রোববার, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২২ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

উদ্যোক্তা অর্থনীতি ক্লাবের আয়োজনে কুয়ান্টিটেটিভ বিশ্লেষণের সেমিনার

আপডেট : ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৯:০৮

ঢাকা স্কুল অব ইকোনোমিক্স-এর উদ্যোক্তা অর্থনীতি ক্লাবের আয়োজনে ইভিউজ এবং আর-স্টুডিওতে অনুষ্ঠিত হলো কুয়ান্টিটেটিভ বিশ্লেষণের সেমিনার। ভারতের অধ্যাপক ড. দীপ্তি রঞ্জন মহাপাত্র সেমিনারটিতে প্রধান অতিথি হিসেবে ফ্যাকাল্টি ও শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ দেন।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, সঠিক অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য ইকোনোমেট্রিক্সের ব্যবহার খুবই গুরুত্বপূর্ণ, বিশেষ করে যখন বিশ্বব্যাপী মন্দা চলছে। বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, সকলকে ছিনতাই ও দুর্নীতি থেকে বিরত থাকতে হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কারণে বাংলাদেশের অর্থনীতি এখনও ভালো অবস্থায় রয়েছে।

তারা যুক্তি দিয়েছেন, যে ঢাকা স্কুল অব ইকোনমিক্সের স্নাতক প্রোগ্রামটি সোশ্যাল সায়েন্সের স্নাতক হতে পারে, যার কনসেন্ট্রেশন এরিয়া রয়েছে। কারণ অস্ট্রেলিয়ান ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ব্যাচেলর অব ইকোনমিক্সে কোনো কনসেনট্রেশন এরিয়া নেই।

এছাড়া, যারা বিভিন্ন ব্যক্তিকে বিদ্বেষপূর্ণ ও ভুয়া চিঠি পাঠিয়েছে, তদন্তের মাধ্যমে তাদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনার সুপারিশ করেন বক্তারা।

২৫নভেম্বর সন্ধ্যায় উপরোক্ত বিষয়গুলোর উপর অনলাইনে একটি প্রশিক্ষণ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়, যা ঢাকা স্কুল অব ইকোনমিক্সের উদ্যোক্তা অর্থনীতিবিদ ক্লাব দ্বারা আয়োজিত হয়েছিল, যা ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

প্রধান অতিথি হিসেবে সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর ড. দীপ্তি রঞ্জন মহাপাত্র, অ্যামিটি কলেজ অব কমার্স অ্যান্ড ফাইন্যান্স, অ্যামিটি ইউনিভার্সিটি, উত্তরপ্রদেশ, ভারত এবং সেশনের সভাপতি ছিলেন প্রফেসর ড. মুহাম্মদ মাহবুব আলী, ঢাকা স্কুল অব ইকোনমিক্স।

প্রশিক্ষণ প্রোগ্রামে প্রফেসর ড. দীপ্তি রঞ্জন মহাপাত্র বিনা খরচে ফ্যাকাল্টি এবং গবেষকদের প্রশিক্ষণ দেন, যাতে তারা দেশের উন্নয়নের জন্য ইকোনোমেট্রিক্স-এর ব্যবহার করতে পারে। প্রশিক্ষণকালে প্রফেসর মহাপাত্র বলেন, ইকোনোমেট্রিক ডেটা মানব কল্যাণের জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে।

প্রফেসর ড.মুহাম্মদ মাহবুব আলী বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর একজন সাধারণ সমর্থক হিসেবে আমাদের নিঃস্বার্থভাবে কাজ করা উচিত, যার জন্য প্রয়োজন সঠিক তথ্য এবং তথ্যের বিশ্লেষণ। প্রফেসর আলী উল্লেখ করেন, আমরা সাধারণ মানুষ এবং কোনো নীতি নির্ধারক নই। তাই আমাদের কাজ সততা, স্বার্থপর, নীতিগত, নৈতিকভাবে এবং স্বচ্ছতার সাথে শুরু করা উচিত।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ঢাকা স্কুল অব ইকোনমিক্সের রেহানা পারভিন, ড. সারা তাসনিম এবং শামিম আহমেদ এবং ইউনিভার্সিটি অব স্কিল এনরিচমেন্ট অ্যান্ড টেকনোলজি থেকে বক্তব্য দেন নওয়াজিশ মুহম্মদ আলী প্রমুখ।

প্রত্যেক অংশগ্রহণকারী অনলাইনে ড. মহাপাত্রের চমৎকার প্রশিক্ষণ উপভোগ করেন। অংশগ্রহণের ফি বিনামূল্যে ছিল যার জন্য ৯৯ জন অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় এবং কলেজ এবং চাকরিজীবী ও ব্যবসায়ীরা অংশগ্রহণ করেন।

ইত্তেফাক/এএইচপি