সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপ

ইতিহাস গড়া সাফের সেরা সাবিনা

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২১:৫২

সাফের আসরের শ্রেষ্ঠত্ব! ২০০৩ সালের ছেলেদের সাফের পর যেন এই বাক্যটি যেন ভাবনারও অবান্তর। তবে দুঃসাহস দেখিয়েছে বাংলার মেয়েরা। শুধু স্বপ্নই দেখাননি সাবিনা-সানজিদারা, হিমালয়ের দেশে গিয়ে সাফের শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট মাথায় তুলেই ছেড়েছে বাংলার বাঘিনীরা। বাংলাদেশকে সাফের শিরোপা এনে দিতে সামনে থেকেই নেতৃত্ব দিয়েছেন অধিনায়ক সাবিনা খাতুন।  তার ফলস্বরুপ পেয়েছেন টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কার। 

এই ছুটন্ত সাবিনাকে থামাতে পারেনি কোনো প্রতিপক্ষই। ছবি- বাফুফে

সাফের ট্রফি আর সেরা খেলোয়াড়ের পাশপাশি বাংলাদেশের অধিনায়কের হাতে উঠেছে টুর্নামেন্টের সেরা গোলদাতার গোল্ডেন বুটও। টুর্নামেন্টজুড়ে দুই হ্যাটট্রিকসহ করেছেন মোট ৮ গোল। শুধু যে গোল করেছেন তাই নয়, গোল করিয়েছেনও সতীর্থদের দিয়ে। 

দলকে শিরোপা এনে দেওয়ার লক্ষ্যেই দৃঢ় সংকল্প ছিলো সাবিনা। ছবি- বাফুফে

বাংলাদেশের স্বপ্নপূরণের ইতিহাসে রঙ্গশালার সবুজ গালিচায় সবচেয়ে বড় কূশীলব হিসেবেই কাজ করেছেন বাংলাদশের গোল্ডেন গার্ল সাবিনা। সামনে থেকে নেতৃত্ব কিভাবে দিতে হয় সেটি যেন পায়ের ছন্দেই বুঝিয়ে দিয়েছেন সাবিনা। টুর্নামেন্টে ৮ গোল করে হয়েছেন সর্বোচ্চ গোলদাতা।

মালদ্বীপের বিপক্ষে জোড়া গোল দিয়ে শুরু, তারপর পাকিস্তানের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে গোল পাননি তবে সতীর্থদের দিয়ে গোল করিয়েছেন বাংলার অধিনায়ক। 

সতীর্থদের এক সুতোয় বেধে রেখেই সাফল্য তুলে এনেছেন অধিনায়ক। ছবি- বাফুফে

ভারতের বিপক্ষের গোলখরার ঝালটা সেমিফাইনালে ভূটানের বিপক্ষে মিটিয়েছেন সাবিনা।  করেছেন হ্যাটট্রিক, পাশাপাশি গোল করিয়েছেন সতীর্থদের দিয়ে। ফাইনালেও দলকে দিয়েছেন সামনে থেকে নেতৃত্ব। আক্রমণ গড়া থেকে শুরু করে দলের দ্বিতীয় গোলের কারিগর বাংলাদেশের অধিনায়কই।

সাবিনাদের হাত ধরেই বাংলার ফুটবলে ফিরে আসুক সোনালি দিনের ছোঁয়া। দোর্দণ্ড প্রতাপে সাফের মুকুট মাথায় তোলার পর তাদের নিয়ে এমন প্রত্যাশা করতেই পারে বাংলার ফুটবলপ্রেমীরা।

ইত্তেফাক/এসএস

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন