শনিবার, ২০ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

আজ দ্বিতীয় ওয়ানডে

জিম্বাবুয়ে গেলেন নাঈম-এবাদত

আপডেট : ০৭ আগস্ট ২০২২, ০৩:৫৫

ডাক পেয়েছেন ঠিকই। কিন্তু খেলতে পারবেন তো নাঈম শেখ ও এবাদত হোসেন। আজ দ্বিতীয় ওয়ানডের আগে আগেই হারারেতে পৌঁছাবেন তারা। লম্বা ভ্রমণ, ক্লান্তি কাটিয়ের উঠার আগেই তাদের খেলালে বরং অবাকই করবে টিম ম্যানেজমেন্ট।

টি-২০ সিরিজে আঙুলের ইনজুরিতে পড়ে মাঝপথেই সফর শেষ হয়ে যায় নুরুল হাসান সোহানের। গত পরশু প্রথম ওয়ানডে হ্যামস্ট্রিং ইনজুরিতে পড়ায় একই পরিণতি লিটন দাসের। সফরে বাকি রয়েছে আর দুটো ওয়ানডে। তাই তাদের বিকল্প হিসেবে ডাক পড়ে ওপেনার নাঈম ও পেসার এবাদত হোসেনের। প্রথম ওয়ানডেতে ব্যাটিং করতে গিয়ে আঙুলে ব্যথা পান মুশফিকুর রহিম। পেসার শরীফুল ইসলামকে নিয়েও শঙ্কা আছে। প্রথম ওয়ানডেতে পায়ে ব্যথা পাওয়ার পর ওভারের কোটা পূর্ণ করতে পারেননি এই বাঁহাতি।

তাই এবাদতকে বিকল্প হিসেবে রাখা। যদিও হাসান মাহমুদ ওয়ানডে দলে এর আগেও ডাক পেয়েছেন। কিন্তু কখনো রঙিন পোশাকে জাতীয় দলকে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ হয়নি। বাংলা টাইগার্সের হয়ে অনুশীলন করতে গতকালও খুলনায় ছিলেন তিনি। কিন্তু রাতে বিসিবির ফোন আসার পরপরই অবাক এই ডানহাতি পেসার, ‘আমি বাংলা টাইগার্সের হয়ে এইচপির বিপক্ষে খেলার জন্য খুলনায় ছিলাম। ওখানে সাদা বলের জন্য গিয়েছিলাম। তাই সাদা বলের অনুশীলনটাই করে এসেছি। গতকাল রাতে কল এসেছে জাতীয় দলে যোগ দিতে হবে। শুনে খুব খুশি হয়েছি। প্রথমে যাওয়ার কথা ছিল, যাওয়া হয়নি, মাঝখানে যাচ্ছি। একটু অবাক করার মতো।’ লাল বলে নিয়মিত সদস্য এবাদত। এবার সাদা বলেও খেলতে মুখিয়ে তিনি। আত্মবিশ্বাসটা তার ঠিকই তুঙ্গে, ‘ইনশা আল্লাহ দেশের জন্য ভালো কিছু করার চেষ্টা করব। সুযোগ পেলে কাজে লাগানোর চেষ্টা করব। আমি অনুশীলনের মধ্যে আছি। অনুশীলনের মধ্যে না থাকলে মানসিকভাবে পিছিয়ে থাকতাম। তাই আত্মবিশ্বাস ভালো আছে।’

সিরিজের আগে তামিমের সঙ্গে কথা হয়েছিল এবাদতের, ‘গত ২ বছর ধরে পেস বোলিং ইউনিট উন্নতির চেষ্টা করছে। তাসকিন, মুস্তাফিজ, শরিফুল, আমি, খালেদ—সবাই ভালো করছে। আমরা হাল ছাড়ব না। উন্নতির গ্রাফ আরো ওপরের দিকে নিয়ে যেতে চাই। এখন পর্যন্ত কারো সঙ্গে কথা হয়নি। তামিম ভাইয়ের সঙ্গে সিরিজের আগে কথা হয়েছে। উনি অনেক প্রেরণা দিয়েছেন।’ টি-২০ সিরিজ ও প্রথম ওয়ানডেতে হেরে দল এমনিতেই ব্যাকফুটে। তবে দুই-একটা ম্যাচ খারাপ যাওয়ায় নিজেদের খারাপ দল হিসেবে মানতে নারাজ এবাদত, ‘ওয়ানডেতে দল হিসেবে আমরা খুবই ভালো। ২-১টা ম্যাচ খারাপ হলে আমরা দল হিসেবে খারাপ? আমরা দল হিসেবে ভালো। আমরা বাকি দুই ম্যাচ জিতলে সিরিজ তো আমাদেরই।’

এবাদতের অভিজ্ঞতা না থাকলেও ওয়ানডেতে দুটো ম্যাচ খেলেছেন নাঈম। কিন্তু জাত চেনাতে পারেননি এই বাঁহাতি ওপেনার। এক ইনিংসে ব্যাট করার সুযোগ পেয়ে রান করেছেন কেবল ১। কিছুদিন আগে ছিলেন টি-২০ দলের নিয়মিত সদস্য। কিন্তু অতিরিক্ত ডট বল খেলার প্রবণতা তাকে ইতিমধ্যেই দল থেকে ছিটকে দিয়েছে

ইত্তেফাক/ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন