শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

চট্টগ্রামের হোটেল রেস্তোরাঁর খাবারে রাসায়নিক রং শনাক্ত, জনস্বাস্থ্য নিয়ে বিশেষজ্ঞদের উদ্বেগ

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:০১

মহানগরীতে বিভিন্ন হোটেল রেস্তোরাঁয় তৈরি খাবারে কাপড়ের রাসায়নিক রং মেশানোর তত্পরতা আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এসব খাবার খেয়ে জনসাধারণ দুরারোগ্য ব্যাধিসহ জটিল পেটের পীড়ায় আক্রান্ত হচ্ছেন। দীর্ঘদিন ধরে হোটেল রেস্তোরাঁয় বিভিন্ন সরকারি সংস্থার অভিযান সত্ত্বেও খাবারে রাসায়নিক রং মেশানো তত্পরতা বন্ধ করা সম্ভব না হওয়ায় চিকিত্সা বিশেষজ্ঞরা গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

এদিকে, গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ে এক অভিযানেও বিভিন্ন হোটেল রেস্তোরাঁয় খাবারে রাসায়নিক রং যা কাপড়ে রং করার কাজে ব্যবহূত হয় তা শনাক্ত হয়েছে।

গতকাল সকালে পরিচালিত অভিযানে এ ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা খাবারে রং মেশানোসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার বিক্রির দায়ে চারটি প্রতিষ্ঠানকে ৩৯ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। এছাড়াও খাদ্যদ্রব্যে কাপড়ের রং ও কেমিক্যাল মেশানো, নোংরা-অপরিষ্কার পরিবেশ এবং খোলা ডাস্টবিনের পাশে খাবার সংরক্ষণের দায়ে নগরীর আগ্রাবাদের জামান রেস্টুরেন্টকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। গতকাল জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের উদ্যোগে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে পরিচালিত অভিযানে এ জরিমানা করা হয়।

বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ ফয়েজ উল্যাহ বলেন, জামান রেস্টুরেন্টে অননুমোদিত রং, কেমিক্যাল মিশিয়ে খাবার তৈরি করছিল। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটির রান্নাঘর ছিল নোংরা ও অপরিষ্কার। আবার রান্না করা খাবার এনে খোলা ডাস্টবিনের পাশে সংরক্ষণ করছিল তারা। যা খুবই অস্বাস্থ্যকর। তাই প্রতিষ্ঠানটিকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, একই এলাকায় জননী ডিপার্টমেন্টাল স্টোর নামে আরেকটি প্রতিষ্ঠানে মেয়াদোত্তীর্ণ শিশু খাদ্য ও অননুমোদিত কসমেটিকস সংরক্ষণের প্রমাণ পাওয়া যায়। তাই প্রতিষ্ঠানটিকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তাছাড়া বিভিন্ন অপরাধে আগ্রাবাদ এক্সেস রোডে অবস্থিত বনফুল, ফার্মভিলে ও আলম ফার্মেসি নামে আরো তিন প্রতিষ্ঠানকে ১৯ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ইত্তেফাক/ইআ