শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

শুরুতেই চাপের মুখে জিম্বাবুয়ে

আপডেট : ১০ আগস্ট ২০২২, ১৮:২৪

২ ওভারে ২ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের দারুণ শুরু। শুরুতেই জোড়া ধাক্কা খেয়েছে জিম্বাবুয়ে। প্রথম ওভারেই ওপেনার তাকুদজোয়ানাশে কাইতানোকে (০) লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন বাংলাদেশের পেসার হাসান মাহমুদ। পরের ওভারে আরেক ওপেনার তাদিওয়ানাশে মারুমানি (১) বোল্ড হয়ে ফেরেন মেহেদী হাসান মিরাজের বলে।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৯ ওভারের মধ্যে ৫ উইকেট হারিয়েছে জিম্বাবুয়ে। তাইজুল ইসলামের আর্ম বলে এলবিডব্লু হয়ে ফিরেছেন কাইয়া। প্রথম নবম ওভারে পঞ্চম উইকেট হারিয়ে ফেলেছে জিম্বাবুয়ে। ১০ ওভার শেষে তাদের স্কোর ৩২/৫।

এর আগে সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে টস হেরে আগে ব্যাটিং করে ৯ উইকেটে ২৫৬ রান তুলেছে বাংলাদেশ। সফরকারীদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮১ বলে ৮৫ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেছেন আফিফ হোসেন। ওপেনার এনামুল হক বিজয়ের ব্যাট থেকে এসেছে ৭১ বলে ৭৬ রান।

ছন্দপতনে ৩ রানে ৩ উইকেট হারানো বাংলাদেশকে দিশা দেখাচ্ছিলেন এনামুল হক বিজয়। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে নিয়ে ভালো একটা জুটি গড়েছিলেন এই ব্যাটার। কিন্তু বিদায় নিলেন নিরীহ এক বলেই। উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেওয়ার আগে ৭১ বলে ৬ চার ও ৪ ছয়ে ৭৬ রান করেন তিনি।

তামিমের বিদায়ের পর অল্প সময়ের মধ্যেই উইকেট হারান নাজমুল হাসান শান্ত ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দুইজনই শূন্য রানে বিদায় নেন। বিপদে পড়া বাংলাদেশের হয়ে একপ্রান্তে লড়াই করে গেছেন বিজয়। ৪৮ বলে ৩ ছক্কা ও ৪ বাউন্ডারিতে পূর্ণ করেন অর্ধশতক। মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে ৯০ বলে ৭৭ রানের জুটি গড়ে আশা জাগান তিনি। সেঞ্চুরির পথে হাঁটতে থাকা বিজয় শেষ পর্যন্ত আর পেরে ওঠেননি।  

আফিফ হাত খুলে খেলার চেষ্টা করেন। তবে ৬৯ বলে ৩৯ রানে মাহমুদউল্লাহ আউট হলে তিনি কিছুট চাপে পড়ে যান। এই জুটি থেকে আসে ৫৭ বলে ৪৯। আফিফ শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ৮১ বলে ৮৫ রানে। ৪ মেরেছেন ছয়টি আর ৬ দুইটি। তার সঙ্গে একে একে আউট হন মিরাজ (১৪) তাইজুল (৫) হাসান (০) ও মোস্তাফিজ (০)। ৯ উইকেটে ২৫৬ রান করে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের হয়ে ২ উইকেট করে নেন ইভান্স ও জংওয়ে। 

ইত্তেফাক/এএইচপি