বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

বন্ধুত্ব, সে তো চিরদিনের 

আপডেট : ০৭ আগস্ট ২০২২, ০২:৪৪

বন্ধুত্বের সম্পর্ক চিরদিনের সম্পর্ক এবং মধুর সম্পর্ক। বন্ধুত্বের সম্পর্ক রক্তের সম্পর্ক নয় কিংবা কামনা বাসনা দ্বারা নিয়ন্ত্রিত বা পরিচালিত নয়। বন্ধুত্বের উৎসস্থল হলো হৃদয় এবং বন্ধুত্ব হৃদয়ের ভালোবাসা দিয়ে গড়া। তাই কবি কাজী নজরুল ইসলাম বলেছেন ‘অনাত্মীয়কে আমরা ঢাক-ঢোল পিটিয়ে সাদরে গ্রহণ করি; কিন্তু বন্ধুকে হৃদয় দিয়ে এবং হৃদয়ের হাসি দিয়ে বরণ করি।’ 

বন্ধুত্ব কী, তার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে বিভিন্ন জন বিভিন্ন মতামত ব্যক্ত করেছেন। ফ্রান্সিস বেকন বলেছেন, ‘ভালোবাসা হলো লাল গোলাপের মতো; কিন্তু বন্ধুত্ব হচ্ছে ছায়াময়ী বৃক্ষের মতোই জীবনের প্রতি দিনের প্রয়োজন এবং বাস্তবতার মধ্যেই তার সরল বিচরণ।’ অ্যারিস্টটল বলেছেন, ‘একজনও বন্ধুর মতো বন্ধু থাকা পরম ভাগ্যের ব্যাপার।’ কেউ কেউ বন্ধুত্বকে সোনালি সূতার সঙ্গে তুলনা করে বলেছেন, ‘বন্ধুত্ব হচ্ছে সোনালি সুতো, যা হৃদয়কে একসূত্রে গেঁথে দেয়।’ আবার কেউ কেউ বলেছেন, ‘ভিন্ন দেহে অভিন্ন আত্মা তারই নাম বন্ধুতা।’ বন্ধুত্ব নিয়ে ইংরেজিতে একটি কথা আছে, ‘only Unsinkale ship is FRIENDSHIP’ পৃথিবীর সব সম্পর্কের জাহাজ সাগরের জলে তলিয়ে গেলেও বন্ধুত্বের জাহাজ কখনো সাগরের জলে তলিয়ে যায় না। তাই বলা হয়, বন্ধু মরে যায়, কিন্তু বন্ধুত্ব মরে না। আজকাল যুবক-যুবতীরা বন্ধুত্বের ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে বলেন, ‘একদিন ভরা নদী শুকিয়ে যাবে, ফুলও ঝরে যাবে, তবু আমার বন্ধুত্ব চিরদিন রয়ে যাবে।’ সত্যিই তো! বন্ধুত্ব কখনো শেষ হয়ে যায় না। বন্ধু হারিয়ে যায়, বন্ধুত্ব হারিয়ে যায় না। বন্ধু মরে যায়, বন্ধুত্ব মরে না।

খ্রিষ্টধর্মের প্রবর্তক যীশু খ্রিষ্ট বলেন, ‘বন্ধুদের জন্যে প্রাণ দেওয়ার চেয়ে বড় ভালোবাসা মানুষের আর কিছুই নেই।’ তিনি মানুষকে বন্ধু বলেছেন। তিনি বলেছেন, আমি তোমাদের আর দাস বলছি না, কারণ মনিব কি করছেন তা তো দাসের জানার কথা নয়। আমি পিতার কাছ থেকে যা জেনেছি তা তো তোমাদের জানিয়েছি। তিনি বন্ধুর জন্য ক্রুশে নিজ জীবন বিসর্জন দিয়েছেন। তার আদর্শে অনেকেই অনুপ্রাণিত হয়ে তার মতো বন্ধুর উপকার করেছেন। এমন উপকারী একজনের নাম হলো ম্যাক্সিমিলিয়ান কল্বে। অনেক যুদ্ধবন্দিদের সঙ্গে তাকেও বন্দি করা হয়েছিল। একদিন এক সেনা এমন একজনকে মৃত্যুদন্ড দেওয়ার জন্য বেছে নিল যার সংসার, স্ত্রী আছে। লোকটি স্ত্রী ও সন্তানদের কথা চিন্তা করে কাঁদতে লাগলেন। তখন সেই ম্যাক্সিমিলিয়ান এগিয়ে এসে বললেন, আমাকে মৃত্যুদণ্ড দিন। কারণ আমার তো সংসার নেই। তার যে সংসার আছে। ম্যাক্সিমিলিয়ান ছিলেন খ্রিষ্টান পুরোহিত। তিনি হাসিমুখে বন্ধুর জন্য নিজের প্রাণ বিসর্জন দিলেন। তার এ অসীম ভালোবাসা ও বন্ধুত্বের জন্য আজ তাকে সাধু বলে সম্মান জানানো হয়। মনীষীগণ বলেন, ‘বসুন্ধৈব কুটম্বকম’ অর্থাৎ কেউ শত্রু নয়, সারা জগৎই আমার বন্ধু, আমার আত্মীয়। এ নীতি ও আদর্শ গৌতম বুদ্ধ আজীবন পালন করেছেন এবং প্রচার করেছেন। তিনি মানুষকে এবং সব প্রাণীকেই ভালোবেসেছেন। প্রাণনাশের বিপক্ষে ছিলেন। তার কাছে সবাই ছিল বন্ধু, ভাইবোন এবং আত্মীয়। জনৈক এক কবি বলেন, ‘দুয়ারে দাঁড়ায়ে আছে, বন্ধু বলেছ যারে, কণ্ঠে দোলাও তার মালা। আসেনি সে ঝড় হয়ে, এসেছে দখিনা লয়ে, জানে না দিতে জ্বালা।’ আমাদের জীবনে বন্ধুর আগমন এমনই এক শান্তির বাণী নিয়ে। বন্ধু আসে হৃদয়ে প্রশান্তি নিয়ে। বন্ধু মনের জ্বালা নিভিয়ে দেয়, হৃদয়ের আকাঙ্ক্ষা পূরণ করে, মনের ক্ষুধা তৃষ্ণা মিটিয়ে দেয়।

বন্ধু কখনো পুরোনো হয় না। বন্ধুত্ব সে তো চিরদিনের এবং সে তো চিরঞ্জীব। এ কথাটি সুন্দর করে ইংরেজিতে বলা হয়, ‘Make a new friend, keep the old/One is silver, the other is gold’

প্রকৃত বন্ধু আরেক বন্ধুর কথা সর্বদাই চিন্তা করে এবং মঙ্গল বিবেচনা করে। প্রকৃত বন্ধু বন্ধুর ভালো কাজে অনুপ্রেরণা দেয়, তেমনি তার দোষত্রুটিও বলে দেয়—‘Only your real friends tell you when your face is dirty. Life without a friend is like death without a witness. Walking with a friend in the dark is better then walking alone in the light.’

বন্ধুত্বের বহু নজির সোনালি অক্ষরে লেখা আছে ইতিহাসের পাতায় পাতায়। বন্ধুত্বের অমর বন্ধন ছিল সকল কালে, সকল যুগে। মাদার তেরেজা ও পোপ দ্বিতীয় জন পলের বন্ধুত্ব, আসিসির সাধু ফ্রান্সিস ও সাধ্বী ক্লারার বন্ধুত্ব আজও পৃথিবীর বুকে অমর হয়ে আছে। এছাড়াও ধমী‌র্য় পুস্তক বাইবেলে আছে বেশ কিছু উদাহরণ। যেমন রাজা দাউদ ও যোনাথনের বন্ধুত্ব। যোনাথনের বাবা রাজা শৌল দায়ুদকে মারার জন্য চেষ্টা করেন কিন্তু যোনাথনের কারণে বেঁচে যান দায়ুদ। কারণ যোনাথন তার বাবা পরিকল্পনা ও অবস্থা সম্পর্কে বলে দিতেন।

আজ বন্ধু দিবস স্মরণ করিয়ে দেয়, দূরের বন্ধু, কাছের বন্ধু, দেখা বন্ধু, অদেখা বন্ধু ও ভুলে যাওয়া বন্ধুদের। বন্ধু দিবস আহ্বান জানাই, বন্ধুত্বের বন্ধন দিয়ে সবাইকে কাছে টানার এবং সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব গড়ে তোলার। বন্ধু দিবস আসে দখিনা নিয়ে, বন্ধুত্বের সুবাতাস নিয়ে। সে ঝড় হয়ে নয়, কাঁটা হয়েও নয়। সে আসে ভালোবাসা নিয়ে। ভালোবাসাই বন্ধুত্বকে জীবন দেয় এবং বাঁচিয়ে রাখে। তাই আজ এই বন্ধু দিবসে আমি এই কথা বলতে চাই—বন্ধুত্ব, সে তো চিরদিনের, এই কথা মনে রেখো যত দূরে যাও, যত ব্যথা পাও ভুলে যেও নাকো।

লেখক : খ্রিষ্টান পুরোহিত

ইত্তেফাক/ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন