বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

শেখ হাসিনা যা বলেন তা করেন : দীপু মনি

আপডেট : ১৫ আগস্ট ২০২২, ০৩:৪৪

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী আরো কঠিন করে সাহসের সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকেই ধারণ করে এগিয়ে চলেছেন। তার দেখানো পথ, তার স্বপ্নগুলো বাস্তবায়নে এগিয়ে চলেছেন। তাই পিতার মতোই শেখ হাসিনাকে হত্যার জন্য বারবার চেষ্টা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ২১ বার চেষ্টা করা হয়েছে। এই ঘাতকেরা সব একই লোক। শেখ হাসিনা যা বলেন তা করেন। বলেছিলেন যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করবেন, তিনি করেছেন। আমরাও বিশ্বাস করিনি সত্যিই সেটা হবে। আমরা চেয়েছি হোক। সেটা বাস্তবায়ন হয়েছে। তারাই তো সবচেয়ে শক্তশালী ছিলেন, তার পরেও শেখ হাসিনা সেই বিচার করেছেন। বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারও হয়েছে। যদিও বেশ কয়েক জন বিভিন্ন দেশের আশ্রয়ে আছে।’

গতকাল রবিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে ‘অশ্রুঝরা আগস্টে শোকসভা শক্তির অন্বেষা’ শীর্ষক সেমিনারে এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথি ছিলেন। অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বাংলাদেশ প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরাম। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কলামিস্ট ও সিনিয়র সাংবাদিক বিভুরঞ্জন সরকার।

সভাপতির বক্তব্যে বাংলাদেশ প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, ‘পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে সামরিক অভ্যুত্থান হয়েছে, ক্ষমতা বদলের অভ্যুত্থান, কিন্তু ১৫ আগস্টের অভ্যুত্থান ছিল বাংলাদেশ নামের রাষ্ট্রটাকেই বদলে দেওয়ার ষড়যন্ত্র। আমি মনে করি, সমস্ত দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্রকারী মিলে এমন ঘটনা ঘটিয়েছে দেশটাকে পূর্ব পাকিস্তান বানানোর জন্য। সেই দিনটির পর ১৯৮১ সালে দেশটি আবারও প্রাণ ফিরে পায় জননেত্রী শেখ হাসিনার আগমনের পর।’

স্বাগত বক্তব্যে বাংলাদেশ প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাস উপস্থিত অতিথিদের ধন্যবাদ দিয়ে বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য প্রগতিশীল কলামিস্ট তৈরি করা। প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১০ জন প্রগতিশীল কলামিস্ট তৈরি করার লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি।’

কলামিস্ট ও সিনিয়র সাংবাদিক বিভু রঞ্জন সরকার সেমিনারের প্রবন্ধ উপস্থাপন করে বলেন, ‘পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার জন্যই এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছিল একদল পথভ্রষ্ট মানুষ। প্রধানমন্ত্রী এই ন্যক্কারজনক হত্যাকাণ্ডের দাঁতভাঙা জবাব দিয়েছেন। পঁচাত্তরের হত্যাকাণ্ডের পেছনের সমর্থনদাতাদের এখনো চিহ্নিত করা হচ্ছে, ধাপে ধাপে শাস্তি দেওয়া হচ্ছে। তারা এখনো ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে।’ নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘১৫ই আগস্ট আমার জন্য অত্যন্ত শোকাবহ দিন, যা আমি বলে বোঝাতে পারব না। অথচ বঙ্গবন্ধু কখনোই ক্ষমতায় থাকার জন্য কাজ করেন নাই। তিনি আজীবন দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য কাজ করেছেন।’

সেমিনারে আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মশিউর রহমান, জাতীয় কবি নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর, সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি এম নজরুল ইসলাম, বাংলাদেশ কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক মো. আবদুর রশীদ ও প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরামের সহসভাপতি ড. রাশিদ আসকারী।

ইত্তেফাক/ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন