আবাদি জমি ছেড়ে রাস্তার ওপর ধানের চারা রোপণ করে অভিনব প্রতিবাদ করছে। 
 
গঙ্গাচড়া গজঘণ্টা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী বলেন,  রাস্তা দিয়ে আমি নিজেও চলাচল করি। বৃষ্টি হলে তো কাদা হবেই। এলাকার লোকজনের দাবীর সঙ্গে আমিও একমত। কিন্তু এখন তো ইউনিয়ন পরিষদের ফান্ড নেই। তাছাড়া রাস্তাটি এলজিইডি'র অধীনে থাকায় ব্যবস্থা নেওয়া যাচ্ছে না। 

ইত্তেফাক/ইআ