রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

গঙ্গাচড়ায় কমছে হাসকিং মিল

আপডেট : ১৭ আগস্ট ২০২২, ২০:২৭

বেশ কয়েক বছর ধরে সরকারি খাদ্যগুদামে অটোমিল থেকে চাল নেওয়া হচ্ছে। এ অবস্থায় চরম বিপাকে পড়েছেন রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার হাসকিং মিলাররা। চুক্তি অনুযায়ী তাদের নিজস্ব মিল থেকে চাল তৈরি করে খাদ্যগুদামে সরবরাহ করার কথা থাকলেও ১০০ ভাগ মরা চাল মুক্ত চাল সরবরাহ করা কোনো হাসকিং মিলের পক্ষে সম্ভব নয় বলে জানান মিলমালিকরা। 

এ কারণে চুক্তিবদ্ধ চাল সরবরাহ করতে অটো মিলারদের শরণাপন্ন হতে হচ্ছে তাদের। এতে হাসকিং মিলারদের বাড়তি খরচ হলেও মুনাফা মিলছে না। ফলে অনেক হাসকিং মিলমালিকরা চালকলগুলো বন্ধ করে দিচ্ছেন। 

ভাই ভাই চালকলের মালিক নওয়াব আলী জানান, হাসকিং মিল আর চলে না। তাই বন্ধ করতে বাধ্য হচ্ছেন। বাধ্য হয়ে তারা বেশি দামে অটোরাইস মিল থেকে চাল তৈরি করে খাদ্যগুদামে সরবরাহ করে আসছেন। তা না হলে তাদের চুক্তি বাতিল হবে। এমনকি কর্তৃপক্ষ বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার কথাও বলা হয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার বেশ কয়েকটি মিল বন্ধ হয়ে গেছে। এসব চালকলগুলো আগাছায় পরিপূর্ণ। এ বিষয়ে উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা রইচ উদ্দিন জানান, বর্তমানে উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে ৭০টি হাসকিং মিল রয়েছে। কিছু আবার কখনো চালু থাকে, কখনো বন্ধ। 

ইত্তেফাক/এআই