বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ইরাকে হামলা করেছে ইরান, নিহত ১৩

আপডেট : ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৩০

ইরাকের কুর্দি অঞ্চলে ইরানের বিপ্লবী গার্ডস বাহিনী হামলা চালিয়েছে। এতে ১৩ জন নিহত হয়েছেন। বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) কুর্দি যোদ্ধাদের অবস্থান লক্ষ্য করে ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলা চালানো হয়। সংবাদ সংস্থা রয়টার্স স্থানীয় কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে একটি প্রতিবেদনে এতথ্য জানায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বর্তমানে সহিংস বিক্ষোভে উত্তাল ইরান। দেশটির কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, এই অস্থিরতার পেছনে ইরানের ভিন্নমতাবলম্বী সশস্ত্র কুর্দিদের অবদান রয়েছে। বিশেষ করে, দেশটির এক কোটির বেশি কুর্দি জনগোষ্ঠীর অধিকাংশই উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে বসবাস করেন। এমন অভিযোগের পরই হামলা করা হয়।

কুর্দিস্তানের কাউন্টার টেররিজম বিভাগের বরাত দিয়ে ইরাকের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা জানায়, ইরাকের কুর্দিস্তানের এরবিল ও সুলাইমানিয়ার কাছে চালানো হামলায় ১৩ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৫৮ জন।

ইরাকের কুর্দি সূত্রগুলো জানায়, বুধবার সকালে ইরাকের কুর্দিস্তানের সুলাইমানিয়ার কাছে ইরানি কুর্দিদের অন্তত ১০টি ঘাঁটি লক্ষ্য করে ড্রোন হামলা চালানো হয়। তবে হতাহতের বিষয়ে সূত্রগুলো বিস্তারিত কিছু জানায়নি।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর সেন্ট্রাল কমান্ড জানিয়েছে, এরবিলের দিকে যাওয়ার পথে বুধবার ইরানের একটি ড্রোন তাদের বাহিনীকে লক্ষ্য করেছিল। ড্রোনটি ওই অঞ্চলে থাকা মার্কিন বাহিনীর জন্য ঝুঁকি তৈরি করেছিল বলে দাবি করেছে সেন্ট্রাল কমান্ড। হামলার কারণে মার্কিন বাহিনীর কেউ হতাহত হননি এবং যুক্তরাষ্ট্রের কোনো সরঞ্জামেরও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।

ইরানের কুর্দি বিরোধী দল কোমালার একজন জ্যেষ্ঠ সদস্য রয়টার্সকে জানান, তাদের কয়েকটি কার্যালয়েও হামলা চালানো হয়েছে।

কুর্দি শহর কোয়ের মেয়র তারিক হায়দারি জানান, হামলায় অন্তঃসত্ত্বা নারীসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১২ জন। আহতদের কয়েকজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় দ্রুত এরবিলের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

হামলার পর ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনী এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ওই অঞ্চলের কথিত সন্ত্রাসীদের লক্ষ্য করে তারা হামলা অব্যাহত রাখবে।

ইত্তেফাক/এইচএম