বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

২৮ বছরেও গ্রেড বদলায়নি থানা সহকারী শিক্ষা অফিসারদের 

আপডেট : ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:৩৪

বিভিন্ন সময়ে প্রাথমিক শিক্ষার বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা ও শিক্ষকদের গ্রেড পরিবর্তন হলেও ২৮ বছর ধরে গ্রেড বদলায়নি সহকারী উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারদের (এইউইও/এটিইও) পদ। ফলে ২ হাজার ৬০১ জন সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তার মধ্যে রয়েছে হতাশা। এ বিষয়টি বিবেচনায় এনে গ্রেড উন্নীত এবং পদোন্নতির দাবিতে সরব হয়েছেন তারা। স্মারকলিপি দিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোতে। 

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যারা পাঠদান করেন, তাদের তত্ত্বাবধানের সার্বিক দায়িত্ব থাকে এইউইও বা এটিইওদের। এই পদটি বর্তমানে ১০ গ্রেডে রয়েছে, যা দীর্ঘ ২৮ বছর ধরে রয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের দাবি, সীমিত করে দেওয়া হয়েছে তাদের পদোন্নতির সুযোগও। সহকারী শিক্ষা অফিসারদের দশম গ্রেড থেকে নবম গ্রেডে উন্নীত করার পাশাপাশি ১০০ ভাগ পদোন্নতির সুযোগ প্রদানের দাবি জানিয়েছেন তারা।

সংশ্লিষ্টদের দেওয়া তথ্য মতে, ১৯৯৪ সালে এইউইও পদটি দশম গ্রেডে উন্নীত করা হয়। সে সময় তার অধস্তন প্রধান শিক্ষক পদটি ১৪তম গ্রেডে এবং সহকারী শিক্ষক পদটি ১৮তম গ্রেডে ছিল। প্রধান শিক্ষক পদটি তিন দফায় উন্নীত করার ফলে ২০১৪ সালে ১১তম গ্রেড এবং সহকারী শিক্ষক পদটি চার দফায় ২০২০ সালে ১৩তম গ্রেডভুক্ত হয়। একই সময়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার পদটি ৯ম গ্রেড থেকে ষষ্ঠ গ্রেডে, পিটিআই সুপারিনটেনডেন্ট পদটি ৯ম গ্রেড থেকে ষষ্ঠ গ্রেডে এবং পিটিআই ইন্সট্রাক্টর পদটি তৃতীয় শ্রেণি থেকে ৯ম গ্রেডে উন্নীতকরণ হয়েছে। কিন্তু দীর্ঘ ২৮ বছর ধরে সহকারী উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসার পদটি দশম গ্রেডেই রয়েছে।

এদিকে ১৯৮৫ সালের নিয়োগবিধি অনুযায়ী উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার পদ থেকে উপজেলা শিক্ষা অফিসার পদে পদোন্নতির সুযোগ ছিল ৫০ শতাংশ। কিন্তু ১৯৯৪ সালে সেটি কমিয়ে করা হয়েছে ২০ শতাংশ। অথচ সহকারী শিক্ষা অফিসার ও শিক্ষা অফিসার পদে নিয়োগের যোগ্যতা ও পদ্ধতি একই।

বাংলাদেশ সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মো. সালাহউদ্দিন আহমেদ বলেন, সহকারী শিক্ষা অফিসারকে নানা কাজ করতে হয়। তার অধীনে প্রায় ৩০ জন প্রধান শিক্ষক থাকেন। থাকেন ১৬০ থেকে ২০০ জন সহকারী শিক্ষকও। তাদের ছুটি মঞ্জুর, অ্যাকাডেমিক তত্ত্বাবধান, মনিটরিং ও মেন্টরিংয়ে সার্বিক সহযোগিতা করে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করতে হয়। তাই এখন সময়ের দাবি এ পদটি ৯ম গ্রেডে উন্নীত করা।

ইত্তেফাক/ইআ