বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

নগদ-এর সৌরবিদ্যুৎ ব্যবহারের প্রশংসায় প্রতিমন্ত্রী পলক-বিপু

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০০:৪১

জাতীয় গ্রিডের বিদ্যুৎ ব্যবহার না করে বরং নিজস্ব উদ্যোগে সৌর বিদ্যুতের আলোয় রাতে বিলবোর্ড আলোকোজ্জ্বল রাখছে ডাক বিভাগের মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস নগদ। নগদ-এর এমন উদ্যোগকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন সরকারের দুই প্রতিমন্ত্রী। বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক তাদের ফেসবুক পেজে নগদ-এর উদ্যোগকে স্বাগত জানান।

সম্প্রতি ফেনীসহ দেশের কয়েকটি স্থানে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বিলবোর্ডকে সৌর বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত করে নগদ। সরকারের বিদ্যুৎ ব্যবহার হ্রাস করার অংশ হিসেবেই ওই উদ্যোগ নেয় নগদ।

আর সেই বিষয়টিকেই প্রশংসায় তুলে এনেছেন দুই প্রতিমন্ত্রী। ফেনীর ওই বিলবোর্ডের একটি ছবি ফেসবুকে পোস্ট করে প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ লিখেছেন, ‘ফেনীর এই বিলবোর্ডটি চলছে সৌরবিদ্যুতে। প্রকৃতিবান্ধব জ্বালানি ব্যবহার, সেই সঙ্গে বিদ্যুতের উপর চাপ কমাতে নগদ-এর এই উদ্ভাবনী উদ্যোগকে স্বাগত জানাই।’ পরে নিজের ফেসবুক পেজ থেকে একই রকম পোস্ট করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

বাংলাদেশ সরকার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে, ২০৪১ সালের মধ্যে তারা প্রয়োজনের শতকরা ৪১ ভাগ বিদ্যুৎ নবায়নযোগ্য শক্তির মাধ্যমে উৎপাদন করবে। এই লক্ষ্যের কথা উল্লেখ করে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, অনান্য প্রতিষ্ঠানও নগদ-এর মত এমন উদ্যোগ নেবে বলে তিনি আশা করছেন।

সকলকে উৎসাহিত করে পলক লিখেছেন, ‘আমরা ২০৪১ সালের মধ্যে ক্লিন এনার্জি সোর্স থেকে ৪০ ভাগ বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যে কাজ করছি। এজন্য প্রয়োজন সবার অংশগ্রহণ। সৌরশক্তির এই বিলবোর্ডটি আশা করি অন্য প্রতিষ্ঠানগুলোকে সৃজনশীল বিদ্যুৎ ও জ্বালানি ব্যবস্থাপনায় উৎসাহিত করবে।

জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার সাথে তাল মেলাতে এবং নবায়নযোগ্য শক্তির ব্যবহারকে উৎসাহিত করতে সৌরশক্তিচালিত বিলবোর্ড স্থাপনের উদ্যোগ নেয় নগদ। 
জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার ১৭টি লক্ষ্যের একটি হলো সাশ্রয়ী ও দূষণমুক্ত জ্বালানি ব্যবহার। বাংলাদেশ রাষ্ট্র হিসেবে এই ধরণের জ্বালানি ব্যবহার করার ব্যাপারে যথেষ্ট পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। সেইসব পদক্ষেপের মধ্যে অন্যতম হলো নবায়নযোগ্য শক্তির ব্যবহার। আর এই কাজে উৎসাহ দিতে ‘নগদ’ স্থাপন করছে সৌরশক্তি চালিত বিলবোর্ড। 

নবায়নযোগ্য শক্তি বলতে এমন সব শক্তির উৎসকে বোঝানো হয়, যা বারবার ব্যবহার করা সম্ভব। বিভিন্ন প্রাকৃতিক উৎস যেমন, সূর্যের আলো ও তাপ, বায়ুপ্রবাহ, জলপ্রবাহ, জৈবশক্তি (জৈবভর), ভূ-তাপ, সমুদ্রতরঙ্গ, সমুদ্র-তাপ, জোয়ার-ভাটা, শহুরে আবর্জনা, হাইড্রোজেন ফুয়েল সেল ইত্যাদি নবায়নযোগ্য শক্তির উৎস হিসেবে বিবেচিত হয়। আশা করা হয় যে, ২০৫০সাল নাগাদ মানুষের বিদ্যুতের চাহিদার ৮৫ শতাংশ নবায়নযোগ্য শক্তি বা রিনিউয়েবল এনার্জি থেকে পূরণ করা হবে। 

নবায়নযোগ্য শক্তি ব্যবহারের মত অনেক ইতিবাচক পদক্ষেপের সাথে ইতিমধ্যে সংযুক্ত আছে ‘নগদ’। বাংলাদেশ ডাক বিভাগের এই মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস মাত্র তিন বছরে সাড়ে ছয় কোটি গ্রাহকের বিশাল এক পরিবারে পরিণত হয়েছে। ‘নগদ’-এর দৈনিক লেনদেন গড়ে সাড়ে সাত শ কোটি টাকা; যা সর্বোচ্চ এক হাজার কোটি টাকাও স্পর্শ করেছে। বাংলাদেশকে একটি ক্যাশলেস সোসাইটি করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে ‘নগদ’।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি