রোববার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

নিখোঁজের ১৪দিন পরও সন্ধান মেলেনি মাদ্রাসাশিক্ষার্থীর

আপডেট : ২৫ আগস্ট ২০২২, ১১:০০

শায়েন্তাগঞ্জে নিখোঁজের ১৪দিন পরও সন্ধান মেলেনি মাদ্রাসা শিক্ষার্থী সাকিবুল হাসান নিশাতের। শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার সুতাং বাজারস্থ শুকুর চাঁন বিবি সুন্নীয়া হাফিজিয়া মাদ্রসার নাজরাত শ্রেণিতে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী হাসিবুল হাসান নিশাত (১১)। 

সে মাধবপুর উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের মো. খোকন মিয়া ও মোছা. সাফিয়া খাতুনের ছেলে। সে মাদ্রাসার আবাসিক ছাত্রাবাসে থেকে লেখা পড়া করতো এবং মাদ্রাসার পার্শবর্তী বাড়িতে গিয়ে খাবার খেত। গত ১১ আগস্ট (বৃহস্পতিবার) সকাল ১০টায় কাউকে কিছু না জানিয়ে মাদ্ররাসা থেকে নিখোঁজ হয় সে। এরপর থেকে তার পরিবারসহ আত্মীয় স্বজনেরা বিভিন্ন স্থানে তাকে খোঁজে বেড়াচ্ছেন কিন্তু এখনো তার কোনো সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না। ছেলে নিখোঁজ হওয়ায় মা সাফিয়া খাতুন পাগলপ্রায়। এ ব্যাপারে গত ১৬ আগস্ট শিক্ষার্থী সাকিবুল হাসান নিশাতের মা সাফিয়া খাতুন শায়েস্তাগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

সাকিবুল হাসান নিশাতের মা সাফিয়া খাতুন জানান, গত ১২ আগস্ট শুক্রবার তিনি ছেলের খবর জানতে মাদ্রাসার পার্শ্ববর্তী লজিং বাড়ির পরিবারের নারীকে ফোন করেন। এ সময় তিনি জানতে পারেন, তার ছেলে গত ১০ আগস্ট সকালে লজিং বাড়ি থেকে তার নিজের খাবার নিয়ে আসলে আর লজিং বাড়িতে যায়নি। এখবর শুনে তিনি মাদ্রাসার শিক্ষক হাফেজ আব্দুল হালিমকে (২৬) ফোনে ছেলের খবর জানতে চান। এসময় মাদ্রসার শিক্ষক সাফিয়া খাতুনকে জানান, সাকিবুল হাসান নিশাত গত ১২আগষ্ট সকাল থেকেই মাদ্রসায় অনুপস্থিত রয়েছে। মাদ্রাসার অন্যান্য শিক্ষার্থীর কাছ থেকে তিনি জানতে পারেন, সে ১২ আগস্ট বৃহস্পতিবার বাড়িতে চলে গেছে। এসময় হাসিবুল হাসান নিশাতের মা সাফিয়া খাতুন ছেলে নিখোঁজ হওয়ার ব্যাপারে নিশ্চিত হয়ে পরদিন ১৪আগস্ট শনিবার মাদ্রাসায় যান। এর পর  থেকেই সাফিয়া খাতুনসহ তার পরিবারের লোকজন  বিভিন্ন স্থানে ছেলেকে খোঁজে না পেয়ে ১৬আগস্ট শায়েস্তাগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। 

মাদ্রসার শিক্ষক হাফেজ আব্দুল হালিম জানান, তিনি গত ১০আগস্ট বুধবার মাদ্রাসা ক্লাস শেষে নিজ বাড়ি বি-বাড়িয়া জেলার নাসিরনগর থানার রুস্তমপুর গ্রামে চলে যান। যাবার  সময় মাদ্রাসার সিনিয়র শিক্ষার্থীদের ওপর লেখা পড়ার দায়িত্ব বুঝিয়ে দেন। তিনি বাড়ি থেকে ১৩আগস্ট শুক্রবার মাদ্রাসায় এসে হাসিবুল হাসান নিশাতের ব্যাপারে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে জানতে পারেন সে ১২আগস্ট ভোরে মাদ্রাসা থেকে কাউকে কিছু না বলে চলে যায়। এর পর থেকেই সে নিখোঁজ হয়। 

তদন্ত কর্ম কর্তা শায়েস্তাগঞ্জ থানার এস আই সাইদুর রহমান জানান, তিনি শিক্ষার্থী হাসিবুল হাসান নিশাতকে খোঁজে বের করতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান অব্যাহত রেখেছেন। তবে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন, এ ব্যাপারে নিখোঁজরত শিক্ষার্থীর পরিবারের লোকজন, মাদ্রসার শিক্ষক কেউ আজ পর্যন্ত ও থানায় খোঁজ খবর রাখেননি। 

ইত্তেফাক/কেকে