বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ভাইকে অপহরণের মামলায় জামিন পেয়ে বোনকে অপহরণ

আপডেট : ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৯:৪৪

রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে চাচাতো বোনকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করেছিলেন এসএসসি পরীক্ষার্থী ভাই। এ কারণে চাচাতো ভাইকে অপহরণ করে একটি ইটভাটায় নিয়ে নির্যাতন করেন উত্ত্যক্তকারী মেহেদী পলাশ (২৫)। এ ঘটনার মামলায় কারাগারে যান মেহেদী পলাশ। এবার জামিনে বেরিয়ে ওই এসএসসি পরীক্ষার্থীর চাচাতো বোনকে অপহরণ করেছেন মেহেদী পলাশ।

বুধবার (৫ অক্টোবর) ভুক্তভোগীর পরিবারের পক্ষ থেকে গোদাগাড়ী থানায় দেওয়া লিখিত অভিযোগে এসব কথা জানানো হয়েছে।

অভিযুক্ত মেহেদী পলাশের বাড়ি গোদাগাড়ী উপজেলার লস্করহাটি গ্রামে। তাঁর নামে গোদাগাড়ী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

অপহরণের শিকার কিশোরীর বাবা এজাহারে দাবি করেন, মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) তার মেয়ে প্রাইভেট পড়ে বাড়িতে ফিরছিলেন। ওই সময় মেহেদী পলাশসহ কয়েকজন মিলে তাকে জোর করে একটা সিএনজিতে তুলে নিয়ে যান।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, গোদাগাড়ী পৌরসভার গড়েরমাঠ মহল্লার ওই এসএসসি পরীক্ষার্থীর অষ্টম শ্রেণিপড়ুয়া চাচাতো বোনকে দীর্ঘদিন ধরে উত্ত্যক্ত করে আসছিলেন মেহেদী পলাশ। এর প্রতিবাদ করলে গত ৭ সেপ্টেম্বর ছয়-সাতজন সহযোগীকে নিয়ে ওই এসএসসি পরীক্ষার্থীকে অপহরণ করে একটি ইটভাটায় নিয়ে নির্যাতন করেন তিনি। এ ঘটনায় ওই কিশোরের মা গোদাগাড়ী থানায় মামলা করেন।

এতে মেহেদী পলাশ, মহিশালবাড়ি আলীপুর মহল্লার আবদুল আওয়াল (২৫), গড়েরমাঠের মো. জাহিদ (১৪), মাদারপুর মহল্লার শাহরিয়ার জয়সহ (১৮) আরও তিন-চারজনকে আসামি করা হয়। ওই মামলায় গত ২২ সেপ্টেম্বর মেহেদী পলাশকে পুলিশ গ্রেফতার করে। আদালতের মাধ্যমে তকে কারাগারে পাঠানো হয়। কয়েক দিন আগে তিনি জামিনে মুক্তি পেয়ে বাড়িতে ফেরেন।

এরপর মঙ্গলবার বিকেলে প্রাইভেট পড়ে বাড়িতে ফেরার পথে উপজেলার পুরোনো জেনারেল হাসপাতালের সামনে থেকে ওই এসএসসি পরীক্ষার্থীর চাচাতো বোনকে অপহরণ করে মেহেদী।

গোদাগাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুজ্জামান বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। মেহেদী পলাশকেও বাড়িতে পাওয়া যাচ্ছে না। ধারণা করা হচ্ছে, সে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত। পুলিশ আসামি গ্রেফতার ও মেয়েটি উদ্ধার করার জন্য চেষ্টা করছে।

ইত্তেফাক/পিও/কেকে